এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > গেরুয়া শিবিরকে হারিয়ে বড় জয় পেল সিপিআইএম

গেরুয়া শিবিরকে হারিয়ে বড় জয় পেল সিপিআইএম



লাল আবীরে ভাসলো জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের চত্বর। বড় ফারাকে বিজেপিকে হারিয়ে জয় ছিনিয়ে নিল বামেরা। চলতি মাসেরই ১৫ তারিখ যে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে এবিভিপির হামলার শিকার হতে হয়েছিল বামেদের,ঘটনার ১০ দিন পেরোতে না পেরোতেই সেই বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরই ছেয়ে গেল লাল পতাকায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদ নির্বাচনে সভাপতি,সহসভাপতি,সাধারণ সম্পাদক ও যুগ্ম সম্পাদক এই চারটি বড় পদেই জয়ী হলেন বাম জোটের ছাত্ররা।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর থেকে জানা গিয়েছে,অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন( এআইএসএ), স্টুডেন্টস ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া( এসএফআই), ডেমোক্রেটিক স্টুডেন্টস ফেডারেশন( ডিএসএফ) এবং অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস ফেডারেশন( এআইএসএফ) সম্মিলিত বাম জোট গঠন করে এই নির্বাচনে সামিল হয়েছিল। এবিভিপির ললিত পান্ডেকে ১১৭৯ ভোটে হারিয়ে ছাত্র সংসদের সভাপতি পদটি ছিনিয়ে নিয়ে গেছেন বামেদের তরফ থেকে ভোটে দাঁড়ানো এন সাই বালাজি। ললিত পান্ড পেয়েছে ৯৭২ টি ভোট এবং বালাজির ঝুলিতে এসেছিল ২১৫১ টি ভোট।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে ছাত্র সংসদেী সহসভাপতি পদেও ব্যাপক ভোটের ফারাকে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে বামেরা। বামেদরে তরফ থেকে দাঁড়ানো সারিকা চৌধুরী ২৫৯২ পেয়ে ১৫৮৯ টি ভোটে হারিয়েছেন এবিভিপি প্রার্থী গীতা শ্রীকে। ১০১৩ টি ভোট পেয়েছেন গীতা শ্রী। একইভাবে সাধারণ সম্পাদকের পদেও এবিভিপি প্রার্থী গণেশ গুর্জরকে ১১৯১ টি ভোটে হারিয়ে জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন বাম জোটের প্রার্থী আইজাজ আহমেদ। পরাজিত এবিভিপির গনেশ গুর্জর পেয়েছেন ১২৩৫ টি ভোট। যুগ্ম সম্পাদকের পদেও বাম জোটের প্রার্থী অমুথা জয়দীপ ২০৪৭ ভোট পেয়ে হারালেন নিকটতম এবিভিপির বেঙ্কট চৌবে। চৌবে পেয়েছেন ১২৯০ টি ভোট। এদিন ছাত্র সংসদের নির্বাচনে প্রায় ৫ হাজারের মতো ছাত্রছাত্রী ভোট দিয়েছেন। শতাংশের হিসাবে সেটা প্রায় ৬৭.৮। পরিসংখ্যানের হিসাব অনুযায়ী, ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে ভোট পড়েছিল ৫৯.৬ এবং ৫৮.৯%। এ বছর যে ভোট বেশি পড়েছে তা বোঝাই যাচ্ছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

দিন কয়েক আগেই এবিভিপি হামলার কারণে নাঝেহাল অবস্থা হয়েছিল বামেদের। পরিস্থিতি এতোটাই প্রতিকূল হয়ে উঠেছিল যে ১৪ ঘন্টা ভোটগননা বন্ধ করে রাখা হয়েছিল। তারপর এদিন বিকেল থেকে ছাত্রসংসদের ভোট গননা শুরু হওয়ার পর আঁচ পাওয়া গিয়েছিল দেশের অন্যতম সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র সংসদ নির্বাচনের ফলে জয়ের খেতাব কারা ছিনিয়ে নিয়ে যেতে চলেছে। এই জয়কে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে প্রতীকী জয় বলেই ব্যাখ্যা করল বাম ছাত্র জোট। বাম শিক্ষকদের সূত্র থেকে জানা গিয়েছে,বর্তমান উপাচার্য জগদেশ কুমারকে সরানোই তাঁদের লক্ষ্য। তিনি সংঘ ঘনিষ্ট বলেও অভিযোগ রয়েছে। ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী কেন্দ্রের ক্ষমতায় আসার পরই জেএনইউতে নিজেদের ক্ষমতা বাড়াতে সক্রিয় ভূমিকা নেয় আরএসএস ছাত্র সংগঠন এবিভিপি। কিন্তু এবারের ছাত্র সংসদের নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পড়ল তাঁরা। জয়ের উল্লাসে মাতলেন বাম জোটের ছাত্ররা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!