এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > অশান্তি বাড়ছে গেরুয়া সংসারে! হেভিওয়েট নেতার বাড়ির সামনে বিক্ষুব্ধ কর্মীদের প্রতিবাদের ঢেউ!

অশান্তি বাড়ছে গেরুয়া সংসারে! হেভিওয়েট নেতার বাড়ির সামনে বিক্ষুব্ধ কর্মীদের প্রতিবাদের ঢেউ!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বর্তমান সময়ে বিজেপির ঐক্যবদ্ধ হয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াই করা উচিত। বিজেপির কেন্দ্রীয় থেকে রাজ্য নেতারা অন্তত তাই চাইছেন। কেননা তাদের টার্গেট 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের ক্ষমতা দখল। কিন্তু এই ক্ষমতা দখল করতে গেলে দলের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে। সত্যিই কি তাই হচ্ছে! বাস্তব কিন্তু অন্য কথা বলছে। বিভিন্ন জায়গায় বিজেপির অন্দরে গোষ্ঠী কোন্দল এখন রীতিমত চিন্তা তৈরি করেছে গেরুয়া শিবিরের। 11 দিন আগে যে বিক্ষোভ হয়েছিল, তা মাঝে কিছুটা হলেও স্তব্ধ হয়েছিল। কিন্তু এবার 11 দিন কাটতে না কাটতেই ফের কাটোয়া জেলা বিজেপির সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষের বাড়ির সামনে পতাকা, ফেস্টুন নিয়ে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপির শতাধিক কর্মী সমর্থক। যাকে কেন্দ্র করে তীব্র অস্বস্তিতে পড়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সোমবার দুপুর একটার সময় কাটোয়া 2 ব্লকের গাজিপুর, করজগ্রাম, মন্ডলপাড়া এবং পানুহাট এলাকা থেকে একশোর বেশি বিজেপি নেতা কর্মী কারবালাতলায় কৃষ্ণ ঘোষের বাড়ির সামনে উপস্থিত হয়ে দলের তরফে পাঠানো ত্রাণ এবং টাকা নয়ছয় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলেন। পাশাপাশি জেলা সভাপতির পদ থেকে কৃষ্নবাবুকে সরানোর দাবি জানাতেও দেখা যায় তাদের। তবে বিক্ষোভের সময় কৃষ্ণ ঘোষ বাড়িতে না থাকায়, দুই ঘণ্টা ধরে বিক্ষোভ চলার পর শেষ পর্যন্ত ফিরে যান বিজেপি নেতা কর্মীরা।

এদিন এই প্রসঙ্গে গাজীপুর গ্রামের বিজেপি কর্মী দেবজ্যোতি মণ্ডল বলেন, “করোনা এবং আমপানে ক্ষতিগ্রস্ত দলের গরিব কর্মীদের জন্য রাজ্য দপ্তর থেকে প্রচুর পরিমাণে ত্রাণ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু জেলা সভাপতি ঠিকভাবে তা বিতরণ করেননি। গত লোকসভা ভোটের সময় দলের নানা কর্মসূচিতে পাঠানো লক্ষ লক্ষ টাকা তছরুপ করা হয়েছে। মন্ডল কমিটিতে পুরনো বিজেপি কর্মীদের বসিয়ে তৃণমূল থেকে আসা লোকজনকে জায়গা করে দেওয়া হচ্ছে।” একইভাবে বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা যায় করজগ্রামের বিজেপি কর্মী উৎপল সাতরাকেও।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন তিনি বলেন, “তৃণমূলের কথায় সভাপতি আমাদের নানাভাবে হেয় করে, মিথ্যা অপবাদ দিয়ে দল থেকে বের করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করেন। রাজ্য নেতৃত্বকে আমরা সব অভিযোগ জানিয়েছি।” কিন্তু তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ বিজেপির নেতা কর্মীরা করছে, তা কতটা সত্যি! এদিন এই প্রসঙ্গে গোটা ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে চক্রান্তের অভিযোগ করেন জেলা বিজেপির সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষ। তিনি বলেন, “আমি গৃহসম্পর্ক যাত্রা কর্মসূচিতে রয়েছি। কিছু লোক আমার বাড়ির সামনে গিয়েছেন বলে শুনেছি। দলের তরফে পাঠানো ত্রাণ মন্ডল সভাপতিদের মাধ্যমে স্বচ্ছভাবে বিলি করা হয়েছে। আমি প্রতিটি কর্মীকে সম্মান করি। এরপরেও দলের কারও ক্ষোভ থাকলে তা জানানোর পদ্ধতি রয়েছে। তৃণমূল-সংস্কৃতিতে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখানো ঠিক নয়।”

এদিকে বিজেপি সভাপতির বাড়ির সামনে গিয়ে বিজেপি নেতাকর্মীদের এই বিক্ষোভ তৃণমূলের কাছে বাড়তি উদ্দীপনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন কাটোয়ার তৃণমূল বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “দলের জেলা সভাপতির বাড়ির সামনে গিয়ে বিজেপি কর্মীরা বারবার দুর্নীতির অভিযোগ করছে। আর তাতে আমাদের নামে ভিত্তিহীন অভিযোগ তোলা হচ্ছে। প্রকৃত সত্য কি, মানুষ তা জানেন।”

সব মিলিয়ে এবার কাটোয়ায় জেলা সভাপতির বাড়ির সামনে বিজেপি নেতা কর্মীদের বিক্ষোভ বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্বকে প্রকাশ্যে নিয়ে চলে এল। এখন অবিলম্বে বিজেপি যদি এই গন্ডগোল থামাতে না পারে, তাহলে তাদেরকে ভবিষ্যতে এর চরম ফল পোয়াতে হবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। এখন দলের শৃঙ্খলা ফেরাতে এই ব্যাপারে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব কোনো হস্তক্ষেপ করে কিনা, তার দিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!