এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > Big Breaking, এবার ইডির নোটিস পেলেন তৃণমূলের মুখপাত্র, অস্বস্তিতে শাসকদল

Big Breaking, এবার ইডির নোটিস পেলেন তৃণমূলের মুখপাত্র, অস্বস্তিতে শাসকদল



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – এবার ইডির নোটিস পেলেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। নোটিশ পাঠিয়ে তাঁকে ইডির দপ্তরে তলব করা হয়েছে। আজ সকাল ১১ টায় সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে তাঁকে উপস্থিত হবার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ইডির নোটিস পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, ইডির দপ্তরে তিনি হাজিরা দেবেন। নিশ্চিতভাবে তদন্তে সহায়তা করবেন।

অনেকে মনে করছেন যে, সম্প্রতি কয়লা পাচার ও গরু পাচার কাণ্ডের তদন্তে ব্যস্ত রয়েছে সিবিআই ও ইডি। অন্যদিকে সারদা, রোজভ্যালি কাণ্ডের তদন্ত ঢিলে হয়ে গেছে। কিন্তু এবারে সারদাকাণ্ডের তদন্ত করতেই তলব করা হলো তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষকে। সম্প্রতি, সারদাকাণ্ডের তদন্ত করতে গিয়ে বেশ কিছু নতুন তথ্য ইডির আধিকারিকদের কাছে এসেছে। এবার এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে কুণাল ঘোষকে তলব করা হলো।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আজ সকাল ১১ টার মধ্যে কুণাল ঘোষকে তলব করা হয়েছে সিজিও কমপ্লেক্সে। এ প্রসঙ্গে তিনি জানালেন যে, গত ২০১৩ সাল থেকে সারদা কাণ্ডের তদন্ত চলে আসছে। আগেও ইডিকে তিনি তদন্তে সাহায্য করেছেন। নিশ্চিতভাবেই আবারো সাহায্য করবেন তিনি। তিনি জানান, পূর্বেও তিনি অনেক নথি জমা দিয়েছেন, আবারো একবার নথিপত্র নিয়ে ইডির দপ্তরে তিনি যাবেন।

প্রসঙ্গত, ইতিপূর্বে সারদাকাণ্ডে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছিলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। সেসময় টানা ৩৪ মাস তিনি জেলে ছিলেন। এখন তিনি জামিনে রয়েছেন। তবে এখন সারদাকাণ্ডের তদন্ত সিবিআইয়ের পাশাপাশি ইডিও করছে। ইতিপূর্বে একাধিকবার ইডি জিজ্ঞাসাবাদ করেছে কুণাল ঘোষকে। একসময় শাসকদলের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখার কারণে তৃণমূলের সঙ্গে কুণাল ঘোষের যথেষ্ট দূরত্ব তৈরি হয়েছিল। তবে সম্প্রতি তৃণমূলের অত্যন্ত সক্রিয় নেতা তিনি।

তাই একেবারে বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে কুণাল ঘোষকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করাকে রাজনৈতিক কারণ বলেই অভিযোগ করেছেন তৃণমূলের বেশকিছু নেতাকর্মী। তবে, এ প্রসঙ্গে কুনাল ঘোষ জানিয়েছেন যে, তিনি তদন্তে সাহায্য করবেন। নিজেই তিনি ইডির অফিসারের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন, আইনজীবীদের পাঠাবেন না। তবে তিনি দাবি করেছেন যে, জেলে বসে সারদার কর্ণধার সুদীপ্ত সেন যাদের নাম চিঠিতে লিখেছেন, তাঁদের বিষয়েও তদন্ত শুরু করা হোক।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!