এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > বঙ্গভঙ্গের দাবী কি আখেরে ফাটল ধরাচ্ছে গেরুয়া শিবিরে? বিজেপি সভাপতির তৃণমূলে যোগদানে সেদিকেই ইঙ্গিত

বঙ্গভঙ্গের দাবী কি আখেরে ফাটল ধরাচ্ছে গেরুয়া শিবিরে? বিজেপি সভাপতির তৃণমূলে যোগদানে সেদিকেই ইঙ্গিত



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকে গেরুয়া শিবিরের ভাঙন যে অনিবার্য, সে ব্যাপারে নিঃসন্দেহ ছিলেন বিশেষজ্ঞরা। তবু সেক্ষেত্রে মনে করা হচ্ছিল, তৃণমূল থেকে যারা নির্বাচনের আগে বিজেপিতে এসেছেন, তাঁরাই আবার ফিরে যেতে চলেছেন। তৃণমূল থেকে আসা নেতা মুকুল রায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন ইতিমধ্যেই। কিন্তু এবার গেরুয়া শিবিরের আদি নেতাদের মধ্যে ভাঙন। দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি এবার উত্তরবঙ্গ গেরুয়া শিবিরেও শুরু হয়ে গেল ভাঙন। এবং কোন দলবদলু নেতা নয়, খোদ বিজেপির আদি নেতারা একযোগে দল ছেড়ে চলে গেলেন তৃণমূলে।

স্বাভাবিকভাবেই উত্তরবঙ্গের তৃণমূলের শক্তি এতে বৃদ্ধি পাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। আজকে তৃণমূল ভবনে এসে দলে যোগদান করলেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা এবং তাঁর অনুগামী ও অন্যান্য বিজেপি নেতারা। বেশ কিছুদিন ধরেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল, আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সভাপতির সঙ্গে দলের তাল কোথাও কেটেছে, আর তারই প্রমাণ পাওয়া গেল এ দিন।

সোমবার তৃণমূল ভবনে গঙ্গাপ্রসাদ শর্মার হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন মুকুল রায় এবং ব্রাত্য বসু। দীর্ঘদিন আরএসএস করা বিজেপি নেতা গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা লোকসভা নির্বাচনের আগে আলিপুরদুয়ারের বিজেপির জেলা সভাপতির দায়িত্ব পান। এর পরেই লোকসভায় কিন্তু গেরুয়া শিবির ভালো ফল করে। উল্লেখযোগ্যভাবে উত্তরবঙ্গের কথা এক্ষেত্রে বলতেই হয়। পাশাপাশি একুশের বিধানসভা নির্বাচনে আলিপুরদুয়ারে পাঁচটি আসন পেয়েছে বিজেপি।

সেক্ষেত্রে গঙ্গাপ্রসাদ শর্মার রাজনৈতিক কৃতিত্বকেই স্বীকৃতি দিচ্ছেন রাজনীতির কারবারিদের একাংশ। কিন্তু ভোটের আগেই দলের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হয় এই গঙ্গাপ্রসাদ শর্মার এবং তখন থেকেই শোনা যাচ্ছিল, তিনি তৃণমূলে যোগদান করতে পারেন। এ প্রসঙ্গে গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা আজ দল বদল করার পর জানিয়েছেন, ভোটের আগে যেভাবে জেলা নেতৃত্বকে না জানিয়ে একের পর এক নেতাকে কলকাতা এনে এবং দিল্লিতে পাঠিয়ে বিজেপিতে যোগদান করানো হয়েছে, সেখান থেকেই এই ক্ষোভের সূত্রপাত। তবে বিধানসভা নির্বাচনের আগে তিনি দল না ছাড়ার কারণ হিসেবে জানান, সে সময় তিনি দল ছাড়লে তাঁকে গদ্দার হিসেবে চিহ্নিত করা হত।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু দলকে পাঁচটি আসন দিয়ে তিনি দল ছাড়লেন। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য করার জন্য সরব হয়েছেন আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা। আর তাই নিয়েই এবার পাল্টা ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেন গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা। তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন, আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা কোন রকম কাজ করেননি এলাকায়। তাই সাংসদ এ ধরনের দাবি তুললেও এলাকার মানুষের সমর্থন সাংসদ পাবেননা এক্ষেত্রে। পাশাপাশি গেরুয়া শিবিরের অলিন্দে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে, বঙ্গভঙ্গের যে দাবি উঠেছে উত্তরবঙ্গে, তাতে বিজেপির সংগঠনে ফাটল ধরা সময়ের অপেক্ষা।

একইসাথে দেখা যাচ্ছে উত্তরবঙ্গের সংসদ জন বার্লা বঙ্গভঙ্গের আবেদন জানালেও গেরুয়া শিবির কিন্তু সেই দাবিকে ব্যক্তিগত দাবি বলে এড়িয়ে গিয়েছেন। আর এখান থেকেই স্পষ্ট দলের মধ্যে কিন্তু বাংলাকে ভাগ করা নিয়ে ব্যাপক মতানৈক্য চলছে। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই পরিস্থিতিতে আলিপুরদুয়ারে গেরুয়া শিবিরের ভাঙন ব্যাপক রাজনৈতিক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করলো। পাশাপাশি তীব্র অস্বস্তি গেরুয়া শিবিরেও।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!