এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিজেপি ছেড়ে ফের পুরোনো দলে ফিরলেন প্রাক্তন মন্ত্রী, জেনে নিন

বিজেপি ছেড়ে ফের পুরোনো দলে ফিরলেন প্রাক্তন মন্ত্রী, জেনে নিন



পশ্চিমবঙ্গের মত এবার ঘরওয়াপসির খেলা শুরু হল কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে। গত লোকসভা নির্বাচনে নিজের দল জাতীয় কংগ্রেসের ওপর কিছুটা অভিমান করে বিজেপির সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন দিল্লী সরকারের প্রাক্তন মন্ত্রী রাজকুমার চৌহান। তবে লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার বছর ঘুরতে না ঘুরতেই কিছুটা মোহভঙ্গ হয়ে নিজের পুরোনো দল কংগ্রেসেই ফিরে গেলেন ওই প্রাক্তন মন্ত্রী।

বিশেষ সূত্র মারফত পাওয়া খবর অনুযায়ী জানা যাচ্ছে, গত বুধবার কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে তার বাসভবনে দেখা করেন রাজকুমার চৌহান। আর সেখানেই পুনরায় কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন কয়েক দিন আগেই কংগ্রেস ত্যাগী এই প্রাক্তন মন্ত্রী। কিন্তু শুধু সোনিয়া গান্ধীই নয়, তার সাথে এদিন দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতি সুভাষ চোপড়ার সঙ্গেও সৌজন্য সাক্ষাত করতে যান রাজকুমারবাবু।

এদিন পুনরায় কংগ্রেসে ফেরা প্রসঙ্গে রাজকুমার চৌহান বলেন, “সোনিয়াজির অফিস থেকে আমার কাছে একটি কল আসে। তারপরই আজ আমি তার সঙ্গে দেখা করতে আসি। ওই ফোনালাপেই তিনি আমাকে দলের হয়ে কাজ করতে বলেন। তার কথা কেউ ফেরাতে পারেন না। এই দলই আমাকে ছটি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সুযোগ দিয়েছে। পাশাপাশি আমি তিনবার মন্ত্রী হয়েছি।” বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজকুমার চৌহানের রাজনৈতিক ইতিহাস কিন্তু দীর্ঘদিনের। বিগত 1993 সাল থেকে শুরু করে 2013 সাল পর্যন্ত তিনি দিল্লির মঙ্গলপুরী বিধানসভা আসন থেকে পরপর চারবার নির্বাচিত হয়েছিলেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

শুধু তাই নয়, দিল্লিতে যখন কংগ্রেস সরকার ছিল, সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিতের সরকারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকের দায়িত্বে ছিলেন এই রাজকুমার চৌহান। কিন্তু গত লোকসভা নির্বাচনে প্রথমে তার প্রার্থী হওয়ার কথা থাকলেও, উত্তর-পশ্চিম দিল্লির সংসদীয় কেন্দ্র থেকে তার বিকল্পে অন্য প্রার্থী দাঁড় করানোর কথা ঘোষণা করে কংগ্রেস। এতেই দলের উপরে গোসা করে কংগ্রেসের সংসর্গ ত্যাগ করে ভারতীয় জনতা পার্টির মুখে যাত্রা শুরু করেন রাজকুমারবাবু। গত মে মাসে বিজেপির সদস্যতা গ্রহণ করেন তিনি।

কিন্তু মে মাস থেকে শুরু করে 2020 সালের জানুয়ারি পর্যন্ত দিল্লির যমুনা নদীতে অনেক জল বয়ে গেছে। ইতিমধ্যেই নতুন দল ভারতীয় জনতা পার্টির প্রতি মোহভঙ্গ হয়েছে রাজকুমারবাবুর। সেই কারণেই এবার পুরনো দলেই ফিরে আসতে চাইছেন এক সময়কার প্রভাবশালী ওই কংগ্রেস নেতা। কংগ্রেস সূত্রে জানা যাচ্ছে, দু-একদিনের মধ্যেই তাকে দলে ফেরানোর সব ধরনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করা হবে। রাজকুমার চৌহানের তরফ থেকেও দিল্লি বিজেপির সভাপতি মনোজ তিওয়ারিকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এবার দিল্লির বিধানসভা নির্বাচনে তিনি পদ্মফুলের টিকিটে প্রতিদ্বন্দিতা করবেন না।

ওয়াকিবহাল মহল মনে করছেন, এমনিতেই একের পর এক বিধানসভা নির্বাচনে পরাজয়ের মুখ দেখতে হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টিকে। বিজেপির কাছে এখন মুখ রক্ষার লড়াইয়ে দিল্লি বিধানসভা নির্বাচন। কিন্তু সেই নির্বাচনের প্রাকমুহুর্তে রাজকুমার চৌহানের মত গুরুত্বপূর্ণ নেতা ভারতীয় জনতা পার্টি ছেড়ে কংগ্রেসে চলে যাওয়াতে কিছুটা ধাক্কা খেল গেরুয়া শিবির। এখন পরবর্তীতে এই ধাক্কা সামলে নিয়ে নতুন কোনো চমক দেখাতে পারে কিনা বিজেপি! সেদিকেই লক্ষ্য থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!