এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে রাফাল, কেন থরথর করে কাঁপছে চীন? পুরো কারণ জানলে চমকে যাবেন!

ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে রাফাল, কেন থরথর করে কাঁপছে চীন? পুরো কারণ জানলে চমকে যাবেন!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – চীন ভারতের আন্তর্জাতিক সীমান্ত সমস্যা এখনো বর্তমান। কিছুদিন আগেই গালওয়ান সীমান্তে চীন-ভারত সেনাবাহিনীর মধ্যে গন্ডগোল লাগে। শুরু হয় হাতাহাতি। এবং তাতেই কুড়ি জন ভারতীয় সেনা শহীদ হন। অন্যদিকে চীনের তরফেও বেশ কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানা গেছে। এই অবস্থায় বর্তমানে গালওয়ান সীমান্ত সহ আরও কয়েকটি জায়গা থেকে চীনা সেনারা বিদায় নিলেও এখনো পর্যন্ত ভারতের নিয়ন্ত্রণরেখা সংলগ্ন বহু এলাকাই চীনা সেনা দখল করে রেখেছে। আর এইধরনের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ভারত সরকার এবার কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চলেছে।

আর সেই সূত্রেই ভারতীয় বায়ুসেনাদের হাতে আসতে চলেছে ডবল ইঞ্জিন মাল্টিরোল কমব্যাট ফাইটার পাঁচটি রাফায়েল যুদ্ধবিমান। জানা যাচ্ছে, রাফায়েল যুদ্ধবিমান অনেক উঁচু থেকে শত্রুপক্ষের ওপর হামলা চালাতে পারে, যুদ্ধ জাহাজ ধ্বংস করতে পারে, এমনকি মিসাইল নিক্ষেপও করতে পারে। তার সাথে পরমাণু হামলা চালাতে রাফায়েল যুদ্ধবিমান দক্ষ। দাসো অ্যাভিয়েশনের পক্ষ থেকে রাফায়েলকে আরো শক্তিশালী করে তুলতে তার সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে মেটিওর ও স্কাল্প মিসাইল।

মেটিওর সম্পর্কে জানা গিয়েছে এটি বিয়ন্ড ভিজুয়াল রেঞ্জ এয়ার টু এয়ার মিসাইল প্রায় দেড়শ কিলোমিটার দূর থেকেও এটি নিখুঁত লক্ষ্যে নিশানা লাগাতে পারে। প্রতিটি মেটিওর মিসাইলের দাম 20 কোটি টাকা। অন্যদিকে স্কাল্প লো-অবজারভার ক্রুজ মিসাইল। এটির দৈর্ঘ্য 5.1 মিটার এবং ওজন প্রায় 1300 কিলোগ্রাম। 600 কিলোমিটার পাল্লা অবধি এটি টার্গেট করতে পারে। এর সাথেই এবার ভারত ফ্রান্স থেকে আমদানি করতে চলেছে হ্যামার মিসাইল সিস্টেম।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এর দ্বারা আকাশ থেকে মাটিতে ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া যায়। এই মিসাইল এর দৈর্ঘ্য 3 মিটার এবং পাল্লা 67 কিলোমিটার। যে কোন এলাকা থেকে, যেকোনো আবহাওয়ায়, যেকোনো পরিস্থিতিতে হ্যামার মিসাইল সিস্টেম এর মাধ্যমে একসঙ্গে অনেকগুলি নিশানায় আঘাত করা যায়। এই উন্নত প্রযুক্তিকে রাফায়েল যুদ্ধবিমান এর সঙ্গে যুক্ত করার কথা ভাবা হয়েছে। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে লাদাখে বায়ু সেনার শক্তি বাড়াতে বাইশটি অ্যাপাচে যুদ্ধবিমান এবং পনেরোটি চিনুক অ্যাটাক কপ্টার ভারতের হাতে এসেছে।

তবে এই মুহূর্তে সবথেকে শক্তিশালী কমব্যাট হেলিকপ্টার হিসাবে অ্যাপাচের নাম উল্লেখযোগ্য। চিনুক যুদ্ধবিমান সাধারণত সেনা, অস্ত্র এবং রসদ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়ার জন্য ব্যবহার হয়। ইতিমধ্যে ভারতের সাথে রাশিয়ার চুক্তি হয়েছে 21 টি মিগ ও 29 টি ফাইটার জেট এবং 12 টি সুখোই কেনার জন্য। জানা গেছে, রাশিয়ার সুখোইয়ের প্রযুক্তিতে বদল আনা হয়েছে। যার ফলে এই যুদ্ধবিমান থেকে নোভাটর কে-100 মিসাইল ছোঁড়ার প্রযুক্তি যোগ ঙ্করেছে ভারত।

সুখোইয়ের নতুন ভার্সনে ব্রাহ্মস ক্রুজ মিসাইল বয়ে নিয়ে যেতে পারে। এই মিসাইল 300 কিলোমিটার পাল্লায় কাজ করে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারত যেভাবে অস্ত্র মজুদ করছে তাতে বোঝাই যাচ্ছে আগামী দিনে শুধু চীন নয়, যেকোনো দেশকে পাল্লা দিতে প্রস্তুত হচ্ছে। তবে এই মুহূর্তে ভারতের সামনে শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রয়েছে চীন। এছাড়াও ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলোও এই মুহূর্তে অন্যরকম সুরে কথা বলছে। তাই সবার জন্যই ভারতের প্রতিরক্ষা বাহিনী জবাব দিতে প্রস্তুত হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!