এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > বৈশাখী ঝরে আটকে যাচ্ছেন শোভন, বিজেপির অন্দরে চাপা ক্ষোভ, ভবিষ্যতের জন্য কি ভালো হচ্ছে ?

বৈশাখী ঝরে আটকে যাচ্ছেন শোভন, বিজেপির অন্দরে চাপা ক্ষোভ, ভবিষ্যতের জন্য কি ভালো হচ্ছে ?



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তিনি রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী, কলকাতা পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র। কিন্তু এক সময়ে এত কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদ থাকা সত্ত্বেও, শুধুমাত্র বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য তৃণমূল কংগ্রেস ত্যাগ করেছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। যেখানে বান্ধবী প্রীতি দেখিয়ে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সাথে নিয়ে বিজেপির সদর দপ্তরে গিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে নাম লিখিয়েছিলেন তারা। মনে করা হয়েছিল, এরপর থেকে তারা বিজেপিতে পুরোদমে কাজ করবেন।

কিন্তু শোভন চট্টোপাধ্যায়কে বিজেপির পক্ষ থেকে সেভাবে গুরুত্ব দেওয়া হলেওড় অতটা গুরুত্ব দেয়নি তার বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যার ফলে ক্রমশ দলের সঙ্গে দূরত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। দীর্ঘদিন খাতায়-কলমে বিজেপির সদস্য হলেও কোনো কর্মসূচিতে যোগ দিতে দেখা যায় নিয়েই শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

গুরুত্ব দিলে যে তাদের দু’জনকেই একইভাবে গুরুত্ব দিতে হবে, তা নিজের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন শোভনবাবু। আর সাম্প্রতিককালে অরবিন্দ মেননের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বৈঠকের পর তাকে গুরুত্ব দেওয়ার চেষ্টা করা হলেও, বিজয়া সম্মিলনীতে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ না জানানোয় শোভন চট্টোপাধ্যায় আবার বেকে বসতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। অর্থাৎ বৈশাখীদেবীকে গুরুত্ব দেওয়া না হলেও তিনি যে সক্রিয়তা অবলম্বন করবেন না, তা বুঝিয়ে দিতে পারেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী। আর যদি এবার শোভন চট্টোপাধ্যায় এই রকম আচরণ শুরু করেন, তাহলে তা ভবিষ্যতের পক্ষে তা খুব একটা সুখকর হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে।

একাংশ বলছেন, অতীতেও এই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য তাকে গুরুত্ব না দেওয়ার কারণে শোভন চট্টোপাধ্যায় বিজেপিতে বেঁকে বসেছিলেন। তাকে দলের পক্ষ থেকে গুরুদায়িত্ব দেওয়ার কথা হলেও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় যদি দায়িত্ব না পান, তাহলে তিনি যে কাজ করবেন না, তা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী।

স্বাভাবিকভাবেই এমন একজন দক্ষ সাংগঠনিক ব্যক্তিত্বকে বিজেপিতে কাজে লাগাতে না পেরে অনেকেই হতাশ হয়ে গিয়েছিলেন। আর এবারেও বিধানসভা নির্বাচনের আগে যদি শোভন চট্টোপাধ্যায় বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে গুরুত্ব না দেওয়ার কারণে দলে সক্রিয় না হন, তাহলে তা যে তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের পক্ষে বড় বিপদজনক হয়ে দাঁড়াবে, সেই ব্যাপারটি নিশ্চিত বিশেষজ্ঞদের কাছে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কেননা টানা ঘরে বসে থাকার কারণে রাজনীতি থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় গুরুত্ব না পেলে তিনি যদি আবার বিদ্রোহ পোষণ করে ঘরে বসে থাকেন, তাহলে আদতে তার ক্ষতি বলেই দাবি করছেন একাংশ। আর শোভন চট্টোপাধ্যায় এবার যদি নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থাকেন এবং তার পরেও বিজেপির পক্ষ থেকে তার কথা না মানা হয়, তাহলে তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে যেতে পারেন।

কিন্তু বর্তমানে যা পরিস্থিতি তাতে তৃণমূল কংগ্রেস আদৌ শোভন চট্টোপাধ্যায়কে নিজেদের দলে গ্রহণ করবে কিনা, তা নিয়ে বড় সংশয় তৈরি হয়েছে। কেননা অতীতে বহুবার শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন বলে জল্পনা ছড়িয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। স্বাভাবিকভাবেই বিধানসভা নির্বাচনের আগে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে যদি তৃণমূল কংগ্রেস যোগদান করায় তাহলে তার রাজনৈতিক গ্রহণযোগ্যতা কতটা বৃদ্ধি হবে, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে।

স্বাভাবিকভাবেই শুধুমাত্র বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য এখন শোভন চট্টোপাধ্যায় যদি নিজের ইগো ধরে বসে থাকেন, তাহলে তা রাজনৈতিক স্বার্থের পক্ষে তা অত্যন্ত বিপদজনক হয়ে দাঁড়াবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!