এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > আবহাওয়া > বঙ্গোপসাগরে গভীর হচ্ছে নিম্নচাপ? পুজোয় কলকাতা সহ গোটা রাজ্যই ভাসতে চলেছে প্রবল বর্ষণে?

বঙ্গোপসাগরে গভীর হচ্ছে নিম্নচাপ? পুজোয় কলকাতা সহ গোটা রাজ্যই ভাসতে চলেছে প্রবল বর্ষণে?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে পুজোর সময় চোখ রাঙায় বাদল কালো মেঘ। তবে এবারে একটু আশা ছিল, কারণ মহালয়ার প্রায় এক মাস পর পুজো। নিশ্চিন্ত হওয়া গিয়েছিল এ বছর বোধহয় আর বৃষ্টির সামনাসামনি হতে হবেনা বাংলার জনতাকে উৎসবের দিনে। কিন্তু বিধিবাম! আবারও এবছর পুজোয় ভাসতে চলেছে কলকাতা সহ গোটা রাজ্য, আবহাওয়াবিদদের এরকমই দাবি। আগেই ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল, বঙ্গোপসাগরের বুকে একটি নিম্নচাপ তৈরি হওয়ার কথা।

মধ্য বঙ্গোপসাগরে মঙ্গলবার একটি নিম্নচাপ তৈরি হয়। প্রাথমিকভাবে এই নিম্নচাপটির অভিমুখ ছিল অন্ধ্র উড়িষ্যা উপকূল। কিন্তু বুধবার এটি শক্তি বাড়িয়ে পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগরের উপর সুস্পষ্ট নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। আর ক্রমশ এটি নিজের অভিমুখ পরিবর্তন করে এগিয়ে আসছে উত্তর-পূর্বে পশ্চিমবঙ্গ বাংলাদেশ উপকূলের দিকে। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই নিম্নচাপের কারণে আগামী দিন দুয়েক রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

শুক্রবার মহা সপ্তমীর দিন এই নিম্নচাপটি উপকূল অতিক্রম করবে বলে মনে করা হচ্ছে। ফলে বৃহস্পতিবার থেকেই আকাশ মেঘলা থাকার সম্ভাবনা। নিম্নচাপের প্রভাবে দুই 24 পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় বৃষ্টি হবার সম্ভাবনা। কোথাও কোথাও থাকবে 40 থেকে 50 কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া। কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, নদীয়া জেলার কোথাও কোথাও শুক্রবারে বৃষ্টি হবার সম্ভাবনা। এই জেলাগুলিতে ঝোড়ো হাওয়া বইবে বলে জানা গেছে। আন্যান্য জেলায় হালকা থেকে মাঝারী বৃষ্টির সম্ভাবনা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আবহাওয়া দপ্তর ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে, ষষ্ঠী থেকে নবমী গোটা পুজো জুড়েই কখনো হালকা, কখনো মাঝারি, আবার কখনো ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। নিম্নচাপের জেরে সমুদ্রও উত্তাল হয়ে উঠবে। তাই আগামীকাল থেকে শনিবার পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। দীঘা, মন্দারমণি, শংকরপুর, বকখালি, সাগরদ্বীপ প্রভৃতি জায়গায় দর্শনার্থীদের পর্যটকদের সমুদ্রে স্নান না করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে শুক্র ও শনিবার সুন্দরবন এলাকায় ফেরি পরিষেবা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

এমনিতেই করোনা নিয়ে নাজেহাল মানুষ। তার মধ্যে বাংলার শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপূজায় এবছর হাইকোর্টের রায়ের কারণে উৎসাহে অনেকটাই ভাঁটা। তার মধ্যেও যদি শুরু হয় ঘনঘোর বৃষ্টি, তাহলে অবস্থা যে শোচনীয় হয়ে উঠবে সে কথা সবার জানা। অন্যদিকে নিম্নচাপের কারণে শহর কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় জল জমতে পারার আশঙ্কা। এবং তা অনুমান করে ইতিমধ্যেই পুরসভা থেকে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে অনেকেই বলছেন, করোনা পরিস্থিতি সত্বেও মানুষের ঢল নামছে রাস্তায় মন্ডপের উদ্দেশ্যে। আর তাই বৃষ্টি এবার উদ্যোগ নিয়েছে মানুষের ঢল রোখার। আপাতত বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপটি কোনদিকে মোড় নেয়, সেদিকে এখন নজর রেখেছেন আবহাওয়াবিদরা।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!