এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভাঙ্গরে পাওয়ার গ্রিড সমস্যা মেটাতে এবার মাঠে নামলেন বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়।

ভাঙ্গরে পাওয়ার গ্রিড সমস্যা মেটাতে এবার মাঠে নামলেন বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়।



ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড করতে চাইছে সরকার কিন্তু নারাজ গ্রামবাসীরা। এইনিয়ে ভাঙড়ে জমি রক্ষা কমিটি তৈরী হয়েছে যার নেতা হলেন অলীক চক্রবর্তী। ভাঙড় এখন নিঃসন্দেহেই রাজ্যের সাধারণ মানুষে সম্মুখে একটি বড় ইস্যু হয়ে উঠেছে। সরকারের তরফে ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড তৈরীর প্রস্তাবে এদিন সুর মেলালেন রাজ্যের বিদ্যুৎ মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়।এদিন সন্ধ্যায় উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড়ে পশ্চিমবঙ্গ পৌরকর্মচারী ফেডারেশনের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন করতে সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়। সেখানে উপস্থিত হয়ে অনুষ্ঠাণে আগত সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে রাজ্যের মন্ত্রী ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড নির্মান প্রসঙ্গে নিজের মতা প্রতিক্রিয়া জানালেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

তিনি বললেন তিনি বিশ্বাস করেন ভাঙড়ে পাওয়ার গ্রিড হলে সংশ্লিষ্ট এলাকার সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক জীবনে কোনো খারাপ প্রভাব পড়বেনা। উল্লেখ্য পাওয়ার গ্রিড নির্মানের প্রস্তাবনায় ঐ এলাকায় জনশ্রুতি তৈরী হয়েছে যে কোথাও পাওয়ার গ্রিডের তার গেলে সেখানকার মানুষের সন্তান জন্মাবেনা বা কৃষি জমিতে ফসল উৎপাদন হবে না। বিদ্যুৎ মন্ত্রী এদিন বললেন সাধারণ মানুষ জনশ্রুতিতে প্রভাবিত হলেও এই জনশ্রুতির কোনো বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তি নেই। যারা ঐ এলাকার স্বঘোষিত মাওবাদী তারা নিজেদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার লক্ষ্যে সেখানকার সাধারণ মানুষকে ভুল বুঝিয়েছে। এলাকার সাধারণ মানুষ ঐসব মানুষের শোখানো বুলি আওড়ে চলেছে এখন। এলাকার পাওয়ার গ্রিড হলে গোটা এলাকার সার্বিক উন্নয়নের কথা মানুষ বুঝতে চাইছেনা বলে দাবি করলেন রাজ্যের মন্ত্রী। একই সাথে পাওয়ার গ্রিড হলে এক ধাক্কায় ঐ এলাকার জমির মূল্য বৃদ্ধি হবে। যার ফলে অল্প সময়ের মধ্যেই সাধারণ মানুষের জীবন যাত্রার মানের উৎকর্ষতা আসবে। তিনি রাজ্য সরকারের বিদ্যুতের হাইটেনশন লাইনের ক্ষেত্রে নতুন আইন প্রণয়ণের আগাম খবর জানিয়ে বললেন , এবার থেকে যে অঞ্চলের উপর দিয়ে হাইটেনশন তার যাবে সেই অঞ্চলের জমির মালিক জমির ন্যায্য মূল্য পাবেন, আগে এই আইন ছিল না। আগে শুধুমাত্র যেখানে ল্যাম্প পোস্ট বসানো হত সেই জমির দামই জমির মালিককে দেওয়া হত। কিন্তু এবার থেকে যে জমির উপর দিয়ে হাইটেনশন লাইনের তার নিয়ে যাওয়া হবে সেই জমির দাম জমির মালিককে দেওয়া হবে। রাজ্যের বিদ্যুৎ মন্ত্রীর এদিনের জন বার্তা ভাঙড় অঞ্চলের মানুষের মধ্যে পাওয়ার গ্রিড চালু করার ক্ষেত্রে কোনো ইতিবাচক প্রভাব ফেলে সেটাই দেখার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!