এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিজেপি করতে গেলে দিতে হবে ১৫ – ২০ হাজার টাকা,ফতোয়া জারি তৃণমূলের

বিজেপি করতে গেলে দিতে হবে ১৫ – ২০ হাজার টাকা,ফতোয়া জারি তৃণমূলের



বিজেপি করার অপরাধে শাসকদলের হামলার শিকার হতে হল তৃণমূল কর্মীদেরকে। শুধু তাই নয়,বিজেপি করতে গেলে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের দিতে হবে ১৫ – ২০ হাজার টাকা,এমনটাই ফতোয়া জারি করা হয়েছে। ঘটনার জেরে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে গোঘাটে। ফের একবার শাসকদলের সন্ত্রাসে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হল এলাকায়। এ নিয়ে চাপানউতোর তুঙ্গে রয়েছে রাজনৈতিকমহলে।

রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে জানা গিয়েছে, এদিন গোঘাট ২ নম্বর ব্লকের বদনগঞ্জের ফুলুই এলাকার ৪০ জন তৃণমূল কর্মী গেরুয়া ঝান্ডা তুলে নেওয়াকে কেন্দ্র করেই গন্ডোগোল শুরু হয়েছে। যেখানে বিরোধীরা ঝাঁকে ঝাঁকে এসে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছে, সেখানে শাসকদলেরই সংগঠনকে দূর্বল করতে এভাবে দলীয় কর্মীদের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ঘটনাটা মেনে নিতে পারেনি তৃণমূল এমনটাই জল্পনা।

তাই ওই ঘটনার পর থেকেই বিক্ষুব্ধ হয়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া দলীয় কর্মীদের বেধড়ক মারধোর শুরু করে তৃণমূল মদতপুষ্ট দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনার জেরে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন বাসুদেব নামের বিজেপিতে যোগদান করা এক ব্যক্তি। হাসপাতালের বেডে শুয়েই তিনি অভিযোগ জানিয়ে বললেন,আমরা বিজেপি করি। তাই, তৃণমূলের গুন্ডা বাহিনী বেধড়ক মারধর করে। বলেছে, বিজেপি করতে গেলে ওদের ১৫-২০ হাজার টাকা দিতে হবে।  বিজেপিতে যোগ দেওয়া ছয় জন কর্মীকে মারধোর করেছে তৃণমূল। তিনি সন্ধ্যা বেলা বাড়ি ঢুকতেই তাঁর উপর চড়াও হয় তৃণমূল আশ্রিত গুন্ডারা। টেনে হিঁচড়ে বাড়ি থেকে বার করে নিয়ে যায় কাল্টু ঘোষাল, মুকুন্দ হাজরা সহ একাধিক তৃণমূল কর্মী। তাদের বাধা দিতে গেলে দুষ্কৃতিদের কোপের মুখে পড়েন বাসুদেব বাবুর স্ত্রীও। এমনকি তাঁর প্রতবন্ধী বোন এবং মাকে মারধোর করা হয়েছে বাসুদেব বাবুর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির আরামবাগ সভাপতি বিমান ঘোষ বলেন, দলীয় কর্মীদের তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়াটাই মেনে নিতে পারছে না শাসকদল। বিজেপির সংগঠন মজবুত হচ্ছে এটাই লোকসভা ভোটের আগে আশঙ্কার কারণ হচ্ছে তৃণমূলের। তাই মর্জি খাটয়ে সন্ত্রাস তৈরি করে বিজেপিকে রোখার চেষ্টা করছে তৃণমূল। তবে বিজেপির এ অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে দাবী করলেন স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক মানস মজুমদার। বিজেপির দাবীকে মিথ্যা বললেন তিনি। এবং দলীয় কর্মীদের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য মারধোরের এবং টাকা চাওয়ার অভিযোগকেও অস্বীকার করলেন। সঙ্গে এটাও জানালেন এখানে বিজেপির সংগঠন বলতে কিছুই নেই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!