এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিতর্কিত মন্তব্যকে ঘিরে আবারও সমালোচনার কেন্দ্রে রাজ্যের তৃণমূল নেতা

বিতর্কিত মন্তব্যকে ঘিরে আবারও সমালোচনার কেন্দ্রে রাজ্যের তৃণমূল নেতা



রাজ্যের দরজায় এসে হাজির হয়েছে পুরসভার নির্বাচন। আর এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই মুহূর্তে তৎপর শাসক বিরোধী শিবিরগুলি। তবে তার মধ্যেই কান পাতলে শোনা যাচ্ছে, শাসক-বিরোধী উভয় পক্ষ থেকেই বিতর্কিত মন্তব্য আসছে। তবে বিতর্কিত মন্তব্যের তালিকায় প্রথমেই যার নাম উঠে আসে, তিনি হলেন বহু পরিচিত বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল ওরফে কেষ্টা। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বিতর্কিত মন্তব্য করে তিনি রাজনৈতিক মহলে তুমুল সমালোচনা সৃষ্টি করেছেন।

তবে এবার রাজনৈতিক মহলে বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে নজরে পড়েছেন আরেক তৃণমূল নেতা বাচ্চু হাঁসদা। রাজনৈতিক মহলের দাবি বাচ্চু হাঁসদা প্রকারান্তরে অনুব্রত মণ্ডলকেই অনুসরণ করছেন। যেকোনো নির্বাচনের আগে অনুব্রত মণ্ডল কিছু নির্দিষ্ট বিতর্কিত মন্তব্য করে থাকেন। তা সে পাচনের দাওয়াই হোক কিংবা নকুলদানা মন্তব্য। ঠিক একই ভাবে বির্তকের জন্ম দিলেন সম্প্রতি দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূল নেতা বাচ্চু হাঁসদা। এদিন তিনি প্রকাশ্যে মন্তব্য করেছেন, আদিবাসী এলাকায় নির্বাচনের কায়দা অন্যরকম।

আর এই বক্তব্যকে ঘিরেই শুরু হয়েছে তীব্র সমালোচনা। সম্প্রতি তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, আদিবাসী এলাকার উন্নয়নের জেরে ভোট জেতা যায় না, সেখানে ভোট পেতে গেলে অন্য রাস্তা গ্রহণ করতে হয়। আর এই বক্তব্যের মধ্য দিয়েই বিতর্কের শীর্ষে উঠে এসেছেন দক্ষিণ দিনাজপুর তৃণমূল নেতা তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা। উল্লেখ্য রাজ্যের তৃণমূল সরকার কিন্তু উন্নয়নের হাতিয়ারকে সঙ্গী করেই নির্বাচন জেতার লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছে। বাদ যায়নি দক্ষিন দিনাজপুর জেলাও।

তবে বাচ্চু হাঁসদা শুধুমাত্র বিতর্কিত মন্তব্য করেই নয়, তিনি বিতর্কিত কাজ করেও রাজনৈতিক মহলের সমালোচনার পাত্র হয়েছেন। কিছু মাস আগেই তাঁকে নিয়ে তৃণমূল শিবিরে গুঞ্জন শুরু হয়। দক্ষিণ দিনাজপুরে তার প্রাসাদোপম মহলকে কেন্দ্র করে। পশ্চিমবঙ্গের শাসক শিবিরের নির্বাচনী কৌঁশলী প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলের প্রত্যেকের উপর নজর রেখে চলেছেন বলে এতদিন দাবি করা হয়েছে রাজনৈতিক মহল থেকে। তবে এই দাবি যে নিছক নয় তার প্রমাণ পাওয়া গেছে কিছুদিন আগেই প্রশান্ত কিশোরের বাচ্চু হাঁসদাকে নিয়ে মন্তব্যের জেরে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কলকাতায় যখন দক্ষিণ দিনাজপুরের তৃণমূল নেতাদের নিয়ে বৈঠক হয়, তখন সেখানে প্রকাশ্যে প্রশান্ত কিশোর বাচ্চু হাঁসদার প্রাসাদোপম বাড়ির ছবি দেখিয়ে মন্তব্য করেন উপস্থিত বাচ্চু হাঁসদার উদ্দেশ্যে। যে কোন নির্বাচনই হোক সে লোকসভা, বিধানসভা, পৌরসভা বা পঞ্চায়েত- প্রতিটি নির্বাচনের আগেই কিছু নেতার বিতর্কিত মন্তব্যে সারা পড়ে যায় রাজনৈতিক মহলে। তবে শাসক শিবিরের অন্যতম নেতা অনুব্রত মণ্ডলের নাম সবার আগে আসবে। বহুদিন ধরেই তিনি বিতর্কের সৃষ্টি করে চলেছেন তাঁর বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে।

কখনও তিনি বিরোধীদের উদ্দেশ্যে চরম চরম ঢাক বাজানো, কখনো তিনি গুড় বাতাসা, আবার কখনো তিনি নকুলদানা মন্তব্যের মধ্য দিয়ে তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি করেছেন। লোকসভা নির্বাচনের আগে নকুলদানা বক্তব্যের জন্য তাঁকে নির্বাচন কমিশনের মুখোমুখি হতে হয় বলে জানা গেছে। অন্যদিকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বহুবার তাঁর দলের নেতা-নেত্রীদের সাবধান করেছেন, কোন বিতর্কিত মন্তব্য করার আগে দলীয় চিন্তা ধারাকে নজরে রাখার জন্য।

কিন্তু বারংবার নেত্রীর এই কথাকে একপাশে সরিয়ে রেখে বিতর্কিত মন্তব্য করতেই থাকেন তৃণমূলের বিভিন্ন নেতা-নেত্রীরা। এ প্রসঙ্গে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, বিতর্কিত মন্তব্য করলে খুব সহজেই আলোচনার বিষয়বস্তু হয়ে ওঠা যায়। বলা যায়, এই কারণেই রাজনৈতিক আলোককেন্দ্রের মধ্যমণি হয়ে উঠতে চান উক্ত রাজনৈতিক নেতারা। আপাতত উত্তর দিনাজপুরের তৃণমূল নেতার বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে তৃণমূল সুপ্রিমো কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন কিনা, সেদিকে নজর রাখবে ওয়াকিবহাল মহল।

 

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!