এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিস্ফোরক অভিযোগ করে দল ছাড়লেন এবার তৃণমূলের যুব নেতা, জল্পনা তুঙ্গে

বিস্ফোরক অভিযোগ করে দল ছাড়লেন এবার তৃণমূলের যুব নেতা, জল্পনা তুঙ্গে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একুশের নির্বাচন যত কাছে আসছে, ততই তৃণমূল শিবিরের ভাঙন আরও স্পষ্ট হচ্ছে বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের। এতদিন দেখা গিয়েছে তৃণমূল শিবিরের হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রী, বিধায়ক, সাংসদ একে একে দল ভেঙে বেরিয়ে গেছেন। তবে বেশির ভাগই তৃণমূল ছেড়ে যোগদান করেছেন গেরুয়া শিবিরে। তবে এতদিন পর্যন্ত তৃণমূল যুব দলের ভাঙনের কথা শোনা যায়নি, এবার সেটাই হলো। জানা গিয়েছে, এবার তৃণমূল যুব কংগ্রেসের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক রুপম ঘোষ দল ছাড়লেন। উল্লেখ্য, রুপম ঘোষ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্যতম সেনাপতি হিসেবে পরিচিত রাজনৈতিক মহলে। উত্তরবঙ্গে রুপম ঘোষ যথেষ্ট পরিচিত মুখ।

এহেন রুপম ঘোষ তৃণমূল যুব শিবির ছাড়ায় স্বাভাবিকভাবেই তীব্র জল্পনা তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই রুপম ঘোষ তাঁর পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন দলের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। এছাড়াও পর্যটন মন্ত্রী তথা ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ী কেন্দ্রের বিধায়ক গৌতম দেব, যুব তৃণমূলের জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি সৈকত চট্টোপাধ্যায় এবং ফুলবাড়ী ব্লক তৃণমূল সভাপতি দেবাশীষ প্রামাণিকের কাছে রূপম পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। সূত্রের খবর, দীর্ঘদিন ধরেই দলের সাথে তাঁর দূরত্ব বেড়েছিল। এর আগেও রূপম ঘোষ দল ছাড়ার চেষ্টা চালিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। কিন্তু দলীয় নেতারা বারবার তাঁকে বুঝিয়ে সুঝিয়ে দলে রেখেছিলেন।

কিন্তু একুশের বিধানসভা নির্বাচনের দোড়গোড়ায় এসে কোন বোঝানোই আর কাজে এলোনা বলে মনে করা হচ্ছে। তবে রুপম ঘোষ তাঁর দল ছাড়ার কারণ হিসেবে এনেছেন দলের প্রতি বিস্ফোরক অভিযোগ। এতদিন পর্যন্ত বিরোধীরা তৃণমূল শিবিরের দুর্নীতি নিয়ে সরব হয়েছিলেন। কিন্তু এবার দল ছাড়ার কারণ হিসাবে রুপম ঘোষও সেই একই অভিযোগ করলেন দলের প্রতি। রূপম অভিযোগ করেছেন, যারা সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত তাঁরাই তৃণমূলে বেশি সম্মান পান। বরং যারা খেটে খাওয়া কর্মী তাঁদের কোনো মান নেই দলে। সেক্ষেত্রে দলের বিভিন্ন কাজ না মানতে পেরে বাধ্য হয়ে তিনি দলত্যাগ করেছেন বলে জানিয়েছেন। অন্যদিকে রুপম ঘোষের দলত্যাগে দলের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে না বলেই দাবি করা হয়েছে।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

জলপাইগুড়ি জেলা ইউনিটের দাবি, রূপম ঘোষ সেভাবে সক্রিয় ছিলেন না। যেহেতু তিনি পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেবের এলাকায় থাকেন তাই তাঁকে বিশেষ পদ দেওয়া হয়েছিল। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই কথা কতটা যুক্তিযুক্ত তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন রাজনৈতিক মহলের অনেকেই। তবে তৃণমূল শিবির থেকে এই দলত্যাগের কোনো প্রভাব পড়বে না বলে বলা হলেও কার্যত এই ঘটনা যুব তৃণমূল শিবিরে কিন্তু অস্বস্তির সৃষ্টি করেছে বলে মনে করা হচ্ছে। প্রশ্ন উঠেছে, রুপম ঘোষ তৃণমূল ছেড়ে এবার কি গেরুয়া শিবিরের দিকে পা বাড়াতে চলেছেন? সেক্ষেত্রে মনে করা হচ্ছে, বুধবার শিলিগুড়িতে গেরুয়া শিবিরের একটি বড় সভা রয়েছে, আর সেখানেই রূপম ঘোষ বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন।

তবে এ ব্যাপারে রুপম ঘোষ নিজে কিছু এখনো পর্যন্ত জানাননি। পূর্বের ঘটনাক্রম অনুযায়ী এবারেও একই ঘটনা ঘটে কিনা সেদিকে লক্ষ্য রাখছে ওয়াকিবহাল মহল। অন্যদিকে বিশেষজ্ঞদের মতে, উত্তরবঙ্গ নিয়ে এবারে বিশেষ চিন্তাভাবনা চালাচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যথারীতি উত্তরবঙ্গ ফিরে পেতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যোগ্য সঙ্গত দিচ্ছেন তাঁকে। কিন্তু হঠাৎ করেই তৃণমূল যুব শিবিরে এহেন ভাঙন বিপত্তি ডেকে আনবে না তো? আপাতত এই ভাঙন সামাল দিতে নতুন কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়, এখন সেটাই দেখার।

 

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!