এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিজেপির বিরোধিতায় একসাথে চলতে মমতাকে আহ্বান তেজস্বীর, লাভের লাভ কতটা! শুরু চর্চা

বিজেপির বিরোধিতায় একসাথে চলতে মমতাকে আহ্বান তেজস্বীর, লাভের লাভ কতটা! শুরু চর্চা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিজেপি বিরোধীতাই যে তাদের অন্যতম লক্ষ্য, তা ফের কলকাতায় এসে বুঝিয়ে দিলেন লালু প্রসাদ যাদবের পুত্র তেজস্বী যাদব। পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর ভরসা রেখে তিনিই বিজেপি বিরোধীতার প্রধান মুখ বলে মন্তব্য করতে দেখা গেল তাকে। আর সেই কারণে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে কিছুটা হলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর ভরসা রাখার কথা শোনা গেল তেজস্বী যাদবের গলায়।

সোমবার নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর বাংলায় থাকা সমস্ত বিহারীরা যাতে তৃণমূলকে ভোট দেন, তার জন্য বার্তা দিয়ে দেন তেজস্বী যাদব। পাশাপাশি বিজেপিকে উৎখাত করানোর কথা শোনা যায় তার গলায়। তবে তেজস্বী যাদব এই কথা বললেও, এখন তা নিয়ে শুরু হয়ে গিয়েছে রাজনৈতিক চর্চা।অনেকে বলছেন, বাংলায় বাম- কংগ্রেসের জোটকে উপেক্ষা করে যেভাবে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়ালেন, তাতে বিহার রাজনীতিতে এর প্রভাব পড়তে পারে।

কেননা বিহারে বাম এবং কংগ্রেসের সঙ্গে মহাজোট করেই আরজেডি বিজেপির বিরুদ্ধে সাফল্য পেয়েছিল। সেক্ষেত্রে বাংলায় বাম কংগ্রেস জোট করলেও, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে তার প্রশংসা করতে দেখা গেল তেজস্বী যাদবকে। বিহারে তাদের নীতি এক, কিন্তু বাংলার ক্ষেত্রে তাদের নীতি কেন আরেক! তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারে বাম-কংগ্রেসের মত দলগুলো। একাংশ বলছেন, তেজস্বী যাদব খুব ভালো করেই বুঝতে পেরেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মত বিজেপি বিরোধী মুখকে সামনের সারিতে রাখতে হবে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সেদিক থেকে বাংলায় বাম এবং কংগ্রেসের অবস্থা খুব একটা ভালো নয়। তাই এখানে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করে বিহার ও বাংলায় নিজেদের অস্তিত্ব অটুট রাখতে চাইছেন আরজেডির এই হেভিওয়েট নেতা বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অনেকে বলছেন, তেজস্বী যাদবের এই সিদ্ধান্তের ফলে সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে বিজেপি বিরোধিতার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেকটাই গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠতে শুরু করলেন।

তবে তেজস্বী যাদব বিজেপি বিরোধিতার প্রধান মুখ হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তুলে ধরলেও, বাংলার নির্বাচনে বিজেপিকে কতটা আটকাতে পারেন তৃণমূল নেত্রী, তা অবশ্যই লক্ষণীয় বিষয় সকলের কাছে। তবে অনেকে আবার বলছেন, তেজস্বী যাদব যেভাবে বাম কংগ্রেসকে দূরে ঠেলে দিলেন, তাতে বিহারে আরজেডি সমস্যার মুখে পড়তে পারে। কেননা গত বিধানসভা নির্বাচনে বিহারে এই বাম-কংগ্রেসের সাথে জোট করে বিজেপিকে আটকানোর চেষ্টা করেছিল আরজেডি।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেখানে বিজেপি সাফল্য পেয়ে গিয়েছিল। আর এবার বাংলায় এসে সেভাবে সেই বাম কংগ্রেসের বিরোধী রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেসের পাশে থাকার কথা শোনালেন তেজস্বী যাদব, তাতে বিহারে তাদের রাজনৈতিক সমীকরণে বড়সড় ফাটল ধরার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। স্বাভাবিক ভাবেই নির্বাচনের সময় যত এগিয়ে আসছে, ততই ভিন্ন সমীকরণ তৈরি হতে দেখা যাচ্ছে বাংলায়। সব মিলিয়ে তেজস্বী যাদবের এভাবে তৃণমূলকে সমর্থন এবং বাম-কংগ্রেসকে এড়িয়ে যাওয়া কোন সমীকরণের সৃষ্টি করে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!