এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপির শক্ত ঘাঁটিতে গিয়ে মমতার হুঙ্কার, বিপ্লবের অস্বস্তি বাড়িয়ে আস্থা অর্পিতাতেই!

বিজেপির শক্ত ঘাঁটিতে গিয়ে মমতার হুঙ্কার, বিপ্লবের অস্বস্তি বাড়িয়ে আস্থা অর্পিতাতেই!



একসময় সবাই বলত, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় শেষ কথা বলেন বিপ্লব মিত্র। তবে এখন সেই সমস্ত কিছু অতীত। গত লোকসভা নির্বাচনে অর্পিতা ঘোষ তৃণমূলের প্রার্থী হওয়ার পর তার চরম বিরোধিতা করতে দেখা যায় তৎকালীন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি বিপ্লব মিত্রকে। যদিও বা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বালুরঘাটের বিদায়ী সাংসদ অর্পিতা ঘোষের উপরেই ভরসা রেখে তাকে প্রার্থী করেন। কিন্তু নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর বিজেপির সুকান্ত মজুমদারের কাছে পরাজিত হন অর্পিতা ঘোষ। আর এরপরই বিপ্লববাবু এবং তার অনুগামীদের অভিযোগ উঠতে শুরু করে।

অনেকেই দাবি করেন, বিপ্লব মিত্র এবং তার অনুগামীরা অর্পিতা ঘোষকে হারানোর পেছনে চক্রান্ত করেছেন। যার জেরে জেলা সভাপতি পদ থেকে বিপ্লব মিত্রকে সরিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই পদে তিনি বসিয়ে দেন পরাজিত প্রার্থী অর্পিতা ঘোষকে। এদিকে এই ঘটনার পরেই অপমানিত হয়ে দিল্লিতে গিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেন বিপ্লব মিত্র। অনেকেই আঁচ করেছিলেন, এককালে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় তৃণমূলকে প্রতিষ্ঠা করা বিপ্লব মিত্র বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর তিনি তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে দেবেন। কিন্তু যত দিন গেছে, ততই ব্যাকফুটে চলে গেছেন তিনি। সম্প্রতি বিপ্লব মিত্রের তৃণমূল ফিরে আসার তীব্র জল্পনা তৈরি হয়েছিল। যাকে কেন্দ্র করে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকদের মনে ছিল সংশয়। অনেকেই বিপ্লব মিত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করতে শুরু করেছিলেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

 

 

কেননা বিপ্লববাবু দল ছেড়ে দিলেও, তার অনেক অনুগামীরা এখনও তৃণমূল কংগ্রেসের রয়েছেন। ফলে তারা আশায় দিন বাধছিলেন। অনেকে এটাও ভেবে নিয়েছিলেন যে, বুধবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুনিয়াদপুরের সভায় আসছেন। আর তখনই সেই সভা থেকে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করবেন বিজেপি নেতা বিপ্লব মিত্র। কিন্তু বরাবরই জল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী অর্পিতা ঘোষ। আর এবার অর্পিতা ঘোষের সুরেই সুর মিলিয়ে বুনিয়াদপুরের সভা থেকে নাম না করে বিপ্লব মিত্রকে কটাক্ষ করে সেই অর্পিতা ঘোষের ওপরেই আস্থা রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সূত্রের খবর বুধবার বুনিয়াদপুর এর ফুটবল মাঠে প্রকাশ্য কর্মীসভা থেকে অর্পিতা ঘোষের ভূয়সী প্রশংসা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “জেলায় অর্পিতা যেভাবে আপনাদের জন্য সময় দিয়েছে, তা আর অন্য কেউ দেয়নি। জেলায় কাজ করার সময় ওর দুর্ঘটনা ঘটেছিল। শরীরের হাড়গোড় ভেঙে পড়েছিল। ভাবতেই পারিনি, অর্পিতা উঠে দাঁড়াবে। সেভাবে আপনাদের কাছে কিছু পায়নি। ওকেই দায়িত্ব দিয়েছি। তুমি এখানে দলকে শক্তিশালী করো।”

আর এরপরই নাম না করে প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা বর্তমান বিজেপি নেতা বিপ্লব মিত্রকে বুনিয়াদপুরের সভা থেকে কটাক্ষ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “যারা মুখোশধারী হয়ে বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক রেখে অর্পিতাকে বেকায়দায় ফেলে দিয়ে হারিয়ে দিয়েছিলেন, তারা বিজেপিতে গিয়েছেন। তাই অর্পিতাকেই এই জেলার দায়িত্ব দিয়েছি।”

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সম্প্রতি বিপ্লব মিত্রের আবার তৃণমূলে ফেরা নিয়ে নানা জল্পনা তৈরি হয়েছিল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায়। তবে প্রথম থেকেই জেলায় তৃণমূল কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ রুপ ভাঙতে এই অপপ্রচার কেউ বা কারা চালাচ্ছে বলে দাবি করেছিলেন অর্পিতাদেবী। কিন্তু তারপরও সংশয় অব্যাহত ছিল। তবে এই ব্যাপারে শেষ পর্যন্ত বুনিয়াদপুরের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি বলেন, তার দিকে নজর ছিল প্রত্যেকেরই। আর সেই মতই অর্পিতা ঘোষের কথা তুলে ধরে তার ওপরে আস্থা রেখে বিপ্লবের তৃণমূলে ফেরার জল্পনাতে পুরোপুরি জল ঢেলে দিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেই মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!