এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বিজেপি বাড়ছে হুড়মুড়িয়ে প্রার্থী ঠিক না হলেও ঝুঁকি না নিয়ে এখন থেকেই দেওয়াল লিখন শুরু তৃণমূলের

বিজেপি বাড়ছে হুড়মুড়িয়ে প্রার্থী ঠিক না হলেও ঝুঁকি না নিয়ে এখন থেকেই দেওয়াল লিখন শুরু তৃণমূলের



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – দিনকে দিন বিজেপির উত্থান বাড়তে শুরু করেছে গোটা রাজ্য জুড়ে। তাই এবার বিজেপির সাথেই যে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান লড়াই হবে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত রাজনৈতিক মহল। তবে এখনও পর্যন্ত নির্বাচনের দিনক্ষণ থেকে শুরু করে প্রার্থী ঘোষণা না হলেও, নলহাটিতে নিজেদের প্রস্তুতি শুরু করে দিল তৃণমূল কংগ্রেস।

সূত্রের খবর, এবার নলহাটিতে দেওয়াল দখল করা শুরু করল রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। যেখানে তারা বার্তা দিতে চাইল যে, কোনোভাবেই তারা বিরোধীদের এক ইঞ্চি জমি ছেড়ে দেবে না। স্বাভাবিক ভাবেই শাসক দলের পক্ষ থেকে এখন থেকে এই দেওয়াল লিখনের উদ্যোগ নেওয়ায় নলহাটি এলাকায় নির্বাচনের দামামা বেজে গেল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি এই নলহাটি‌। ইতিমধ্যেই বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল প্রত্যেকটি বিধানসভায় কর্মী সম্মেলনের মধ্য দিয়ে নতুন টিম গঠন করেছেন। যেখানে সেই টিমের দায়িত্ব মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে রাজ্য সরকারের উন্নয়নের কথা তুলে ধরা। তবে নির্বাচনের দিনক্ষণ এখনও পর্যন্ত ঘোষণা না হলেও, এই নলহাটি বিধানসভার বিভিন্ন দেয়াল দখল করে তার নিচে “সাইট ফর টিএমসি” লিখে দিতে শুরু করেছে তৃনমূলের কর্মী-সমর্থকরা।

একাংশ বলছেন, বিজেপির প্রভাব যেভাবে বাড়ছে, তাতে তৃণমূল কংগ্রেস নির্বাচনের আগে যতটা পারা যায়, তাদের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। আর তাই নলহাটি বিধানসভায় তারা এখন থেকেই বিরোধী দল বিজেপিকে চাপে রাখতে দেওয়াল দখল করে আগাম প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দিল। এদিন এই প্রসঙ্গে এক তৃণমূল কর্মী বলেন, “প্রার্থী যেই হোক তিনি তৃণমূল পরিবারের। ভোট হয়তো মে মাসে হবে। তাই আগে থেকে মানুষের চোখে পড়বে, এমন দেওয়ালগুলি সাইট ফর করা হচ্ছে। লোকসভা ভোটের ব্যবধান এবারের বিধানসভা নির্বাচনে ছাপিয়ে যাবে।”


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিকে স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক মইনুদ্দিন সামস বলেন, “আমরা সারা বছর মানুষের পাশে রয়েছি। সামনে নির্বাচন থাকায় জেলা সভাপতির নির্দেশে জোর দেওয়া হয়েছে। এবার বিজেপির সঙ্গে লড়াই হবে। বিধানসভা এলাকার সার্বিক যা গ্রাম উন্নয়ন হয়েছে, তাতে আমাদের দল 40 হাজারের বেশি ভোটে জয়লাভ করবে।” যদিও বা তৃণমূলের পক্ষ থেকে এখন থেকেই দেওয়াল দখল করার ওপর জোর দেওয়া হলেও তাকে খুব একটা গুরুত্ব দিতে চাইছে না ভারতীয় জনতা পার্টি।

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপির জেলা কমিটির সদস্য আনন্দ যাদব বলেন, “ভোটের প্রস্তুতি হিসেবে আমরা বুথে বুথে মিটিং করছি। দেওয়াল দখলের নির্দেশ এখনও আসেনি। তবে শাসকদল যতই দেওয়াল দখল করুক না কেন, ভোটারদের হৃদয়ে রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। এবার এই কেন্দ্রে পদ্মফুল ফুটবে।” তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে দেওয়াল দখল করা হলেও, তাকে খুব একটা গুরুত্ব দিতে চাইছে না ভারতীয় জনতা পার্টি।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপির উত্থানে কিছুটা হলেও চাপে রয়েছে। আর তাই নির্বাচনের দামামা বাজার অনেক আগেই কার্যত দেওয়াল দখল করে এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে শুরু করল ঘাসফুল শিবির। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!