এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > Big Breaking দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে কোনো দ্বন্দ্ব নয়, প্রার্থী ঘোষণার আগেই কড়া বার্তা তৃণমূলের!

Big Breaking দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে কোনো দ্বন্দ্ব নয়, প্রার্থী ঘোষণার আগেই কড়া বার্তা তৃণমূলের!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –শুক্রবার প্রকাশিত হতে চলেছে তৃণমূলের পূর্ণাঙ্গ প্রার্থী তালিকা। কিন্তু সেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণার আগে প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রে তৈরি হয়েছে জল্পনা। কার দলের লোক প্রার্থী হবে, কোন নেতা প্রার্থী হবেন, তা নিয়ে দলের অন্দরে রীতিমত দড়ি টানাটানির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেই বিধানসভা হোক বা পৌরসভা, বিভিন্ন জায়গায় প্রার্থী ঘোষণার পর তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এসেছে।

আর সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে পরাজিত হতে হয়েছে ঘাসফুল শিবিরের প্রার্থীকে। কিন্তু এবার বিধানসভা নির্বাচনের মত লড়াইয়ে যাতে সেই ঘটনা না ঘটে, তার জন্য প্রার্থী ঘোষণার আগের দিন রীতিমত বৈঠক করে পৌর প্রতিনিধিদের কড়া বার্তা দিল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। সূত্রের খবর, আজ বৃহস্পতিবার কাউন্সিলরদের নিয়ে একটি বৈঠকে বসে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। যেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য তৃণমূলের সভাপতি সুব্রত বক্সী, তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, যুব তৃনমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম সহ অন্যান্যরা।

আর সেই বৈঠকেই কলকাতা পৌরসভার প্রত্যেকটি ওয়ার্ডের পৌর প্রতিনিধিদের কড়া বার্তা দিয়ে দিয়েছে শাসকদল। স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, দলের পক্ষ থেকে যিনি প্রার্থী হবেন, তাকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করাতে হবে। এক্ষেত্রে প্রার্থীকে অপছন্দ হলেও, কোনো দ্বন্দ্ব বরদাস্ত করা হবে না। বলা বাহুল্য, ইতিমধ্যেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিভিন্ন সভা থেকে জানিয়ে দিয়েছেন, রাজ্যের সব বিধানসভা কেন্দ্রে তিনি প্রার্থী।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অর্থাৎ প্রার্থী নিয়ে যাতে কোনো দ্বন্দ্ব না হয়, তার জন্য মন্তব্য করতে দেখা গেছে তাকে। আর এই পরিস্থিতিতে প্রার্থী ঘোষণার আগের দিন কলকাতা পৌরসভার সমস্ত ওয়ার্ডের পৌর প্রতিনিধিদের ডেকে দলীয় বন্ধ করার চেষ্টা করল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। পর্যবেক্ষকরা বলছেন, একবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রার্থী ঘোষণা করে দিলে সকলকেই দলীয় প্রার্থীর হয়ে লড়াই করতে ঝাপাতে হবে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই অতীতের অভিজ্ঞতা বলে যে, প্রার্থী ঘোষণা নিয়ে দলের অন্দরে অসন্তোষ তৈরি হতে দেখা গেছে।

যার ফলে উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গ অনেক আসনে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এবং প্রার্থী নিয়ে আপত্তির কারণে পরাজিত হতে হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসকে। তবে এবারের বিষয়টা সম্পূর্ণ আলাদা। দিনকে দিন বিজেপির চাপ বাড়ছে। তাই এমতাবস্তায় প্রার্থী ঘোষণার আগের দিন যাতে দ্বন্দ্ব কোনোমতেই প্রকাশ্যে না আসে, তার জন্য দলের তরফ থেকে যাকেই প্রার্থী ঘোষণা করা হবে, তার জন্যই কাজ করতে হবে বলে জানিয়ে দিল তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। তবে আগেভাগে দ্বন্দ্ব বন্ধ করবার জন্য তৃণমূলের পক্ষ থেকে কলকাতা পৌরসভার সমস্ত ওয়ার্ডের পৌর প্রতিনিধি ধরে কথা বলা হলেও, বাস্তবে তা কতটা মেনে চলেন নিচুতলার নেতাকর্মীরা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!