এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিধানসভা নির্বাচনের আগে বড়সড় ধাক্কা বিজেপির! মাথায় হাত পড়তে চলেছে মোদী-শাহের !

বিধানসভা নির্বাচনের আগে বড়সড় ধাক্কা বিজেপির! মাথায় হাত পড়তে চলেছে মোদী-শাহের !



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিহার বিধানসভা নির্বাচনে এনডিএ জোট ঐক্যবদ্ধভাবেই লড়াই করবে বলে আশা করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই জোট থেকে বেরিয়ে এসে যেভাবে পৃথকভাবে লড়াইয়ের কথা জানিয়ে দিল রামবিলাস পাসোয়ানের দল লোক জনশক্তি পার্টি, তাতে ব্যাপক গুঞ্জন তৈরি হয়েছে। ইতিমধ্যেই এনডিএ জোট কাকে কত আসন দেবে, তা নিয়ে রফা চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু তারপরেই বিহার নির্বাচনে একা লড়াইয়ের কথা জানিয়ে দিয়েছে লোক জনশক্তি পার্টি।

একাংশ বলছেন, মূলত নীতীশ কুমারের জেডিইউয়ের সঙ্গে বিবাদের জেরে রামবিলাস পাসোয়ানের দল এই ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের মুখে এই ধরনের সিদ্ধান্ত কি ভারতীয় জনতা পার্টিকে চাপে ফেলবে না? এর ফলে কি বিহারের বিরোধী দল আরজেডি কিছুটা হলেও সুবিধা নেবে না! এখন তা নিয়ে নানা মহলে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই রামবিলাস পাসোয়ানের পুত্র চিরাগ পাসওয়ান বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির সঙ্গে দেখা করে নিজেদের অসন্তোষের কথা জানিয়ে এসেছেন। যেখানে তিনি দাবি করেছিলেন যে, যত দ্রুত সম্ভব আসন বন্টন নিয়ে যেন সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়। আর যদি তা না করা হয়, তাহলে তারা একতরফাভাবে প্রার্থী ঘোষণা করে দেবেন। আর এদিন সেই পথেই হাঁটতে দেখা গেল লোক জনশক্তি পার্টিকে।

জানা গেছে, দলের সংসদীয় কমিটির বৈঠকের পরই এনডিএ থেকে বাইরে বেরিয়ে আসার কথা বলে এককভাবে নির্বাচনে লড়ার কথা ঘোষণা করে রামবিলাস পাসোয়ানের দল। বস্তুত গত 2017 সালে মনিপুরের বিধানসভা নির্বাচনে উঠতে দেখা গিয়েছিল এই লোক জনশক্তি পার্টিকে। আর এবার নীতীশ কুমারের দল জেডিইউয়ের সঙ্গে বিবাদের জেরেই তারা যে এনডিএর সঙ্গ ছাড়তে বাধ্য হল, সেই ব্যাপারে কার্যত স্পষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে বিহারে 42 টি আসনে তাদের প্রার্থী যাতে দেওয়া হয়, তার জন্য লোক জনশক্তি পার্টির পক্ষ থেকে দাবি জানানো হয়েছিল। কিন্তু বিজেপির পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে সম্মতি প্রকাশ করতে দেখা যায়নি। ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে, বিহারে যদি এনডিএ জোট ক্ষমতায় আসে, তাহলে আবার মুখ্যমন্ত্রী হবেন নীতীশ কুমার। স্বাভাবিকভাবেই নীতীশ কুমারকে এতটা গুরুত্ব দেওয়ায় রামবিলাস পাসোয়ান যে অনেকটাই ক্ষুব্ধ, তা বুঝতে বাকি ছিল না কারোরই। আর এবার সেই জোট থেকে বেরিয়ে এসে পৃথকভাবে লড়ার কথা জানিয়ে দিয়ে রীতিমত বিদ্রোহ ঘোষণা করলেন তারা বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের।

যদিও বা পৃথকভাবে লড়লেও লোক জনশক্তি পার্টির পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, জেডিইউয়ের বিরুদ্ধে তারা প্রার্থী দিলেও বিজেপির বিরুদ্ধে তাদের তরফ থেকে কোনো প্রার্থী দেওয়া হবে না। অর্থাৎ তাদের প্রধান ক্ষোভ যে নীতীশ কুমার এবং তার দলের বিরুদ্ধে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে শেষ পর্যন্ত লোক জনশক্তি পার্টি পৃথকভাবে লড়াই করলেও, এনডিএ জোটের ওপর কোনো প্রভাব পড়ে কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!