এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিজেপি সাংসদদের পদত্যাগে বিধায়ক শূন্য দিনহাটা-শান্তিপুর! স্থানীয়দের কষ্টের দিনের শুরু?

বিজেপি সাংসদদের পদত্যাগে বিধায়ক শূন্য দিনহাটা-শান্তিপুর! স্থানীয়দের কষ্টের দিনের শুরু?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির পক্ষ থেকে অনেক সাংসদকে বিধানসভার প্রার্থী করা হয়েছিল। যার মধ্যে বেশিরভাগ সাংসদ বিধানসভার প্রার্থী হয়ে পরাজিত হলেও জয়লাভ করেছেন কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামানিক এবং গেরুয়া শিবিরের এক সাংসদ জগন্নাথ সরকার। একজনকে বিজেপি দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী করেছিল এবং অন্যজনকে প্রার্থী করা হয়েছিল শান্তিপুরে। কিন্তু বিজেপির টিকিটে তারা জয়লাভ করলেও, এখন তারা বিধায়ক পদে ইস্তফা দিয়ে আবার সাংসদ পদে থাকার কথা জানিয়ে দিয়েছেন।

আর এই পরিস্থিতিতে তারা যে এলাকার হয়ে লড়াই করেছেন, সেখানকার মানুষ অনেক কষ্ট করে ভোট দিলেও, তারা কেন তার মর্যাদা দিলেন না! এখন তা নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। আর এই পরিস্থিতিতে দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির নিশীথ প্রামানিক জয়লাভ করলেও, যেভাবে তিনি বিধায়ক পদ ইস্তফা দিয়ে সাংসদ পদে থাকার কথা জানিয়ে দিয়েছেন। তাতে তার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন এখানকার প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ।

স্বাভাবিক ভাবেই এই গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর মধ্যেও নানা প্রশ্ন তৈরি হয়েছে। একাংশ বলেছেন, সত্যিই তো তাই! যদি সাংসদ পদেই থাকতে হতো নিশীথ প্রামাণিক এবং জগন্নাথ সরকারকে, তাহলে তারা কেন বিধায়ক পদের জন্য লড়াই করলেন! এক্ষেত্রে সাধারণ মানুষ অনেক কষ্ট করে তাদেরকে সমর্থন করলেও, তারা আবার সেই পদে ইস্তফা দিয়ে কেন সাংসদ পদে ফিরে যাচ্ছেন? এক্ষেত্রে কি সাধারণ মানুষের রায়কে তারা অমর্যাদা করলেন না? এখন তা নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রে এবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে। শেষ পর্যন্ত 57 ভোটে তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহকে পেছনে ফেলে জয়লাভ করেছেন বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামানিক। কিন্তু বুধবার আবার সাংসদ পদে থাকার কথা জানিয়ে দিয়েছেন নিশীথবাবু। আর তারপরই তার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন এখানকার প্রাক্তন বিধায়ক তথা এবারের নির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে দাঁড়ানো পরাজিত উদয়ন গুহ।

তিনি বলেন, “আমরা তো বলেছিলাম, যদি ও জয়লাভ করে তাহলে হয় বিধানসভা, না হলে লোকসভা, যে কোনো একটা নির্বাচন হবেই। আমাদের হয়ত ব্যর্থতা যে, আমরা মানুষকে এটা ঠিক মত বোঝাতে পারিনি। বাস্তবে তো সেই ঘটনাই ঘটল। এবার জনগণ বিচার করবে। ও দাঁড়ালোই বা কেন! আর ফল ঘোষণার 10 দিনের মাথায় পদত্যাগই বা করল কেন? কিসের জন্য পদত্যাগ করল জানি না।”

অর্থাৎ বিধায়ক হিসেবে জয়লাভ করলেও, যেভাবে মানুষের রায়কে খন্ডন করে আবার বিধায়ক পদে ইস্তফা দিলেন নিশীথ প্রামানিক, তাতে তার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন এখানকার প্রাক্তন বিধায়ক উদযন গুহ। অর্থাৎ এই বিষয়কে সামনে রেখে এবার যে পরবর্তী উপ-নির্বাচনের জন্য বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হবে তৃণমূল কংগ্রেস, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দীর্ঘদিন ফরওয়ার্ড ব্লকের নেতা ছিলেন উদয়ন গুহ। কিন্তু বেশ কিছুদিন আগে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। তার পরবর্তীতে এবারের নির্বাচনে তৃণমূলের পক্ষ থেকে তাকে এই দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী করা হয়েছিল। কিন্তু কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক বিধায়ক পদের দাবিদার হিসেবে বিজেপির টিকিটে লড়াই করেন। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি জয়লাভ করলেও, বিধায়ক পদ ছেড়ে দেওয়ার কথা শোনা যায়। আর এরপরই গোটা ঘটনা নিয়ে সরব হতে শুরু করেন এখানকার পরাজিত প্রার্থী তথা প্রাক্তন বিধায়ক উদয়ন গুহ।

তাহলে কেন নিশীথ প্রামানিক বিধায়ক পদে দাঁড়ালেন! আর কেনই বা মানুষের রায়কে অপমান করলেন! এখন তা নিয়েই প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। যার ফলে ভারতীয় জনতা পার্টি অনেকটাই অস্বস্তিতে পড়ে গেল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!