এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > জঙ্গলমহলে তৃণমূলের ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্নে জল ঢেলে মাস্টারস্ট্রোক দিলীপের? নতুন আহ্বানে জল্পনা

জঙ্গলমহলে তৃণমূলের ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্নে জল ঢেলে মাস্টারস্ট্রোক দিলীপের? নতুন আহ্বানে জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই তৃণমূল থেকে দল ভেঙে গেরুয়া শিবিরে আসার ঢল নেমেছে। তবে মাঝখানে বেশ কিছুদিন এই দলবদলে ভাটা পড়লেও একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পরিপ্রেক্ষিতে দেখা যাচ্ছে তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রী-সাংসদরা দল ছেড়ে ক্রমাগত চলে আসছেন গেরুয়া শিবিরে। এই অবস্থায় রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ যারা এখনো দলবদল করেননি, তাঁদের জন্য দিলেন ইতিবাচক বার্তা। এদিন দিলীপ ঘোষ ঝাড়গ্রামের সভা থেকে জানিয়ে দিলেন, যারা এখনো চিন্তা ভাবনা করছেন তৃণমূল থেকে বিজেপিতে আসার জন্য, তাঁরা নির্দ্বিধায় যেন চলে আসেন।

গত একমাসে শাসকদলের বহু নেতাই বেসুরো বেজেছেন। ইতিমধ্যেই মন্ত্রিসভা থেকে দুই মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং লক্ষ্মীরতন শুক্ল ইস্তফা দিয়েছেন। রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, তৃণমূল শিবিরের এখনো বহু নেতা রয়েছেন, যারা গেরুয়া শিবিরে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত। আর একথা ভালই বুঝেছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর সেই সূত্রেই ঝাড়গ্রামের জামদা সার্কাস ময়দানের সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারীকে পাশে নিয়ে দিলীপ ঘোষ বার্তা দিলেন, তৃণমূল নেতারা যারা এখনও দলবদল করেননি বা করার কথা ভাবছেন কিন্তু আসতে পারছেন না পূর্ব সম্পর্কের জেরে, তাঁদের নির্দ্বিধায় চলে আসার বার্তা দিয়ে রাখলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এ প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ শুভেন্দু অধিকারীর উদাহরণ টেনে আনেন। তিনি বলেন, শুভেন্দু অধিকারীর মতন বুক টান করে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করার জন্য। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, দিলীপ ঘোষ তাঁর এই বার্তার মাধ্যমে জানিয়ে দিলেন গেরুয়া শিবিরে যোগদানের জন্য কোন ছুঁতমার্ক তাঁরা আর রাখছেন না। প্রসঙ্গত ঝাড়গ্রামসহ গোটা পশ্চিমাঞ্চলে লোকসভা নির্বাচনে একটিও সিট পায়নি তৃণমূল। পঞ্চায়েত ভোটের ফলাফলও তথৈবচ। সে কথা উল্লেখ করে এ মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ জানান, লোকসভা নির্বাচনকে যদি সেমিফাইনাল ধরা হয় তাহলে বিধানসভা নির্বাচন ফাইনাল। আর সেক্ষেত্রে তৃণমূলের নেতারা যাতে জঙ্গলমহলে ঢুকতে না পারেন, সেই বার্তাই দিলেন দিলীপ ঘোষ।

পাশাপাশি দিলীপ ঘোষ এদিন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করলেন। উল্লেখ্য, 2011 সালের পরিবর্তনের হাত ধরে জঙ্গলমহলে ভিত তৈরি করেছিল তৃণমূল। কিন্তু তারপর থেকে জঙ্গলমহলে কিন্তু তৃণমূল শিবিরের পতন একটু একটু করে ঘটে। যা 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে পরিলক্ষিত হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, জঙ্গলমহলের দিকে তৃণমূল নেত্রী এবার বিশেষ নজর দিয়েছেন। কিন্তু তা সত্বেও গেরুয়া শিবির জঙ্গলমহলের আদিবাসী ভোটকে সঙ্গে নিয়ে যেভাবে তৃণমূলকে রুখে দিয়েছে লোকসভা নির্বাচনে, তা দেখে কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের ইঙ্গিত পাওয়া যায়। সব মিলিয়ে তৃণমূলের কাছে এবারের লড়াই কিন্তু মরণ-বাঁচন লড়াইতে এসে ঠেকেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!