এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আবারও ভারতীয় রেল নিয়ে বড় পদক্ষেপ গ্রহণের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের, বিতর্ক বাড়ছে বই কমছে না!

আবারও ভারতীয় রেল নিয়ে বড় পদক্ষেপ গ্রহণের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের, বিতর্ক বাড়ছে বই কমছে না!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- করোনা পরবর্তী সময়ে ট্রেন নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিতে দেখা গেল রেল কর্তৃপক্ষকে। জানা গেছে, দ্রুত গতির দূরপাল্লার ট্রেনে শুধুই এসি কোচ থাকবে। সেখানে আর দেখা যাবে না স্লিপার কোচের। কেবল মাত্র এক্সপ্রেস ট্রেন, প্যাসেঞ্জার ও কম গতির কিছু দূরপাল্লার ট্রেনে থাকবে স্লিপার কোচ। আর এক্ষেত্রে সব কামরাই শীততাপ নিয়ন্ত্রিত হবে বলেও জানা গেছে।

বস্তুত, যে সব মেল, এক্সপ্রেস ট্রেনের সর্বোচ্চ গতি ঘণ্টায় ১১০ কিলোমিটার, শুধুমাত্র সেইসব ট্রেনেই নন এসি স্লিপার কোচ থাকবে বলে পরিকল্পনা নিতে দেখা গেছে ভারতীয় রেলকে। অন্যদিকে, ভারতীয় রেলের এই পদক্ষেপে রেল সফর মানুষের কাছে আরও বেশি নিরাপদ ও আরামদায়ক হবে বলেই মনে করছে রেল কর্তৃপক্ষ। সেক্ষেত্রে, ২০২৫ সালের মধ্যে এই সব ট্রেনের গতি ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটার হবে বলেও জানা গেছে।

তবে নতুন এসি থ্রি টায়ার কোচে ৭২টি আসনের পরিবর্তে আপাতত ৮৩টি করে আসন থাকবে বলেই জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে দ্রুত গতির ট্রেনে স্লিপার ক্লাস না থাকায় নতুন এসি কোচে বেশি ভাড়া দিতে হবে যাত্রীদের। তবে, এক্ষেত্রে প্রশ্ন উঠতে দেখা গেছে যে তাহলে নিম্নবিত্ত মানুষ কিভাবে সেই টাকা ব্যায় করবেন? এক্ষেত্রে রেল সূত্রে জানা গেছে যে, বর্তমানের এসি কোচের তুলনায় এই কোচের ভাড়া তুলনামূলক কমই হবে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, ইতিমধ্যেই পঞ্জাবের কপূরথালা রেল কোচ ফ্যাক্টরিতে নতুন এসি কামরা তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে বলে জানা গেছে। তাই চলতি বছরে এই ধরনের ১০০টি কোচ তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে রেল। সেই সঙ্গে আগামী বছরের মধ্যে তা বাড়িয়ে ২০০ করার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। এই প্রসঙ্গে, রেলের এই নয়া সিদ্ধান্তের বিষয় রেলবোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন যে, ২০২৩ সালের মধ্যে প্রায় ১ হাজার ৯ শো মেল ও এক্সপ্রেস ট্রেনের গতি ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ভারতীয় রেল।

আর বস্তুত, তারই অঙ্গ হিসেবে স্লিপার ক্লাস তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। তবে তাঁর মতে, দ্রুত গতির ট্রেনের ক্ষেত্রে শুধু এসি কোচ রাখাটা প্রযুক্তিগতভাবে দরকারি হয়ে পড়েছে। কারণ স্লিপার কোচ থাকলে বাতাস এবং আবহাওয়া সংক্রান্ত কারণে ট্রেনের গতি বাড়ানোর সমস্যা হয়। আর তাই সব মিলিয়ে এমন পরিবর্তন আনার পথেই হাঁটতে দেখা যাচ্ছে রেল কর্তৃপক্ষকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!