এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বিভিন্ন দল ছেড়ে বিজেপিতে প্রায় পাঁচশোজনকে যোগদান করানোয় প্রহৃত বিজেপি নেতা, অভিযোগ তৃণমূলের দিকে

বিভিন্ন দল ছেড়ে বিজেপিতে প্রায় পাঁচশোজনকে যোগদান করানোয় প্রহৃত বিজেপি নেতা, অভিযোগ তৃণমূলের দিকে



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  গত ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে অভূতপূর্ব ফল লাভ করেছিল বিজেপি। এরপর থেকেই পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় নিজেদের শক্তি বাড়াচ্ছে বিজেপি। নিজেদের সংগঠনকে শক্তিশালী করে, দলের সদস্য সংখ্যা বাড়িয়ে শাসকদল তৃণমূলের প্রতি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিজেপি। বিজেপি ক্রমশ শক্তিশালী হতে শুরু করেছে তৃণমূলের গড় বলে পরিচিত বীরভূম জেলাতেও। এই পরিস্থিতিতে আজ রবিবার বীরভূম জেলার গ্রামের এক বিজেপি নেতাকে মারধর ও হেনস্থা করা হলো। এই ঘটনায় তৃণমূলকে অভিযুক্ত করেছে বিজেপি। তবে অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করল তৃণমূল।

স্থানীয় সংবাদসূত্র অনুযায়ী, বীরভূম জেলার মাড়গ্রামের রাখাপাড়ার বাসিন্দা রেজাউল ইসলাম হলেন বিজেপির সংখ্যালঘু সেলের নেতা। আজ সকালে বিজেপি নেতা রেজাউল ইসলামের বাড়িতে অকস্মাৎ চড়াও হয় বেশ কিছু দুষ্কৃতী। অভিযোগ উঠেছে তাঁর বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়েছে, এরপর তাঁকে মারধর ও হেনস্থা করা হয়েছে। দুষ্কৃতীরা মারধর করে আহত করেছে তাঁকে। এ বিষয়ে মাড়গ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেন রেজাউল ইসলাম। এই ঘটনার জন্য তিনি তৃণমূলকে অভিযুক্ত করেছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন যে, বিভিন্ন দল থেকে বিজেপিতে প্রায় ৫০০ জন মানুষকে তিনি যোগদান করিয়ে ছিলেন। যে কারণে তাঁর ওপরে এই অত্যাচার করা হলো।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বিজেপির সংখ্যালঘু সেলের নেতা রেজাউল ইসলাম অভিযোগ করেছেন যে, গত ২০ সে নভেম্বরে মাড়গ্রামে বিজেপির পক্ষ থেকে একটি যোগদান সভা অনুষ্ঠিত করা হয়েছিল। এই যোগদান সভায় রেজাউল ইসলামের নেতৃত্বে পাঁচশোর বেশি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ বিজেপি দলে যোগদান করেছিলেন। এরপর থেকেই তাঁর উপরে রাগ বাড়ে তৃণমূলের। এই কারণেই তাঁর ওপর চড়াও হয়ে তাঁর বাড়িতে ভাঙচুর চালিয়েছে তৃণমূল। এমনটাই অভিযোগ করেছেন তিনি। যদিও তাঁর অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করল স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব।

স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে পাল্টা অভিযোগ করা হয়েছে যে, সংশ্লিষ্ট এলাকার বেশ কিছু যুবককে চাকরি দেওয়ার নাম করে তাদের কাছ থেকে প্রায় ৮ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন রেজাউল ইসলাম। এরপর সেই যুবকেরা টাকা ফেরত চাইতে গেলে, তাদেরকে অপমান করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছিলেন তিনি। নিজের এই দুস্কর্ম চাপা দেওয়ার জন্যই তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। এমনটাই তৃণমূলের দাবি। আগামী বিধানসভা নির্বাচন যতই সামনে এগিয়ে আসতে চলেছে, ততোই রাজ্যের বিভিন্ন দলগুলোর মধ্যে দেখা দিচ্ছে মারামারি, হেনস্থা, খুন, বোমাবাজির মত ঘটনা। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ভোট যত সামনে এগিয়ে আসতে থাকবে, ততই বিভিন্ন দলের মধ্যে অশান্তি বৃদ্ধি পাবে উত্তরোত্তর।

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!