এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > বিজেপি নেতা খুনে গ্রেপ্তার ৬, ১২ ঘন্টার বনধে রাস্তায় জ্বলল আগুন! অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি খানাকুলে

বিজেপি নেতা খুনে গ্রেপ্তার ৬, ১২ ঘন্টার বনধে রাস্তায় জ্বলল আগুন! অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি খানাকুলে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – পশ্চিমবঙ্গে আগামী বিধানসভা নির্বাচনের লড়াইটি মূলত শাসকদল তৃণমূল ও বিরোধী দল বিজেপির লড়াইয়ে পরিণত হয়েছে বলেই অনেকেই মনে করে থাকেন। এই পরিস্থিতিতে এই দুই দলের মধ্যে হাতাহাতি, মারামারি, খুনোখুনি এসব যেন রোজকার বিষয় হয়ে উঠেছে।

গতকাল শনিবার স্বাধীনতা দিবসের পতাকা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে হুগলী জেলার খানাকুল অঞ্চলে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে ব্যাপক রাজনৈতিক সংঘর্ষ শুরু হয়। তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিজেপি অভিযোগ করেছে, এই সংঘর্ষে বিজেপি নেতা সুদর্শন প্রামাণিককে কুপিয়ে হত্যা করেছে তৃণমূল।

স্থানীয় সংবাদ সূত্র অনুযায়ী, গতকাল শনিবার হুগলী জেলার খানাকুল অঞ্চলে স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে শুরু হয় বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে ব্যাপক রাজনৈতিক সংঘর্ষ। মারামারি চলাকালীন হুগলি জেলার খানাকুল দু’নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার জেলা পরিষদের সদস্য ও জনৈক বিজেপি নেতা সুদর্শন প্রামাণিককে কুপিয়ে খুন তৃণমূলের কিছু সদস্য।

এই খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত ১৫ জন সদস্যের বিরুদ্ধে থানায় এফআইআর করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল এলাকার পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ হয়ে ওঠে যে, শেষ পর্যন্ত পুলিশ এই খুনের ঘটনাটির দ্রুত তদন্তে শুরু করে দিতে বাধ্য হয়। গতকাল শনিবার রাত থেকে আজ সকাল পর্যন্ত এই খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত মোট ৬ জন তৃনমূল সদস্যকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বাদবাকি ৯ জন অভিযুক্ত সদস্যদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে বিজেপির পক্ষ থেকে পুলিশকে ২৪ ঘন্টার সময়সীমা দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে বিজেপি নেতা সুদর্শন প্রামাণিককে নিষ্ঠূুরভাবে হত্যা করার অপরাধে আজ রবিবার সমগ্র খানাকুল এলাকায় ১২ ঘন্টা বন্ধের ডাক দিয়েছে জেলা বিজেপি। সুদর্শন বাবুকে কুপিয়ে খুনের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইট করেছেন হুগলি লোকসভার বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত, খানাকুল অঞ্চলে বিজেপির ডাকা বন্ধের কারণে, আজ সকাল থেকে থমথমে ও প্রায় জনপ্রাণী হীন অবস্থায় সমগ্র খানাকুল এলাকাটি। এলাকায় হাট, বাজার, দোকান সমস্ত কিছুই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পথে যানবাহনও তেমন একটা চোখে পড়ছে না।

কিন্তু এই থমথমে পরিবেশের মাঝেও বিজেপির বেশকিছু কর্মী-সমর্থক পথে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। আজ সকাল থেকেই লতিফপুর গ্রামের প্রবেশপথ টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করেন করেন বিজেপি সমর্থকেরা। সেইসঙ্গে একনাগাড়ে চলে বিক্ষভ ও স্লোগান। অবরোধের এই সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ও স্থানটিকে অবরোধমুক্ত করে।

এভাবে খানাকুল অঞ্চলে বিজেপির ডাকা বন্ধ যথেষ্টভাবে সফল হবার পরেও বিজেপি কর্মীরা রাস্তায় নেমে কেন পথ অবরোধ করতে গেলেন, সেই বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে । রাজনৈতিক মহলের একাংশের মনে করছেন, গায়ের জোরে খানাকুল ব্লকে বন্ধ করতে গিয়েই বিজেপি সদস্যরা টায়ার জ্বালিয়ে ভীত করতে চেয়েছিল স্থানীয় মানুষদের।

তবে, হুগলি জেলা বিজেপি সদস্যরা এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন যে, সুদর্শন প্রামাণিককে খুনের অভিযোগে অভিযুক্তদের সকলকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশকে তাঁরা ২৪ ঘন্টার সময় দিয়েছেন। তার মধ্যে যদি পুলিশে অভিযুক্তদের গ্রেফতার না করে তাহলে তাঁরা আরও বড় আন্দোলনে নামতে চলেছেন বলে পুলিশকে ইতিমধ্যেই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!