এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > নির্বাচনের মুখে ঠিকানা বদলাচ্ছে বিজেপির রাজ্য সদর দপ্তরের, কর্মী- সমর্থকদের ঝাঁ-চকচকে নতুন অফিস উপহার

নির্বাচনের মুখে ঠিকানা বদলাচ্ছে বিজেপির রাজ্য সদর দপ্তরের, কর্মী- সমর্থকদের ঝাঁ-চকচকে নতুন অফিস উপহার



2014 সালে ক্ষমতায় আসার পরই বিজেপির কেন্দ্রীয় অফিসের যে বহর বেড়েছে তা নিয়ে বিভিন্ন সময়ই গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে দেখা যায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলোকে। আর এবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের মুখে বাংলার বিজেপি নেতৃত্বের অফিসের ঠিকানাও বদল হতে চলেছে বলে জানা গেছে।

সূত্রের খবর, মাসিক প্রায় আড়াই লক্ষ টাকার ভাড়ায় কলকাতার হেস্টিংসের কাছে একটি বহুতল বাণিজ্যিক ভবন রাজ্য বিজেপির নতুন অফিস হতে চলেছে। যার ঠিকানা- 2 নং মুন্সি প্রেমচাঁদ সরণি, হেস্টিংস, কলকাতা- 700022। জানা গেছে, বুধবার পুজো করে এই রাজ্য বিজেপির নতুন সদর দপ্তরে আনুষ্ঠানিকভাবে গৃহপ্রবেশ হবে। আর সমস্ত কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচন পর্যন্ত এই অফিসটিই রাজ্য বিজেপির সদর দপ্তর হতে চলেছে বলে খবর।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

ফলে দীর্ঘদিনের শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের নেওয়া 6 নম্বর মুরলীধর সেনের অফিস এখন কার্যত অপ্রাসঙ্গিকই হয়ে গেল বলে মত বিশেষজ্ঞদের। কেন হঠাৎ তারা তাদের সদর দপ্তর বদল করলেন? এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “সময়ের দাবি মেনে আমরা এই নতুন অফিস নিয়েছি। পার্টি বড় হচ্ছে, কর্মী নেতাদের আনাগোনা বাড়ছে, তাই ওই ছোট জায়গা থেকে লোকসভা ভোট পরিচালনার সমস্যা হয়ে পড়ছে। নতুন অফিসে সমস্ত আধুনিক ব্যবস্থা থাকবে।”

অন্যদিকে এই বহুতল পার্টি অফিস রাজ্য বিজেপির সদর দপ্তর করার ঘটনায় বিজেপিকে পাল্টা কটাক্ষ ছুড়ে দিয়েছেন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা ফিরহাদ হাকিম। এদিন তিনি বলেন, “দিল্লির কায়দায় কর্পোরেট ধাঁচে দেশের সাধারণ মানুষের কষ্টের টাকা দিয়ে ফুর্তি করার জন্য এসব আয়োজন করা হয়েছে। তৃণমূল গরিব দল। দলনেত্রীর বাড়িতে এখনও টালির ছাউনি রয়েছে। কোনো রকম কষ্ট করে তৃণমূল ভবন তৈরি করা হয়েছে। আর বিজেপি মানুষের টাকা নিয়ে ফুর্তি করে এত বড় অফিস করছে। আগামী ভোটে মানুষ এদের যোগ্য জবাব দেবে।”

সব মিলিয়ে এবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির রাজ্য সদর দপ্তর বদল হওয়াকে কেন্দ্র করে শাসক বনাম বিরোধীর তরজা চরমে উঠল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!