এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > বিজেপির হোডিং খুলে দিল পৌরসভা, সরব গেরুয়া শিবির

বিজেপির হোডিং খুলে দিল পৌরসভা, সরব গেরুয়া শিবির



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্য জুড়ে শুরু হয়েছে বিজেপির পরিবর্তন যাত্রা। কিন্তু সেই পরিবর্তন যাত্রায় বাধাদানের অভিযোগে বারবার তোলা হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষ থেকে। আর এবার বেআইনিভাবে পরিবর্তন যাত্রার হোডিং লাগানো হয়েছে, এই অভিযোগ তুলে সেই হোর্ডিং খুলে দিল বাঁকুড়া পৌরসভা। যে ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে এলাকা জুড়ে। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এবার রাজনৈতিক তরজা চরম আকার ধারণ করেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজ বাঁকুড়া শহরের বিজেপির এই পরিবর্তন যাত্রা আসার কথা ছিল। সেই মতো বাঁকুড়া শহরের একাধিক জায়গায় বিজেপির পক্ষ থেকে হোর্ডিং লাগানো হয়েছিল। কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে আজ সকাল থেকেই বাড়িতে লাগানো বিজেপির ফ্লেক্স খুলে দিতে দেখা যায় বাঁকুড়া পৌরসভাকে। যেখানে হোর্ডিংগুলো খুলে ফেলে দেন বাঁকুড়া পৌরসভার প্রশাসকদের অন্যতম সদস্য দিলীপ আগরওয়ালা। আর এরপরই পৌরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়, পৌর নিয়ম অনুযায়ী শহরে হোর্ডিং রাখার জন্য পৌরসভার অনুমতি নিতে হয়। কিন্তু সেই সব কিছুর তোয়াক্কা না করে বিজেপির পক্ষ থেকে তা লাগানো হয়েছিল। তাই সেগুলোকে খুলে ফেলা হয়েছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

স্বাভাবিকভাবেই পৌরসভার পক্ষ থেকে এই ধরনের আচরণ সামনে আসায় এখন রীতিমত সরব হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। ইতিমধ্যেই এই ব্যাপারে তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসাপরায়ণ আচরণের অভিযোগ তুলেছে গেরুয়া শিবির।এদিন এই প্রসঙ্গে বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার বলেন, “তৃণমূল ভয় পেয়েছে। রাজনৈতিকভাবে বিজেপিকে মোকাবিলা করতে পারছে না। তাই ভয় পেয়ে তৃণমূল পরিচালিত বাঁকুড়া পৌরসভা এই কাজ করেছে।”

বিশ্লেষকরা বলছেন, গত নির্বাচনের সময় এগিয়ে আসছে, ততই এই ধরনের ঘটনা ঘটতে শুরু করেছে। রাজ্যে বিজেপির পক্ষ থেকে তৃণমূল পরিচালিত প্রশাসনের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসাপরায়ণ আচরণের অভিযোগ করা হচ্ছে। আর এবার বাঁকুড়াতে বিজেপির পক্ষ থেকে হোর্ডিং লাগানো হলেও, যেভাবে তা খুলে ফেলার অভিযোগ উঠল তৃণমূল পরিচালিত বাঁকুড়া পৌরসভার বিরুদ্ধে, তাতে রাজনৈতিক তরজা এখানে আরও বৃদ্ধি পাবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!