এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিজেপি সাংসদের সঙ্গে বৈঠকে বসার ইচ্ছা প্রকাশ মেয়রের, জল্পনা চরমে

বিজেপি সাংসদের সঙ্গে বৈঠকে বসার ইচ্ছা প্রকাশ মেয়রের, জল্পনা চরমে



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গত লোকসভা ভোটে সিপিএমের ভোট বিজেপির দিকে গিয়েছে বলে অভিযোগ করে তৃণমূল কংগ্রেস। এক্ষেত্রে সিপিএম-বিজেপি সমঝোতার অভিযোগ বারেবারেই শোনা যায় শাসক দলের নেতাদের গলায়। আর এবার বিধানসভা নির্বাচনের যখন আর কয়েক মাস বাকি, ঠিক তখনই শিলিগুড়ি পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র তথা বর্তমান প্রশাসক মন্ডলীর চেয়ারম্যান সিপিএমের অশোক ভট্টাচার্য আলোচনায় বসতে চাইলেন জলপাইগুড়ির বিজেপি সাংসদ জয়ন্ত রায়ের সঙ্গে।

স্বভাবতই সিপিএমের নেতার বিজেপি নেতার সঙ্গে এই বৈঠকে বসতে চাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এবার ব্যাপক জল্পনা তৈরি হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। জানা গেছে, শিলিগুড়ি পৌরসভার 47 টি ওয়ার্ডের মধ্যে 14 টি ওয়ার্ড জলপাইগুড়ি জেলার অন্তর্গত। সেদিক থেকে জলপাইগুড়ি লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ জয়ন্ত রায়। তাই জয়ন্তবাবুর সঙ্গে সেই এলাকার উন্নয়নের জন্য এবার আলোচনায় বসার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন শিলিগুড়ি পৌরসভার সিপিএমের প্রাক্তন মেয়র তথা বর্তমান প্রশাসক মন্ডলীর চেয়ারম্যান অশোক ভট্টাচার্য।

এদিন এই প্রসঙ্গে শিলিগুড়ি পৌরসভার অশোক ভট্টাচার্য বলেন, “আমি বহু আগেই বৈঠকের বিষয়ে জলপাইগুড়ি সাংসদকে বলেছিলাম। তারপর আমাদের মধ্যে ফোনে একাধিকবার কথা হয়েছে। বিভিন্ন বিষয় আলাপ আলোচনা হয়েছে। আমি মনে করি, এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে একটা বৈঠক প্রয়োজন। আশা করব, আমাদের মধ্যে একটা বৈঠক হলে সমন্বয় বাড়বে। কাজের ক্ষেত্রে গতি আসবে। এতে নাগরিক পরিষেবা ত্বরান্বিত হবে।”

কিন্তু অশোকবাবু যে কথা বলেছেন, তাতে কি রাজি হবেন তিনি? এদিন এই প্রসঙ্গে জলপাইগুড়ি বিজেপি সাংসদ জয়ন্ত রায় বলেন, “একসময় অশোকবাবু আমাকে ফোন করে আলোচনায় বসার কথা বলেছিলেন। কিন্তু তারপর আর সেভাবে কোনো সাড়া পাইনি। তবে উন্নয়নের স্বার্থে তার চিন্তাধারাকে আমি কুর্ণিশ জানাচ্ছি। আগামীতে এমন প্রস্তাব এলে স্বাগত জানাব। আমার বৈঠকে বসার ইচ্ছে রয়েছে। অশোকবাবু নয়, তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বের তরফ থেকেও যদি আমাকে কোনো বৈঠকের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়, আমি তাতে সহমত পোষণ করব। উন্নয়নের স্বার্থে আমি সবার ডাকেই সাড়া দেব।”

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর বিরোধী দলের জনপ্রতিনিধি হওয়া সত্ত্বেও যেভাবে সমস্ত রাজনৈতিক মতানৈক্যে ঊর্ধ্বে রেখে দুই নেতা উন্নয়নের স্বার্থে বৈঠক করার কথা বললেন, তাতে রাজনৈতিক মহলে আশার আলো তৈরি হয়েছে। অনেকেই বলছেন, রাজনীতি মানুষের জন্য। তাই মানুষের উন্নয়নের সুবিধার্থে বিরোধীদলের জনপ্রতিনিধি হলেও, দুই নেতার এই বৈঠক যদি এলাকার উন্নতির জন্য হয়, তাহলে তা সাধারণ মানুষের কাছে বড় খুশির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

কেননা বিভিন্ন সময় দেখা যায়, বিরোধীদলের জনপ্রতিনিধিদের এলাকায় উন্নয়নের আলো পৌঁছায় না। সেক্ষেত্রে নানা সময়ে রাজনৈতিক তরজার সৃষ্টি হয়। কিন্তু সিপিএমের প্রাক্তন মেয়র তথা বর্তমান প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান যেভাবে বিজেপি সাংসদের এলাকায় উন্নয়নের জন্য আলোচনায় বসার আহ্বান জানালেন, তাতে নানা মহলে খুশির আবহ তৈরি হয়েছে। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!