এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > যারা দলে থেকে বিজেপির দালালি করছেন তাদের বন্দুকের জোর দেখানো হবে দাবি তৃণমূল নেতার

যারা দলে থেকে বিজেপির দালালি করছেন তাদের বন্দুকের জোর দেখানো হবে দাবি তৃণমূল নেতার



এবার বিজেপির বিরুদ্ধে সরাসরি গর্জে উঠতে দেখা গেল ক্যানিং ব্লকের বাঁশরা অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেস নেতা মোবারক সর্দরকে। “যাঁরা বিজেপির দালালি করছেন, পাঁচ মিনিটের মধ্যে তাঁদের দেখিয়ে দেব বন্দুকের কী জোর আছে। রাতের অন্ধকারে নিরীহ কর্মীদের উপর অত্যাচার না করে আপনারা দিন ধরুন, পাঁচ মিনিটের মধ্যে যদি আপনাদের ধ্বংস করে দিতে না পারি আমরা, জীবনে তৃণমূল কংগ্রেস করব না।” এদিন এরকম কড়া ভাষাতেই দলের অপর গোষ্ঠীকে সতর্ক করে দিলেন তৃণমূল নেতা। এদিন এলাকায় একটি সভাতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে হুঁসিয়ারী মন্তব্যে মঞ্চ কাঁপালেন তৃণমূল নেতা। সুর চড়া করে বললেন,”যদি মায়ের দুধ খেয়ে থাকেন, নিরীহ কর্মীদের উপর অত্যাচার করবেন না। বন্দুকের জোর হয়েছে? মস্তানগিরি?”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে এলাকার তৃণমূল যুব কংগ্রেস বিজেপির হয়ে দালালি করেছেন,এমনটাই অভিযোগ মোবারক সর্দারের। আর্থিক দিক থেকে চাঙ্গা হয়ে ওঠা দলীয় নেতা কর্মীদের নিশানা করে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন এদিন। বললেন,খাওয়ার টাকা ছিল না যাদের দুদিন আগে,তারা এখন কোটি কোটি টাকার মালিক হলেন কীভাবে? তাদের তো এখন জমি,বাড়ি,গাড়ি কিছুরই অভাব নেই। একথা জানিয়ে,তিনি স্পষ্ট কথায় জানান,দলের মানুষদের সমবেত প্রয়াসে যতদিন পর্যন্ত এসব মস্তান,দালালদের দমন করা না যাবে, ততদিন এই অন্দোলনের রাশ টানা হবে না। এদিনের সভায় মোবারজ সর্দার ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এলাকার বিধায়ক শ্যামল মণ্ডল, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের সহ সভাধিপতি তথা ক্যানিং ১ ব্লক তৃণমূল নেতা শৈবাল লাহিড়ী প্রমুখরা। এছাড়া সভায় তালদি, গোপালপুর ও ইটখোলা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় ১০ জন জয়ী নির্দল সদস্য তৃণমূলে যোগ দেন এদিন।

পিছিয়ে নেই বিজেপিও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নেতার মতে- চোরের মায়ের বড় গলা। আমরা কি করেছি অত্যাচার তো আমাদের উপর হচ্ছে। আমাদের নেতা কর্মীদের কে মারধর করা হচ্ছে। শুধু তাই নয় গোটা রাজ্যে যেখানে যেখানে বিজেপি জিতেছে পঞ্চায়েতে সেই সব জয়ী প্রার্থীদের প্রলোভন দেখিয়ে আর না হলে ভয় দেখিয়ে নিজেদের দলে ভেড়াচ্ছে। আর দোষ হচ্ছে বিজেপির। মানুষ সব দেখছে। এই অত্যাচার বেশিদিন চলবে না। তৃণমূল ২০১৯ এর পর আর থাকবে না।সব মিলিয়ে জমজমাট বঙ্গ রাজনীতি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!