এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপি ছাড়লেও, বিজেপি কি ছাড়তে চাইছেনা শোভন-বৈশাখীকে? পদত্যাগপত্র গ্রহণ নিয়ে দোলাচল গেরুয়া শিবিরে

বিজেপি ছাড়লেও, বিজেপি কি ছাড়তে চাইছেনা শোভন-বৈশাখীকে? পদত্যাগপত্র গ্রহণ নিয়ে দোলাচল গেরুয়া শিবিরে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর থেকেই দেখা যাচ্ছে গেরুয়া শিবিরে অসন্তোষ মাথাচাড়া দিয়েছে। গত রবিবার তৃতীয় ও চতুর্থ দফা ভোটের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্ব। তারপর থেকেই বিভিন্ন জেলায় শুরু হয়ে যায় রীতিমতো তাণ্ডব। একইসাথে প্রার্থীতালিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে রাতারাতি বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠান বিজেপির শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তাই নিয়ে বঙ্গ রাজনীতি এই মুহূর্তে ব্যাপক সরগরম। কিন্তু এখনো তাঁদের পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়নি বলে জানা যাচ্ছে। প্রসঙ্গত, শোভন-বৈশাখী তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করেছিলেন বহুদিনই হল।

কিন্তু গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েও দীর্ঘদিন তাঁরা নিষ্ক্রিয় হয়ে ছিলেন বিজেপিতে। সবেমাত্র যখন তাঁরা সক্রিয় হতে শুরু করেছিলেন বিধানসভা নির্বাচনের কালে, ঠিক সেইসময় প্রার্থীপদ নিয়ে অসন্তোষের জেরে তাঁরা বিজেপি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু এবার ঘটনায় নতুন মোড়। শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইস্তফাপত্র গৃহীত হবে কিনা তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারলোনা শীর্ষ বিজেপি নেতৃত্ব। রবিবার রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকে যে পদত্যাগপত্র পাঠানো হয়েছিল শোভন-বৈশাখীর তরফ থেকে, সেই পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়েছে কিনা তা সোমবার রাত পর্যন্ত জানা যায়নি। অন্যদিকে সূত্রের খবর, এই মুহুর্তে তৃণমূলে ফেরার কোন কথাই ভাবছেন না শোভন-বৈশাখী।

সেক্ষেত্রে রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, গেরুয়া শিবিরের দরজা খোলা রাখলেন তাঁরা। অন্যদিকে এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, শোভন-বৈশাখীর পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়েছে কিনা তা তাঁর জানা নেই। পাশাপাশি তিনি জানান, গেরুয়া শিবির অর্থাৎ বিজেপি বৃহৎ একটা দল। বড় পরিবার একসঙ্গে থাকলে কিছু সমস্যা হয়, সেক্ষেত্রে মানিয়ে নিয়ে চলতে হয়। প্রসঙ্গত, তৃতীয় এবং চতুর্থ দফার প্রার্থী তালিকায় বেহালা পূর্বের আসনে গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে প্রার্থী করা হয়েছে অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে। আর এই নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, শোভন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে তদ্বির করেছিলেন বেহালা পূর্ব থেকে প্রার্থী টিকিট পাওয়ার জন্য। কিন্তু প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর দেখা যায় শোভনের বদলে বেহালা পূর্বের প্রার্থী করা হয়েছে অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে। প্রসঙ্গত, এবার বেহালা পূর্ব থেকে তৃণমূলের প্রার্থী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়। একই সাথে দেখা গেছে শোভনের পাশাপাশি বৈশাখীকেও প্রার্থী তালিকায় স্থান দেওয়া হয়নি। আর তাই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। তবে জানা গিয়েছে, পদত্যাগপত্র পাঠালেও এই মুহূর্তে তাঁরা অন্য কোথাও যাচ্ছেননা। পাশাপাশি জানা গিয়েছে, গেরুয়া শিবিরের আইটি সেল সোমবারের কর্মসূচির কথা  শোভন বৈশাখীকে জানিয়েছে।

আর সেখান থেকেই গুঞ্জন শুরু হয়েছে শোভন-বৈশাখী হয়তো বিজেপিতে ফিরলেও ফিরে আসতে পারেন। এদিকে গতকাল তৃণমূল থেকে বিধায়ক দেবশ্রী রায় পদত্যাগ করেছেন। সেক্ষেত্রে শোভন-বৈশাখী বিজেপি ছাড়ার সাথে দেবশ্রীর তৃণমূল ছাড়ার যোগসূত্র যোগসূত্র পান অনেকেই। আপাতত যতক্ষণ না শোভন-বৈশাখীর পদত্যাগপত্র গৃহীত হচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত শোভন-বৈশাখীকে নিয়ে বিশেষ কিছুই বলা যাচ্ছেনা বলে দাবি করছেন রাজনৈতিক মহলের অনেকেরই। আপাতত শোভন বৈশাখীকে যে কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে, সোমবার তা তাঁরা পালন করেন কিনা সেটাই দেখার। কারণ তার ওপরই নির্ভর করছে অনেক কিছু।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!