এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > big breking প্রশাসনিক স্তরে বড়সড় রদবদল! নির্বাচনের আগে বাড়ছে জল্পনা!

big breking প্রশাসনিক স্তরে বড়সড় রদবদল! নির্বাচনের আগে বাড়ছে জল্পনা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সামনেই 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন‌। ইতিমধ্যেই দিল্লি থেকে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের ফুলবেঞ্চ এসে রাজ্যের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছে। আলোচনা হয়েছে আইনশৃঙ্খলা নিয়ে। আর এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার রাজ্যের দুই জেলার পুলিশ মহলে আনা হল বদল। সূত্রের খবর, এদিন নবান্নের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে, রাজ্যের অন্যতম দুটি জেলা বীরভূম এবং পুরুলিয়ার পুলিশ সুপারকে বদল করা হল। স্বাভাবিকভাবেই নির্বাচন যখন দরজায় কড়া নাড়ছে, তখন নবান্নের পক্ষ থেকে এহেন বিজ্ঞপ্তি জারি নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা।

জানা গেছে, এদিন বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিংকে বদলি করা হয়েছে। আর তার জায়গায় এসেছেন কলকাতার ডিসি সেন্ট্রাল মিরাজ খালিদ। অন্যদিকে পুরুলিয়ার পুলিশ সুপার পদেও বদল আনা হয়েছে এতদিন। সেখানকার দায়িত্বে ছিলেন এস সেলভামুরুগান। আর তার জায়গায় এদিন আনা হয়েছে বিশ্বজিৎ মাহাতোকে। জানা গেছে, এই বিশ্বজিৎবাবু এতদিন আসানসোল-দুর্গাপুর কমিশনারেটের পশ্চিম জোনের ডিসি পদের দায়িত্বে ছিলেন। এদিন তাকে পুরুলিয়ার পুলিশ সুপারের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু হঠাৎ করে দুই জেলার পুলিশের শীর্ষ পদে এই ধরনের বদল নিয়ে নানা মহলে শুরু হয়েছে চর্চা।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

একাংশ বলছেন, পুরুলিয়ার পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরেই নানা অভিযোগ উঠতে শুরু করে। এমনকি মাঝে কয়লা পাচার কাণ্ডে তার যোগ রয়েছে বলেও অনেকে অভিযোগ করতে শুরু করেছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই এই পরিস্থিতিতে চাপে পড়েছিল রাজ্য সরকার। তাই এবার নির্বাচনের আগে সেই চাপ সামাল দিতেই তাকে বদলি করা হল। অন্যদিকে গত লোকসভা নির্বাচনের আগে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বীরভূম জেলার পুলিশ সুপার শ্যাম সিংকে বদলি করা হয়েছিল।

কিছুদিন আগে রাজ্যে নির্বাচন কমিশনর ফুলবেঞ্চ রাজ্যে এসে বৈঠক করেছে। আর এই পরিস্থিতিতে সেই বীরভূমের পুলিশ সুপারকেও বদল করে দিল নবান্ন। অর্থাৎ পরবর্তীতে এই দুই পুলিশ সুপারের জন্য যাতে নির্বাচন কমিশনকে কোনো রকম চাপের মুখে পড়তে না হয়, তার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল বলেই করছে একাংশ। যদিও বা সেরকম কোনো ব্যাপার নেই বলে দাবি করছেন অনেকে। সব মিলিয়ে নির্বাচনের আগে এবার দুই জেলার পুলিশ সুপার পদে আনা হল বদল।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!