এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপির রাম ‘উৎসব’ আটকাতে তীব্র উত্তেজনা, অকাতরে চলল গুলি-বোমা! অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে

বিজেপির রাম ‘উৎসব’ আটকাতে তীব্র উত্তেজনা, অকাতরে চলল গুলি-বোমা! অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – 5 আগস্ট অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন এবং ভূমি পূজা উপলক্ষে জাতীয় স্তরে এদিন সাজো সাজো রব। অন্যান্য রাজ্যেও গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে এই দিনটিকে উদযাপন করতে বেশ তোড়জোড় শুরু হয়েছিল অনেক আগে থেকেই। ব্যতিক্রম পশ্চিমবঙ্গ। কারণ, পশ্চিমবঙ্গে করোনার কারণে চলছে সাপ্তাহিক লকডাউন। আগস্ট মাসের শুরুতে 5 ই আগস্ট ছিল লকডাউনের প্রথম দিন। রাজ্য বিজেপির পক্ষ থেকে এই দিনটি পাল্টানোর জন্য বহু আবেদন জানানো হয়েছিল রাজ্য সরকারের কাছে। কিন্তু সমস্ত আবেদন বিফলে যায়।

তা সত্বেও রাজ্য বিজেপি শিবির হার মানেনি। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় এদিন অযোধ্যা ভূমিপূজা উদযাপনের আয়োজন করা হয়। আর সেই আয়োজনকে কেন্দ্র করে এবার নিউটাউন উত্তপ্ত হয়ে উঠল। সূত্রের খবর, নিউ টাউনের নারায়ণপুরে মঙ্গলবার রাতে ভূমিপূজা উদযাপনের জন্য এলাকা সাজানোর সময় সেখানে গোলাবারুদ নিয়ে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী। গুলিও চলে। খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। তখনকার মতো পরিস্থিতির সামলে গেলেও বুধবার সকালে আবার এলাকায উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

এই ঘটনায় 10 জনকে পুলিশ আটক করেছে এখনো পর্যন্ত। পুলিশ সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতে নিউটাউনের নারায়ণপুরে রাম মন্দিরের ভূমিপূজা উদযাপনের আয়োজন করেছিল এলাকার বিজেপি শিবির। সেসময় সেখানে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী। প্রাথমিক অবস্থায় কথা কাটাকাটি শুরু হয় দু’পক্ষের। কিন্তু পরবর্তীতে শুরু হয় হাতাহাতি। দুষ্কৃতীরা গুলিও চালায় এবং এলোপাথাড়ি বোমাবাজিও করে বলে শোনা যাচ্ছে। মুহূর্তের মধ্যেই এলাকা রণক্ষেত্রের আকার ধারণ করে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

স্থানীয় সূত্রে খবর পেয়ে গভীর রাতে ঘটনাস্থলে আসেন বিধান নগরের ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায়। ঘটনার প্রতিবাদে তাঁকে ঘিরে শুরু হয় বিক্ষোভ। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বুধবার সকালে আবার ভূমিপুজার উদযাপনের ব্যবস্থা করতেই অভিযোগ ওঠে, বেশ কিছু দুষ্কৃতী এসে বাধা সৃষ্টি করে। যদিও জানা গেছে, পুলিশ তা সামাল দিয়েছে। তবে বিজেপি শিবিরের দাবি, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরাই তাঁদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

মঙ্গলবারের ঘটনা নিয়ে বিধাননগরের ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “গভীর রাতে অশান্তির খবর পেয়েই আমি নারায়ণপুরে যাই। সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলি। তাঁরাও আমাকে তাঁদের ক্ষোভের কথা জানান। কী ঘটনা ঘটেছে পুলিশ তদন্ত করে দেখেছে।” অন্যদিকে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এই ঘটনার বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে জানিয়েছেন, নিউ টাউনে তৃণমূলের গুন্ডা বাহিনী ভূমিপূজা উদযাপনে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। যদিও মানুষ এই গুণ্ডাবাহিনীর মোকাবিলা করেছে বলে তিনি দাবি করেন।

প্রসঙ্গত, শুধু শহর কলকাতাতেই নয়- এদিন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অশান্তির খবর আসে। রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, লকডাউন থাকলেও বিজেপি শিবির থেকে আগেই ঘোষণা করা হয়েছিল লকডাউন তাঁরা মানবেন না, ভূমিপূজা উদযাপন তাঁরা করবেনই। সুতরাং অশান্তির আশঙ্কা ছিলই। অন্যদিকে পুলিশ 10 জন দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করলেও এখনো পর্যন্ত জানা যায়নি তাঁরা তৃণমূল শিবিরের গুন্ডাবাহিনী কিনা। তবে এই ঘটনার রেশ যে অনেক দূর গড়াবে, সে ব্যাপারে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!