এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপিকে একচুলও জমি ছাড়তে নারাজ তৃণমূল, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুদিন পালনে জোর টক্কর তৃণমূলের

বিজেপিকে একচুলও জমি ছাড়তে নারাজ তৃণমূল, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুদিন পালনে জোর টক্কর তৃণমূলের



লেগেই আছে বিজেপি আর তৃণমূল কংগ্রেসের কাজিয়া। এবার আরএসএস প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখপাধ্যায়ের ১১৮ তম জন্মদিন পালনকে কেন্দ্র করে যুযুধান দুই দলের ঝগড়া বেঁধে গেল আবার। শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের জন্মদিন পালনের জন্যে নব উদ্যোমে প্রস্তুতি নিয়েছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। রাজনৈতিক মহলের মতে,এই প্রস্তুতির কারণ মূলত গেরুয়া শিবিরকে টেক্কা দেওয়ার প্রচেষ্টা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুদিনে তাঁকে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানানোকে কেন্দ্র করে বিজেপি-র সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেস সমানে সমানে লড়াই জারি রেখেছিল। এদিন শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের জন্মদিনেও তার অন্যথা হলো না। সরকারিভাবে রেড রোডে ময়দান টেন্টের সামনে এবং নবান্নে শ্যামাপ্রসাদের মূর্তিতে মাল্যদান করে পালিত হয় তার জন্মদিন। একই সঙ্গে বিধানসভাতেও সাড়ম্বরে পালিত হয়েছে শ্যামাপ্রসাদের জন্মজয়ন্তী। অন্যদিকে বিজেপি দলের পক্ষ থেকে শ্যামাপ্রসাদের জন্মদিন পালনের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়কে। এই অনুষ্ঠাণের প্রস্তুতি থাকলেও শেষ মুহূর্তে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তি ছাড়া শ্যামাপ্রসাদের জন্মদিবস পালনের অনুষ্ঠানে বহিরাগতদের ক্যাম্পাসে ঢুকতে দেওয়া হবে না। ঘটনায় ক্ষুব্ধ সরকারি কর্মচারী পরিষদের আহ্বায়ক দেবাশিস শীল বললেন, “সম্পূর্ণ রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ” তাঁর মতে, এই জায়গায় তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক নেতা অতীতে বহু অনুষ্ঠান করেছেন। তখন আপত্তি তোলা হয়নি। তিনি মনে করেন, বিজেপির অনুষ্ঠানকে পণ্ড করতেই রাজ্য সরকারের এই অতি সক্রিয়তা। গেরুয়া শিবিরের মতে, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ওই পদে বসার শিক্ষাগত যোগ্যতাই নেই, যিনি মুখ্যমন্ত্রীকে খুশি করতে ডিলিট উপহার দেন, তাঁর থেকে আর কী আশা করা যায়!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!