এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিজেপির সদস্য সংখ্যা নিয়ে বিস্ফোরক তথ্য বের হলো-জেনে নিন বিস্তারিত

বিজেপির সদস্য সংখ্যা নিয়ে বিস্ফোরক তথ্য বের হলো-জেনে নিন বিস্তারিত



বিজেপির সদস্য সংখ্যা ১১ কোটি প্রথমদিকে এমনটাই শোনা গিয়েছিল অমিত শাহের মুখে| দলের কার্যকারিণী সভায় বিজেপি সভাপতি বক্তব্য রাখার সময় সেই অমিত শাহই বললেন বর্তমানে বিজেপির সদস্য সংখ্যা ৮ কোটি। তিন বছর আগে যিনি দাবি করেছিলেন ১১কোটি সদস্য সংখ্যার তাহলে আজ ২০১৮এ এসে কি করে কমলো তিন কোটি?

প্রধানমন্ত্রী হবার পর ২০১৪-র নভেম্বর মাসে অনলাইন মেম্বারশিপ ড্রাইভ শুরু করেন মোদিজি। শুধু মাত্র মিসডকল দিলেই নাম লেখানো যেত গেরুয়াতে| এই প্রক্রিয়া শুরুর মাত্র মাস ছয়ের মধ্যেই বিজেপির সদস্য বেড়ে হয় ৮.৮ কোটি। সেই সময় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ নিজে দাবি বলেছিলেন চিনের কমিউনিস্ট পার্টিকে সরিয়ে বিশ্বের বৃহত্তম রাজনৈতিক সংগঠনে পরিণত হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। সেই ঘোষণার দু’মাস পরই দলের সদস্য সংখ্যা বেড়ে ১১ কোটিতে পরিণত হলো। সেই কথাটাও ২০১৫ সালে দাবি করেছিলেন অমিতবাবুই| দলের অন্য নেতারা তো আরেকটু বাড়িয়ে তাকে ১৪ কোটিও করে দিয়েছিল| যেহেতু মিসড কলের মাধ্যমে সংগৃহীত সদস্য তাই অনেক বিরোধী দলেরা বলেছিল এর সাথে বাস্তবের কোনো মিল নেই|

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এখন মনে হয় বিরোধীদের কথাই সত্য প্রমাণিত হলো| কার্যকরিণী সভায় অমিত শাহই জানালেন যে বর্তমানে বিজেপির ৮ কোটি সদস্য। অর্থাত্‍, গেরুয়া শিবিরে ৩ বছরে কমেছে অন্তত ৩ কোটি সদস্য| অনেকের ধারণা অনুযায়ী সেসময় যে ফোন নম্বরগুলি থেকে ফোন করে সদস্য হিসেবে নাম নথিভুক্ত করানো হয়েছিল তাঁর অনেকেরই এখন অস্বিত্ব নেই। সুতরাং সেই সব নম্বর গুলিকে বাদ দিতে হয়েছে| তবে এই ব্যর্থতাকে মানতে নারাজ বিজেপি দপ্তরের কর্মীরা| একটি সর্বভারতীয় ওয়েবসাইটকে তারা জানিয়েছে এবছর দলের সদস্য হিসেবে ১১ কোটি মানুষেরই রেজিস্ট্রেশন হয়েছে। কিন্তু তাঁর মধ্যে ৩ কোটি সদস্যের রেজিস্ট্রেশন এখনও যাচাই করা বাকি। সেকারণেই অমিত শাহ ৮ কোটি সদস্যের কথা উল্লেখ করেছেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!