এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিরোধীরা যতই লাফাক, জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফেরানো নিয়ে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট কেন্দ্রের

বিরোধীরা যতই লাফাক, জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফেরানো নিয়ে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট কেন্দ্রের



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – ধীরে ধীরে আবার উত্তপ্ত হতে শুরু করেছে জম্মু-কাশ্মীর। বর্তমানে সেখান থেকে 370 ধারা ফেরানো নিয়ে একটি গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে। প্রায় 14 মাস বন্দী থাকার পর জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি মুক্তি পেয়েছেন। আর মুক্তি পাওয়ার পরেই কাশ্মীরের বিশেষ ক্ষমতা বাড়ানোর দাবিতে সরব হয়েছেন। তৈরি হয়েছে একটি মঞ্চ। স্বাভাবিকভাবেই এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় সরকার কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে, সেদিকে নজর ছিল সকলেরই।

অবশেষে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করল কেন্দ্র। সূত্রের খবর, শনিবার কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন, কোনো অবস্থাতেই জম্মু কাশ্মীরে 370 ধারা ফেরানো হবে না। অর্থাৎ বিরোধীদের তরফ থেকে যে পদক্ষেপই নেওয়া হোক না কেন, কেন্দ্র যে তাদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসবে না, তা কার্যত পরিষ্কার করে দিলেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রায় 14 মাস বন্দী থাকার পর মুক্তি পেয়ে কাশ্মীরের বিশেষ ক্ষমতা ফেরানোর দাবিতে উদ্যত হয়েছিলেন সেখানকার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি। যেখানে ফারুক আবদুল্লা, ওমর আবদুল্লা সহ কাশ্মীরের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে এক ছাতার তলায় আসার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। আর সেই মত করেই শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে কাশ্মীর থেকে 370 ধারা ফেরানোর দাবি তোলা হয়।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

শুধু তাই নয়, কাশ্মীরের নিজস্ব পতাকা ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিও জানান সেখানকার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। আর এর পরেই জম্মু কাশ্মীরের অবস্থা ক্রমশ সংকটজনক হয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা করেছিল বিশেষজ্ঞরা। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলো এইভাবে জোট বাঁধতে শুরু করলে কেন্দ্রীয় সরকার অত্যন্ত চাপের মুখে পড়বে বলেই মনে করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই চাপের কাছে নতিস্বীকার না করে নিজেদের অবস্থান অষ্ট করে দিল কেন্দ্রের বিজেপি সরকার বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

কোনোমতেই যে কাশ্মীর থেকে 370 ধারা ফিরিয়ে নেওয়া হবে না, তা বুঝিয়ে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। আর এর ফলে বিরোধীদের তরফ থেকে যে জোট তৈরি করা হয়েছিল এবং তাদের যে দাবি ছিল, তা অনেকটাই পিছনের সারিতে চলে গেল বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, “কোনো অবস্থাতেই জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ ক্ষমতা ফেরানো হবে না। সাংবিধানিক পদ্ধতি মেনে 370 ধারা প্রত্যাহার করা হয়েছে। জম্মু কাশ্মীর থেকে 370 ধারা প্রত্যাহার দেশবাসীর কাছে আমাদের প্রতিশ্রুতি ছিল এবং মানুষ এই সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছেন।”

আর এরপরই সেখানকার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, “মেহেবুবা মুফতি জাতীয় পতাকার প্রতি গুরুত্বপূর্ণ গুরুতর অসম্মান দেখিয়েছেন। পান থেকে চুন খসলেই বিজেপির সমালোচনায় উঠেপড়ে লাগে বিরোধী দলগুলো। অথচ মেহেবুবা মুফতি জাতীয় পতাকার প্রতি এমন অবমাননাকর মন্তব্যের পরেও সকলে চুপ।” অর্থাৎ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এই মন্তব্যের মধ্য দিয়ে বুঝিয়ে দিতে চাইলেন যে, ভারতবর্ষের জাতীয় পতাকাকে অপমানিত করে মেহেবুবা মুফতি খুব একটা ভালো কাজ করেননি।

পাশাপাশি এই ঘটনার পর বিরোধীরা সেই মেহেবুবা মুফতির আচরণ নিয়ে সরব না হওয়াতে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন রবিশঙ্কর প্রসাদ। অর্থ্যাৎ কাশ্মীরে যখন 370 ধারা ফেরানোর দাবি উঠছে, ঠিক তখনই নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে দিয়ে পাল্টা মেহেবুবা মুফতিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দিল কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। সব মিলিয়ে এবার গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!