এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপি ‘বিপর্যয়ের’ হাত থেকে রক্ষা পেতে পুজোর বাংলায় তৃণমূলের হয়ে নতুন চাল প্রশান্ত কিশোরের?

বিজেপি ‘বিপর্যয়ের’ হাত থেকে রক্ষা পেতে পুজোর বাংলায় তৃণমূলের হয়ে নতুন চাল প্রশান্ত কিশোরের?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – কথায় বলে এভরিথিং ইজ ফেয়ার ইন লাভ এন্ড ওয়ার! আর বিজেপির সঙ্গে আসছে বছর ভোট নিয়ে তৃণমূল যে মোটামুটি একটা যুদ্ধ ঘোষণা করেই দিয়েছে সে কথা বলাই বাহুল্য। তাই সেই পরিস্থিতিতে বিজেপিকে পিছনে ফেলতে তৃণমূল যেন তেন ভাবে যে চেষ্টা চালিয়ে যাবে সে কথা আলাদা করে বলে দিতে হয় না।

আর সেই চেষ্টাতেই যেকোনো পদ্ধতিই যে লড়াইয়ের যোগ্য পথ, সে কথা বলছেন অনেকেই। যদিও বিজেপির মতে, ভোটের লড়াই গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে হওয়া উচিত, তবে সে পথে না গিয়ে বিজেপি নাকি মানুষকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে যা কিনা বস্তুত বিপর্যয়েরই আর একটা রূপ দিচ্ছে বলেই মনে করছেন অনেকে। আর সেই কারণেই মানুষের কোনো গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি বলেই মনে করছেন অনেকে।

আর এই ভাবনা থেকেই তৃণমূল বিজেপির বিরুদ্ধে একটি নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানা গেছে। বিজেপি অতিমারী, এই স্লোগান নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাস্তায় নামার পর সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই বিজেপি অতিমারী, সেই কথাকে কেন্দ্র করে বিজেপিকে বিপর্যয়ের তকমা দিয়ে তৃণমূল নতুন করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্যাম্পেন শুরু করেছে বলে জানা গেছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিরোধীদের দাবি, আনুষ্ঠানিকভাবে “নিজেকে বিজেপির থেকে সুরক্ষিত চিহ্নিত করুন” বা “Mark Yourself Safe from BJP” এই স্লোগানের মাধ্যমে এই কর্মসূচিতে রেজিস্টার করিয়ে প্রাক ভোট জনমত তৈরির চেষ্টা করছে তৃণমূল। আর এই কাজের দায়িত্বে অবশ্যই রয়েছে প্রশান্ত কিশোরের দল আইপ্যাক, সেই কথাই সহজ কল্পনা।

জানা গেছে, এই ক্যাম্পেনের মূল বিষয় হিসেবে উঠে এসেছে, পরিযায়ী শ্রমিক, দলিত নিগ্রহ, দাঙ্গার মত ঘটনা, যাকে কেন্দ্র করে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে চাইছে তৃণমূল। তথ্য সূত্রে জানা গেছে , বস্তুত এতে দু’টো লাভ হবে। প্রথমত, এতে তৃণমূলের বিজেপি বিরোধী একটা মত জানতে সুবিধা হবে। আর দ্বিতীয়ত, কোথাও কেউ বিজেপির হাতে অত্যাচারিত কিনা, সেটাও জানা যাবে।

এর ফলে, প্রশাসনকেও সতর্ক করা যাবে বলে জানা গেছে। আবার সেই ঘটনা মানুষও জানতে পারবে। ফলে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিজেপি বিরোধিতা না করেও বিজেপির বিরুদ্ধে জনমত গঠনে তৃণমূল যে কার্যকরী হবে, সেই কথাই মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে, বিজেপি বিরোধী মতামত প্রকাশ্যে বলতে না পারলেও সেই মত একেবারে রেজিস্টার করিয়ে নেওয়ার সুযোগ রেখেছে হলেই মনে করা হচ্ছে।

তৃণমূল ‘বাংলার গর্ব মমতা’, ‘দিদিকে বলো’ এসব নানা পেজে এই ক্যাম্পেন চালাচ্ছে বলে জানা গেছে। সেখানে পরপর প্রশ্নের জবাব দিয়ে নিজের মত জানিয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া রয়েছে বলে জানান হয়েছে। তবে এটা প্রথম নয়, এর আগেও এই ধরনের ক্যাম্পেন বা রাজনৈতিক উদ্যোগ নেওয়ার নজির রয়েছে বলে জানা গেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!