এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > ফের বিজেপির ঘর ভাঙ্গলো তৃণমূল, বড়সড় যোগদান বিজেপির হেভিওয়েটদের!

ফের বিজেপির ঘর ভাঙ্গলো তৃণমূল, বড়সড় যোগদান বিজেপির হেভিওয়েটদের!



 

লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গে ভারতীয় জনতা পার্টি অত্যন্ত ভালো ফল করেছিল। উত্তরবঙ্গের আটটি আসনের মধ্যে বিজেপি দখল করেছিল সাতটি লোকসভা আসন। আর তারপর যত দিন গিয়েছে, ততই বিজেপির প্রভাব উত্তরবঙ্গে বাড়তে শুরু করেছিল। তবে সাম্প্রতিককালে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন লাগুর ফলে তৃণমূলের বিরোধী প্রচারে কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে চলে গিয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টি।

কিন্তু উত্তরবঙ্গের অঘোষিত রাজধানী বলে পরিচিত শিলিগুড়িতে তৃণমূলের দীর্ঘদিনের নেতা জয়দীপ নন্দীকে নিজেদের দলে যোগদান করিয়ে পাল্টা তৃণমূলের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিল গেরুয়া শিবির। যার ফলে অনেকে ভেবেছিল, উত্তরবঙ্গ বিজেপির দখলেই রয়েছে। কিন্তু এবার অনেকের সেই দাবিকে মিথ্যে করে দিয়ে উত্তরবঙ্গে ভারতীয় জনতা পার্টির ঘরে ব্যাপক ভাবে থাবা বসাল তৃণমূল কংগ্রেস।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, এবার উত্তরবঙ্গের কুমারগ্রামের কামাখ্যাগুড়ির বাম্বু কাটিং লেবার ইউনিয়নের সদস্যরা এবার বিজেপি ছেড়ে যোগ দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসে। জানা গেছে, এদিন এই সংগঠনের প্রায় 42 জন সদস্য ঘাসফুল শিবিরে নাম লেখান। আর উত্তরবঙ্গে বিজেপির এহেন বিপর্যয়ে, এখন কিছুটা হলেও কোণঠাসা ভারতীয় জনতা পার্টি।

এদিন এই বিজেপি থেকে আসা সদস্যদের নিজেদের দলে যোগদান করিয়ে কামাখ্যাগুড়ি 2 তৃণমূলের চেয়ারম্যান অনিরুদ্ধ বিশ্বাস বলেন, “বাম্বু কাটিং শ্রমিক ইউনিয়ন আগে আমাদের শ্রমিক ইউনিয়নের অধীনে ছিল। লোকসভা ভোটের পর বিজেপি জোর করে ওই ইউনিয়নটি নিজেদের দখলে নিয়েছিল। ইচ্ছা না থাকলেও ইউনিয়নের সদস্যরা যেতে বাধ্য হয়েছিলেন। এখন তারা আবার আমাদের শ্রমিক সংগঠনে ফিরে এলেন।” কিন্তু এর ফলে কি তাদের সংগঠন কোণঠাসা হয়ে যাবে না! কেন তারা নিজেদের সদস্যদের নিজেদের দিকে রাখতে পারল না!

এদিন এই প্রসঙ্গে কুমারগ্রাম ব্লক বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি বিপ্লব দাস বলেন, “তৃণমূল কংগ্রেস ভয় দেখিয়ে ওদের নিজেদের দলে টেনেছে।” সত্যিই কি তাই! তাহলে কি শাসকের ভয়ের ফলে তারা শিবির বদলালেন! এদিন এই ব্যাপারে দলবদলকারী কামাখ্যাগুড়ি বাম্বু কাটিং ইউনিয়নের সম্পাদক পূর্নেশ্বর বর্মন বলেন, “আমরা স্বেচ্ছায় তৃণমূলের শ্রমিক ইউনিয়নে ফিরে এসেছি।” সব মিলিয়ে এবার উত্তরবঙ্গে ব্যাপক সদস্যের তৃণমূলে যোগদানের ফলে, বিজেপি কিছুটা হলেও কোণঠাসা হয়ে গেল বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!