এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > বিজেপির শক্তি বাড়ার কারণ খুঁজে বের করলেন শুভেন্দু অধিকারী

বিজেপির শক্তি বাড়ার কারণ খুঁজে বের করলেন শুভেন্দু অধিকারী



তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীরা এতদিন বলে এসেছেন যে রাজ্যে কোথাও বিজেপি নেই।কিন্তু রাজ্যে ক্রমশ শাক্তিশালী হচ্ছে বিজেপি – একথা মেনে নিলেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী তথা দাপুটে তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারী। শুধু মেনেই নিলেন না কারণও বলে দিলেন। এদিন নন্দীগ্রামের নারায়ণচকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে বিরোধী দলগুলির সম্বদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী তথা বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। এদিন তিনি দাবি করলেন রাজ্যের বাম শরিক দল সিপিএম এবং প্রদেশ কংগ্রেসের যৌথ উদ্যোগেই শক্তিশালী হয়ে উঠছে গেরুয়া শিবির। প্রত্যেক বিরোধী দলের সম্মিলিত অভিপ্রায় এক, তা হলো রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে ক্ষমতাচ্যুত করা। প্রচার মঞ্চ থেকে শুভেন্দুবাবু কার্যত অভিযোগের সুরেই বললেন, সিপিএম, কংগ্রেস, বিজেপি-এই তিন দলই আদর্শহীন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এরা একে অন্যের বিরোধী বললেও তারা প্রত্যেকেই হাত মিলিয়েছে। এছাড়াও তিনি বিরোধীদের বিরুদ্ধে রাজ্যে বিচ্ছিন্ন সন্ত্রাসের ঘটনা পরিচালনা থেকে শুরু করে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় বিঘ্ন ঘটানোর অভিযোগ তুললেন। তিনি বললেন, “পঞ্চায়েত নির্বাচনের সঙ্গে গ্রামের সামাজিক উন্নয়ন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন যুক্ত। গ্রামের সঙ্গে যাঁদের যোগ নেই তাঁরাই ভোট বন্ধের ষড়যন্ত্রে নেমেছেন।” তিনি দাবি করে বললেন, ” সিঙ্গুরে তাপসী মালিকের ধর্ষণ-খুনের পর, নন্দীগ্রামে গণহত্যা আর সব শেষে ২০১১-তে নেতাই গণহত্যা। এরপর থেকে গত সাতবছরে রাজ্যে খুনের রাজনীতি দেখা যায়নি। ফের রাজ্যে খুনের রাজনীতি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে।” ২০১৩ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনের উল্লেখ করে শুভেন্দুবাবু বললেন, “বিরোধীরা ২০১৩ সালের মতোই করতে চাইছে। ২০১৩ সালে তত্‍কালীন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার মীরা পাণ্ডেকে ভুল বুঝিয়েছিল বিরোধীরা, এবারও সেই চেষ্টাই হচ্ছে। ষড়যন্ত্র করে বিরোধীরা ভোট ভেস্তে দিতে চায়।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!