এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিশ্বভারতী বিতর্কে এবার বড়সড় পদক্ষেপ কলকাতা হাইকোর্টের! জেনে নিন বিস্তারিত ভাবে!

বিশ্বভারতী বিতর্কে এবার বড়সড় পদক্ষেপ কলকাতা হাইকোর্টের! জেনে নিন বিস্তারিত ভাবে!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বাংলার রাজনৈতিক, এবং নাগরিক সমাজের অন্দরে বেশ কিছুদিন আগে বিশ্বভারতীর পাঁচিল ভাঙ্গা নিয়ে রীতিমত ঝড় বয়ে গেছে। প্রসঙ্গত, শান্তিনিকেতনের পৌষ মেলার মাঠে পাঁচিল দেওয়া নিয়ে শুরু হয়েছিল মারাত্মক অশান্তি। আর অশান্তির কারণ হিসেবে অভিযোগের তীর উঠেছিল বিশ্বভারতীর উপাচার্যর দিকে। পুরো ঘটনায় পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছিল। কিন্তু এবার বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সুরক্ষার জন্য কলকাতা হাইকোর্টের পক্ষ থেকে প্রধান বিচারপতি টিভি রাধাকৃষ্ণাণ এবং বিচারপতি শম্পা সরকারের ডিভিশন বেঞ্চ একটি কমিটি গঠন করে দিল।

হাইকোর্ট থেকে বলা হয়েছে, বিশ্বভারতী আইন 1951 অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি বিশ্বভারতীর পরিদর্শক. তাই সেক্ষেত্রে ঐতিহ্যকে মাথায় রেখেই স্বতঃপ্রণোদিত ভাবে এই মামলা গ্রহণ করেছে হাইকোর্ট। বলা হয়েছে, হাইকোর্ট প্রণোদিত কমিটিকে রাজ্য এবং কেন্দ্র উভয়কেই সাহায্য করতে হবে। অন্যদিকে জানা গেছে, এই কমিটিতে নেতৃত্বে রয়েছেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁরা দুজনেই বিশ্বভারতীর শিক্ষা সমিতির সদস্য ছিলেন বলে জানা গেছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এ ছাড়াও অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল এবং রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেলও এই কমিটিতে আছেন বলে খবর। এই কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্য এবং স্বার্থ সুরক্ষিত রাখার জন্য যেকোন রকমের মধ্যস্থতা এবং সামঞ্জস্যতা রক্ষার কাজ করবে বলে জানা গেছে। এমনকি বিশ্বভারতীর যেকোনো নির্মাণ, পুরনো কোনো নির্মাণ ভাঙ্গা, সংস্কার, মূর্তি সরানো সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ এই কমিটির তত্ত্বাবধানে হবে। কলকাতা হাইকোর্টের মতে, বিশ্বভারতীর নিজের জমি রক্ষা করার অধিকার রয়েছে। তাই ভাঙ্গা পাঁচিলের অংশসহ বিশ্বভারতীর আওতাধীন যে কোন জমি সুরক্ষিত রাখতে এবার থেকে সেটি তার দিয়ে ঘেরা যেতে পারে। তবে সেটিও হাইকোর্টের তৈরী কমিটির তত্ত্বাবধানে হবে।

অন্যদিকে জানা গেছে, বিশ্বভারতী নিরাপত্তার দায়িত্ব থাকবে পুলিশের কাঁধেই। আর বর্তমানে সিভিল কোর্টে পাঁচিল ভাঙ্গা সংক্রান্ত যতগুলি মামলা চলছে সেগুলি কার্যকর আর হবেনা। বরং হাইকোর্টের তৈরি করা চার সদস্যের কমিটি পুরো ব্যাপারটি খতিয়ে দেখবেন। তবে হাইকোর্টের এই কমিটি গঠন নিয়েও মতান্তর রয়েছে। অনেকের মতে, পাঁচিল ভাঙ্গা কাণ্ডকীর্তি থেকে শাসক দলকে আড়াল করার জন্যই এই কমিটি গঠন। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্বভারতীর উপাচার্য যাতে আর কোনো বিতর্কে জড়িয়ে না পারেন সে কারণেই এই কমিটি গঠন করে বিশ্বভারতীর যাবতীয় সমস্যার সমাধান হল। আপাতত নতুন কমিটি কিভাবে পরিস্থিতি সামলায়, সেদিকেই এখন নজর থাকবে সবার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!