এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বিধানসভার আগে দিলীপের মাথার ওপর বিজেপি বসাচ্ছে ‘সুপার সভাপতি’? ফাঁস করে দিলেন জ্যোতিপ্রিয়!

বিধানসভার আগে দিলীপের মাথার ওপর বিজেপি বসাচ্ছে ‘সুপার সভাপতি’? ফাঁস করে দিলেন জ্যোতিপ্রিয়!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বর্তমানে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ডানা ছাটা হতে পারে বলে নানা মহলে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকেই বলছেন, দিলীপ ঘোষের সাথে যুক্ত রাজ্য কমিটির অনেকেরই বনিবনা ঠিকমত হচ্ছে না। তাই আগামী বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে দিলীপ ঘোষের পাশাপাশি বিজেপির ভোটব্যাঙ্ক পুনরুদ্ধার করতে নতুন কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে। কিন্তু কাকে দায়িত্ব দেওয়া হবে, তা এখনও স্পষ্ট করেনি বিজেপি রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। আদৌ কেউ দায়িত্ব পাবেন, নাকি দিলীপ ঘোষ সভাপতি থাকবেন, তা ঠিক করবে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব।

কিন্তু এমত পরিস্থিতিতে দিলীপ ঘোষের মাথার উপর “সুপার সভাপতি” বসানো হতে পারে বলে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। যেখানে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরকে “বিজেপির এজেন্ট” বলে তাকে দিলীপ ঘোষের মাথায় বসানো হতে পারে বলে দাবি করলেন হেভিওয়েট এই তৃণমূল নেতা। স্বাভাবিক ভাবেই একজন সাংবিধানিক প্রধানকে একটি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত করে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের এই ধরনের মন্তব্য নিয়ে এবার ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে বঙ্গ রাজনীতিতে।

সূত্রের খবর, এদিন রাজ্যপালকে বিজেপির “সুপার সভাপতি” বলে বর্ণনা করেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। তিনি বলেন, “ওনাকে আর রাজ্যপাল বলা যাবে না। বলতে হবে ধনখড় পাল। উনি আসলে বিজেপির এজেন্ট। বিজেপি তাকে দিলীপ ঘোষের মাথার ওপরে সুপার সভাপতি করে বসিয়েছে। তার কথাবার্তা কোনোটাই রাজ্যপালের মত নন। উনি বিজেপি নেতার মত কথা বলছেন। একজন রাজ্যপাল হয়ে তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে রিপোর্ট দিলেন। তারপর তা ফাঁস করে দিলেন। এটা হয়! গোপন রিপোর্ট কখনও রাজ্যপাল মিডিয়ার সামনে ফাঁস করে দিতে পারে! তাহলে আপনারাই বলুন, উনি কি রাজ্যপালের কাজ করলেন! তাই ওনাকে ধনখড় পাল বলাই শ্রেয়।”

বলা বাহুল্য, পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের দায়িত্বে বসার পর থেকেই শিক্ষা থেকে স্বাস্থ্য, বিভিন্ন বিষয়ে রাজ্যের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা যায় রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকারকে। যেখানে তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রায়শই দাবি করা হয়, রাজ্যপাল বিজেপির এজেন্ট হিসেবে কাজ করছেন। কিন্তু বরাবর রাজ্যপাল নিজের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছেন, তিনি ন্যায়ের পক্ষে রয়েছেন। এমত পরিস্থিতিতে কিছুদিন আগেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে রাজ্যের বিভিন্ন বিষয়ে প্রকাশ্যে উষ্মা প্রকাশ করতে দেখা যায় রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানকে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এবার সরাসরি রাজ্যপালের সেই মন্তব্যকে হাতিয়ার করে তাকে বিজেপি দিলীপ ঘোষের উপর “সুপার সভাপতি” পদে বসিয়েছে বলে রীতিমত নজিরবিহীন কটাক্ষ করতে দেখা গেল রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রীকে। আর একজন সাংবিধানিক প্রধানের প্রতি রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রীর এই ধরনের মন্তব্য আগামী দিনে যে রাজ্য রাজনীতিতে যে ব্যাপক শোরগোল তুলবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

এদিন রাজ্যপাল এবং দিলীপ ঘোষ দুজনকেই “পাগল” বলে কটাক্ষ করেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “অবিলম্বে দিলীপ ঘোষের চিকিৎসা করানো উচিত। রাজ্যপাল আর দিলীপ ঘোষ দুটোই পাগল। আমরা পাগলদের কথার উত্তর দিই না। ওরা ঘরে বসে প্রেস কনফারেন্স করে, আর আমরা রাস্তায় নেমে মানুষের পাশে থাকি।” একাংশের মতে, রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান সম্মানীয় ব্যক্তি। সেক্ষেত্রে তাকে নিয়ে যেভাবে একটি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত করে মন্তব্য করলেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী, তা সত্যিই শোভা পায় না বলে দাবি করছেন একাংশ।

যেভাবে রাজ্যপালকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে নজিরবিহীন আক্রমণ করতে দেখা গেল জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে, তাতে খবরের শিরোনামে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে গেলেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী বলে দাবি বিশ্লেষকদের। এখন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে রাজভবনের তরফে কোনো প্রতিক্রিয়া আসে কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!