এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > Big Breaking, আদালতে তোলা হলো কে ডি সিংকে

Big Breaking, আদালতে তোলা হলো কে ডি সিংকে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ সকালে দিল্লিতে আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে অ্যালকেমিস্ট এর কর্ণধার কে ডি সিংকে। অ্যালকেমিস্ট এর কর্ণধার কে ডি সিং তৃণমূলের প্রাক্তন রাজ্যসভার সাংসদ ছিলেন। আজ ইডির সদর দফতর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর তাঁকে দিল্লির আদালতে তোলা হয়।

দিল্লির আদালত কেডি সিং কে আগামী ১৬ ই জানুয়ারি পর্যন্ত ইডির হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে। ইডি সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত হয়েছেন অ্যালকেমিস্ট এর কর্ণধার। ২০১৬ সালে অ্যালকেমিস্ট এর বিরুদ্ধে প্রথম আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠেছিল। তারপর তাঁর অফিসে ইডির আধিকারিকরা তল্লাশি চালিয়ে ছিলেন। তাঁর একটি কোম্পানির ২৩৯ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ইডি।

এরপর ২০১৮ সালে কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে কে ডি সিংকে ও তাঁর পুত্র করণদীপ সিংয়ের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ করা হয়েছিল। অ্যালকেমিস্ট টাউনশিপ ইন্ডিয়া, অ্যালকেমিস্ট হোল্ডিং কোম্পানির নামে লক্ষ লক্ষ মানুষকে প্রতারণার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়। অভিযোগ ওঠে প্লট ও ফ্ল্যাট বুকিং এর মাধ্যমে বহু মানুষকে সর্বশান্ত করেছিলেন তাঁরা।

ইডির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, অ্যালকেমিস্ট কোম্পানির বহু অর্থ বিদেশে পাচার করে দিয়েছেনা তাঁরা। প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা বাজার থেকে তুলেছিল অ্যালকেমিস্ট। যার অধিকাংশ টাকা ফেরত দেয়া হয়নি আমানতকারীকে। যে টাকার বেশিরভাগ অংশ এখন চলে গেছে বিদেশে, এমনটাই গোয়েন্দা সূত্রের খবর। কে ডি সিং এর বিরুদ্ধে একাধিক তথ্য, প্রমান আছে ইডির কাছে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অ্যালকেমিস্ট এর কর্ণধার কেডি সিং এর গ্রেপ্তারের ঘটনা প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার জানালেন এটি হবারই কথা ছিল। কেডি সিং যখনই অপরাধমূলক কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন, তখনই চিটফান্ডের ঘটনা ঘটে ছিল। তখন তিনি তৃণমূলের সঙ্গে ছিলেন এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে সাদরে ডেকে রাজ্যসভার সাংসদ করেছিলেন। এ কারণে আজ তার উত্তর দিতে হবে তৃণমূল দলকে। কারণ, এই কর্মফলের জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাঁকে।

তাই এখন তৃণমূল কোনভাবেই বলতে পারেনা যে, কে ডি সিং তাদের দলের সঙ্গে নেই। তিনি যখন তৃণমূলের সঙ্গে ছিলেন, এটি তখনকার ঘটনা। অ্যালকেমিস্ট চিট ফান্ডের ঘটনাগুলি সে সময় ঘটেছিল। মানুষকে প্রতারণা করা, টাকা-পয়সা কেড়ে নেওয়া, বিদেশে টাকা পাচারের কাজ করেছেন তিনি। বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার জানালেন যে, তিনি জানতে পেরেছেন, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বৈবাহিক সূত্রে আত্মীয় হলেন কে ডি সিং। তাই তাঁকেও জিজ্ঞাসাবাদ করার প্রয়োজন আছে বলে জানালেন তিনি। তিনি জানালেন, দেরিতে হলেও ইডি এমন একটা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, যাতে উপকৃত হতে চলেছেন সাধারণ মানুষ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!