এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বিজেপিতে যোগদানের পর দীনেশ ত্রিবেদীকে কঠোর ভাষায় কটাক্ষ তৃণমূল মুখপাত্রের

বিজেপিতে যোগদানের পর দীনেশ ত্রিবেদীকে কঠোর ভাষায় কটাক্ষ তৃণমূল মুখপাত্রের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর আজ বিজেপিতে যোগদান করলেন বর্ষীয়ান নেতা দীনেশ ত্রিবেদী। আজ দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান, পীয়ূষ গোয়েল প্রমুখের উপস্থিতিতে বিজেপিতে যোগদান করলেন দীনেশ ত্রিবেদী। আজ দুপুরে বিজেপিতে যোগদান করলেন তিনি। বিজেপিতে যোগদান করেই তিনি জানালেন যে, এই দিনের অপেক্ষায় ছিলেন তিনি। তিনি আরও জানালেন যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাত ধরে এবার বাংলায় আসল পরিবর্তন আসতে চলেছে। তাঁর বিজেপিতে যোগদানের পর তাঁকে তীক্ষ্ণ ভাষায় কটাক্ষ করলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ।

বিজেপিতে যোগদানের পর দীনেশ ত্রিবেদী জানালেন যে, তৃণমূল দলে এখন শুধু একটি পরিবারেরই সেবা করা হয়। যে আদর্শ ছিল তৃণমূলের, তা এখন আর নেই। এখন একজন কনসালটেন্টের হাতে চলে গেছে দলটি। তাই মানুষের সেবা করতেই বিজেপিতে যোগদান করলেন তিনি। তিনি জানালেন বিজেপির হাতেই সুরক্ষিত থাকবে দেশ। তিনি আরও জানান যে, তৃণমূল দলটা এখন যেভাবে চলছে, তাই সেখানে থেকে কাজ করা সম্ভব নয়।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তিনি জানালেন, একটা কনসালটেন্টকে ৪০০, ৫০০ কোটি টাকা দিয়ে রাজ্যে আনা হয়েছে, আর বলা হচ্ছে তৃণমূল পার্টি হল গরিব মানুষের পার্টি। একজনকে নিয়ে দল কখনই চলে না। মানুষের জন্য কিছুই করা হয়নি। বাংলা এবারে আসল পরিবর্তন চায়। বিজেপির হাত ধরেই আসল পরিবর্তন আসবে। রাজনীতি কখনো খেলা নয়। খেলতে খেলতে আদর্শ থেকে বিচ্যুত হয়ে গেছে তৃণমূল। তৃণমূলের বিরুদ্ধে তাঁর একাধিক বিষেদাগারের পর তার পাল্টা জবাব দিলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। কুনাল ঘোষ জানালেন, তিনি মনে করেন দীনেশ ত্রিবেদীর অভিধানে লজ্জা, ঘেন্না, কৃতজ্ঞতা বলে কোন শব্দই নেই।

কুনাল ঘোষ জানালেন যে, গত ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে অর্জুন সিংএর অনুরোধ না মেনে দীনেশ ত্রিবেদীকে ব্যারাকপুর থেকে দলের প্রার্থী করা হয়েছিল। নির্বাচনে তিনি হেরে যাবার পরও তাঁকে রাজ্যসভায় পাঠিয়ে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করেছেন, সেই নেত্রীর বিরুদ্ধে কথা বলতে আজ বিন্দুমাত্র বিবেকে লাগছেনা দীনেশ ত্রিবেদীর। তিনি অভিযোগ করেছেন যে, যাদের রক্তের ওপর, যাঁদের লড়াইয়ের উপর দাঁড়িয়ে এই সমস্ত লোক নেতা, মন্ত্রী হয়েছেন, আজ তাঁরাই প্রথম ছুরি মারছেন দলকে। কিন্তু দলের কর্মীরা অটুট আছেন।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!