এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > ভারতকে দেখে ভয়ে এখন থরথর করে কাঁপে পাকিস্তান? ফাঁস হয়ে গেল বড়সড় রহস্য! জানুন বিস্তারিত

ভারতকে দেখে ভয়ে এখন থরথর করে কাঁপে পাকিস্তান? ফাঁস হয়ে গেল বড়সড় রহস্য! জানুন বিস্তারিত



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – পাকিস্তানের রাজনৈতিক অবস্থা এই মুহূর্তে অত্যন্ত জটিল। কারণ, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে কিন্তু মাথা তুলতে শুরু করেছে সেখানকার বিরোধী শিবিরগুলি। আর সেক্ষেত্রে এবার পাকিস্তান সরকারকে আক্রমণ করতে গিয়ে প্রকাশ্যে এমন খবর সামনে নিয়ে এলেন পাকিস্তান মুসলিম লীগের নেতা, যা বিশ্বের সামনে পাকিস্তান এবং ভারতের সমীকরণ কার্যত স্পষ্ট করে দিল। এদিন পাক সংসদে দাঁড়িয়ে খোদ পাকিস্তান মুসলিম লীগের নেতা সর্দার আয়াজ সাদিক জানিয়েছেন, ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে আটক করে কিন্তু রীতিমত ভয়ে ছিল পাকিস্তান।

এমনকি ভারত হামলা করতে পারে এই আতঙ্ক গ্রাস করেছিল পাক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার। একই অবস্থা ছিল পাক বিদেশমন্ত্রীরও। আর তাই ভয়ের চোটে ভারতীয় বায়ু সেনা কমান্ডারকে মুক্তি দেয় পাকিস্তান। এই কথা প্রকাশ্যে আসার পরেই শুরু হয়েছে পাকিস্তানকে নিয়ে প্রবল সমালোচনা। এদিন বিশদে পুরো ঘটনাটির বর্ণনা দেন মুসলিম লীগের নেতা। তিনি জানান, ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে আটক করে পাকিস্তান। সেই নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করতে বৈঠকে বসেন পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি, পাক সেনাপ্রধান কামার জাভেদ বাজওয়া এবং ওই বৈঠকে বিরোধীদের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন সর্দার আয়াজ সাদিক।

কিন্তু পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এই বৈঠক এড়িয়ে যান বলে দাবি করেছেন বিরোধী নেতা এবং সেদিনের আলোচনায় কি হয়েছিল তাই জানান পাকিস্তান মুসলিম লীগের নেতা। তিনি জানান, পাক বিদেশমন্ত্রী সেদিন দাবি করেন- অভিনন্দনকে না ছাড়লে রাত ন’টার মধ্যে পাকিস্তানের উপর হামলা চালাবে বিরোধী ভারত। আর তাই অভিনন্দনকে ছেড়ে দেওয়াই আশু কর্তব্য বলে মনে করা হয়েছিল। মূলত, এদিন সংসদে দাঁড়িয়ে শাসক দল এবং প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে তীব্র আক্রমণ করেন সাদিক। তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানান, ভারতের সামনে হার স্বীকার করেই বসে আছে পাকিস্তান। অভিনন্দন এবং কাশ্মীর ইস্যুতে বিরোধীরা পাকিস্তান সরকারের পাশেই ছিল, কিন্তু এই মুহূর্তে তা আর সম্ভব নয় বলে জানান বিরোধীরা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত পাকিস্তানের ইমরান খান সরকারের বিরুদ্ধে এই মুহূর্তে প্রায় 11 টি বিরোধীদল একজোট হয়েছে। পাক সেনার বিরুদ্ধেও তাঁরা একের পর এক প্রতিবাদ জানাচ্ছে। সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে পাকিস্তানের পরিস্থিতি মোটেই সুবিধাজনক নয়। অন্যদিকে গত 14 ই ফেব্রুয়ারি কাশ্মীর উপত্যকায় পুলওয়ামায় পাকিস্তানি আত্মঘাতী জঙ্গি হামলা হয়েছিল। যেখানে শহীদ হন 40 জনেরও বেশি ভারতীয় সিআরপিএফ জাওয়ান। সেই হামলার ঠিক 12 দিনের মাথায় বোমারু যুদ্ধবিমান মিরাজ 2000 এর মাধ্যমে আকাশপথে পাকিস্তানের বালাকোটে হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা। ধ্বংস করে দেওয়া হয় বেশ কয়েকটি জঙ্গী ঘাঁটি। তবে তার পরদিন আবারও পাকিস্তান ভারতকে আকাশপথে আক্রমণ করার চেষ্টা করে।

সেসময় পাকিস্তানের এফ-সিক্সটিন বিমান গুলি করে নামান ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। কিন্তু ভুলবশত অভিনন্দন পাকিস্তানের জমিতে ঢুকে পড়ায় তাঁকে পাক সেনাদের হাতে বন্দী হতে হয়। কিন্তু কূটনৈতিক চাপের মুখে পড়ে ভারতের কাছে মাথা নত করে পাকিস্তান এবং অভিনন্দনকে ভারতে ফেরাতে বাধ্য হন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ভারত এবং পাকিস্তানের সম্পর্ক অজানা নয় কারোরই।

একে অপরকে টেক্কা দিতে সবসময়ই আগুয়ান এই দুই দেশ। তবে পাকিস্তান বরাবরই চেষ্টা চালিয়ে আসছে কাশ্মীর সংক্রান্ত সমস্যা জিইয়ে রাখার এবং ভারতের বিরুদ্ধে ক্রমাগত আক্রমণ চালানোর। অন্যদিকে ভারতীয় সেনারা পিছিয়ে নেই। তাঁরাও সময়ে সময়ে জবাব দেয় পাকিস্তানকে। বিশেষজ্ঞদের মতে, পাকিস্তান থেকে যে তথ্য প্রকাশ হলো এদিন, তাতে কিন্তু ভারতের আত্মবিশ্বাস যেমন বাড়বে, ঠিক সেভাবেই পাকিস্তানও সমালোচিত হবে বিশ্বের সর্বস্তরে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!