এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিধানসভার আগে ভোটার তালিকার কাজ ঠিকঠাক হচ্ছে তো? ৭০% বুথেই নেই অফিসার, সরব সব বিরোধীরাই!

বিধানসভার আগে ভোটার তালিকার কাজ ঠিকঠাক হচ্ছে তো? ৭০% বুথেই নেই অফিসার, সরব সব বিরোধীরাই!



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজ্যজুড়ে ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ শুরু হয়েছে। এ জন্য রাজ্যজুড়ে ক্যাম্প করে ভোটার তালিকার সংযোজন ও বিয়োজন কাজ শুরু হলো। তবে, ভোটার তালিকা সংক্রান্ত বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাল বিভিন্ন রাজনৈতিক মহল। খসড়া তালিকা প্রকাশের পর গত ১৮ ই নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছে রাজ্যের মোট ৭৮ হাজার ৯০৩ টি বুথে সপ্তাহে দুদিন করে নির্বাচন কমিশন বিশেষ ক্যাম্পের আয়োজন করেছে। যেখানে চলছে তালিকায় সংযোজন, বিয়োজনের কাজ।

নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, ২১,২২,২৮,২৯ সে নভেম্বর ও ৫,৬,১২,১৩ ই ডিসেম্বর সমস্ত বুথের বুথ লেভেল অফিসার বা বিএলওরা ক্যাম্পে উপস্থিত থাকবেন। অভিযোগ উঠেছে প্রথম সপ্তাহে রাজ্যের ৩০ % বুথে বিএলওরা উপস্থিত ছিলেন না। আবার যেসব বুথে বিএলওরা ছিলেন, সেখানে তাঁরা মানুষকে অনলাইনে পরিষেবা নেবার কথা বুঝিয়েছেন। আবার বিএলও হিসেবে কোন স্থায়ী সরকারি কর্মীকে নিযুক্ত করার কথা থাকলেও, বিভিন্ন জেলায় আশা কর্মীদের দিয়ে এই কাজ করানো হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এজন্য রাজ্যের মুখ্য নির্বাচন আধিকারিকের দপ্তরে অভিযোগ জানাতে দেখা গেল বিরোধী দল বিজেপি ও সিপিএমকে।

এ প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার অভিযোগ করেছেন যে, বিএলওদের দেখা পাওয়া যাচ্ছে না। বিশেষ ক্যাম্পে বুথ লেভেল এজেন্টদের সঙ্গে বিএলওদের ক্লেম অ্যান্ড অবজেকশন শোনার কথা থাকলেও প্রথম সপ্তাহে ১০ % বুথেও তা দেখা যায়নি। পরিবর্তে বিএলওরা মানুষকে অনলাইনে পরিষেবা নেওয়ার নির্দেশ দিচ্ছেন। তিনি অভিযোগ যে, আশা কর্মীদের নিয়ে বিএলওর কাজ করা হচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেছেন, নির্বাচন কমিশনের লোকবল নেই, তারা শাসকদল তৃণমূলের দল দাসে পরিণত হয়েছে, রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের নির্দেশেই সবকিছু চলছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এ প্রসঙ্গে সিপিএম নেতা রবীন দেব অভিযোগ করেছেন যে, সমস্ত বুথে বিশেষ ক্যাম্প করার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু এখন নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হচ্ছে যে, বুথের পরিবর্তে প্রতিটি নির্বাচন প্রেমিসেসে একজন করে বিএলও অফিসার রাখা হবে। কোথাও কোথাও আবার একটি প্রেমিসেসে রয়েছে ৮,৯ টি বুথ। তাই এমন চললে, নির্ভুল ভোটার তালিকা প্রকাশ করা কঠিন হয়ে যাবে।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরো জানান যে, গত মঙ্গলবার এ বিষয়ে তারা মুখ্য নির্বাচন আধিকারিকের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। করোনা সংক্রমণের কারণে, লোকবলের অভাবের কথা বলে বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। অন্যদিকে এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, কোন যোগ্য ভোটারের নাম যাতে ভোটার তালিকা থেকে বাদ না পড়ে, সেকথা কমিশনকে আগেই তারা জানিয়েছে। সমস্ত বুথে স্থায়ী বিএলও রাখতেও বলা হয়েছে। তা না হলে আগামী দিনে কমিশনের দ্বারস্থ হবেন তারা।

অন্যদিকে বিশেষ ক্যাম্প ছাড়াও বিএলওদের প্রতিদিন দু’ঘণ্টা করে বুথে উপস্থিত হওয়ার কথা। কিন্তু করোনা সংক্রমণ কালে কর্মীর অভাবের কারণে তা অসম্ভব হয়ে পড়ছে অনেক স্থানে। কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, করোনা মহামারীর কারণে কর্মীর অভাব দেখা দিয়েছে। কলকাতা কর্পোরেশন থেকে উপযুক্ত সংখ্যায় কর্মী না পাওয়ার কারণে প্রথম সপ্তাহে কলকাতার সমস্ত বুথে বিশেষ ক্যাম্প করা সম্ভব হয়নি। অন্যান্য জেলার ক্ষেত্রেও এমন ঘটনা ঘটেছে। আগামী দিনে রাজ্যের সর্বত্র বিশেষ ক্যাম্প ঠিকমতো যাতে করা যায়, তার জন্য পদক্ষেপ নিচ্ছে কমিশন। এ প্রসঙ্গে রাজ্য নির্বাচনী আধিকারিকের এক কর্তা জানালেন যে, আজ শুক্রবার জেলার শাসক দলের সঙ্গে তাদের বৈঠক হবে। বিষয়টি নিয়ে সেখানে বিস্তারিত খোঁজখবর নেবেন তাঁরা।

 

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!