এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বিজেপিতে যেতে না যেতেই গুরুত্বপূর্ণ পদ, প্রভাব বাড়ল শুভেন্দুর, চাপে তৃণমূল!

বিজেপিতে যেতে না যেতেই গুরুত্বপূর্ণ পদ, প্রভাব বাড়ল শুভেন্দুর, চাপে তৃণমূল!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –তৃনমূলে থাকার সময় মন্ত্রী সহ একাধিক প্রশাসনিক এবং দলীয় দায়িত্বে থাকতে দেখা গেছে তাকে। কিন্তু তৃনমূল ছাড়ার পর শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীরা দাবি করেছিলেন, দাদা তৃনমূলে প্রকৃত সম্মান পাননি। কিন্তু তৃনমূলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, এবার দেখা যাবে উনি কত সম্মান পান। কিন্তু এবার সেই তৃনমূল কংগ্রেসকে ব্যাপক চাপে ফেলে দিয়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার 18 দিনের মধ্যেই গুরুত্বপূর্ণ পদ পেলেন শুভেন্দু অধিকারী।

স্বভাবতই লোকসভা নির্বাচনের আগে এবং পরে অনেকেই তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু সেরকম ভাবে দায়িত্ব না পাওয়ায় অনেকেরই মোহভঙ্গ হতে শুরু করেছিল। সেদিক থেকে শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সাথে সাথেই এভাবে তার গুরুত্বপূর্ণ পদ পাওয়া নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মত রাজনৈতিক মহলের।

একাংশ বলতে শুরু করেছেন, শুভেন্দু অধিকারীকে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে গুরুত্বপূর্ণ পদ দিয়ে বুঝিয়ে দেওয়া হল, তৃনমূলকে চাপে ফেলতে তিনিই হতে চলেছেন তুরুপের তাস। জানা গেছে, জুট কর্পোরেশন ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান করা হয়েছে এই শুভেন্দু অধিকারীকে। সামনেই 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় তৃনমূল এমনিতেই বড় ভাঙ্গনের আশঙ্কা করছে। আর তার মাঝেই এত বড় পদে শুভেন্দু অধিকারীর দায়িত্ব বাংলার শাসকদলের নেতাদের শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কে করা বক্তব্যকে প্রশ্নের মুখে ফেলে দিল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বলা বাহুল্য, মুকুল রায়কে চানক্য বলা হলেও বিজেপিতে এসে সাড়ে তিন বছর অপেক্ষা করতে হয়েছে তাকে। তারপর কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি হয়েছেন তিনি। সেদিক থেকে শুভেন্দু অধিকারীর এই গুরুত্বপূর্ণ জায়গা পেয়ে যাওয়াতেই পরিস্কার, আগামীদিনে তৃনমূলকে সরাতে বিজেপির মুখ মেদিনীপুরের শান্তিকুঞ্জের মেজো ছেলে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পরিস্থিতি তৃনমূলের পক্ষে রয়েছে, এমনটা কোনোভাবেই বলা যাবে না। কেননা শুভেন্দু অধিকারী দলত্যাগ করার সাথে সাথেই নানা তৃনমূল নেতারা বেসুরো মন্তব্য করতে শুরু করেছেন।

আর এই পরিস্থিতিতে সেই শুভেন্দু অধিকারীকে মহা দায়িত্ব দিয়ে বিজেপি তৃনমূলের বিদ্রোহী নেতাদের কাছে টানার বার্তা দিল বলেই দাবি একাংশের। কেননা বিজেপিতে গেলে দীর্ঘদিন বসে থাকতে হয়, এমন অভিযোগ উঠতে শুরু করেছিল। কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী দলে যোগ দেওয়ার কয়েক দিনের মধ্যেই তাকে বড় দায়িত্ব দিয়ে সেই ভুল ভাঙিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করল ভারতীয় জনতা পার্টি বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!