এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > বেসুরোদের নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত বিজেপির, বিস্ফোরক লকেট!

বেসুরোদের নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত বিজেপির, বিস্ফোরক লকেট!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  নির্বাচনের আগে যারা বিজেপির ঘর ভরিয়ে দিয়েছিলেন, নির্বাচনের পরে বিজেপির ভরাডুবি হওয়ার পর তৃণমূল থেকে আসা সেই সমস্ত নেতা নেত্রীরা আবার তৃণমূলে ফিরে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করছেন। সরলা মুর্মু থেকে শুরু করে সোনালী গুহ, অমল আচার্য থেকে শুরু করে বাচ্চু হাসদা, সকলেই এখন তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন করেছেন। অন্যদিকে হেভিওয়েট নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পোস্ট রীতিমত অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছে গেরুয়া শিবিরকে।

তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে যারা দলবদল করেছেন তাদের আবার দলে গ্রহণ করার ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। সবটাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর নির্ভর করছে। আর এই পরিস্থিতিতে দলে যখন ক্রমশ বেসুরোদের ভিড় বাড়ছে, তখন কিভাবে তাকে সামাল দেবে ভারতীয় জনতা পার্টি, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।

বিজেপির পক্ষ থেকে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, যারা বেসুরো হচ্ছেন, তারা নিজেদের স্বার্থের জন্য বিজেপিতে এসেছিলেন। আর এবার একের পর এক বেশ বড় নেতাদের বার্তা দিয়ে তাদের বিদায় নেওয়ার পরামর্শ দিলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। যে ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে বঙ্গ বিজেপিতে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এদিন বজ্রপাতে মৃত্যু হওয়া বেশ কিছু ব্যক্তির বাড়িতে যান হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। আর সেখানেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে যারা দলে বেসুরো, তাদের ব্যাপারে কড়া বার্তা দিতে দেখা যায় তাকে। হেভিওয়েট এই বিজেপি নেত্রী বলেন, “যারা বেসুরো হয়েছেন, তারা যে বেসুরো হবেন, তা আগে থেকেই টের পাচ্ছিলাম। যারা যেতে চান তারা বিদায় নিন। তারা স্বার্থ নিয়ে দলে এসেছিলেন। যারা চাইছেন, তারা সবাই তাড়াতাড়ি বিদায় নিয়ে নিন।”

বিশ্লেষকরা বলছেন, লকেট চট্টোপাধ্যায় এই মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে বুঝিয়ে দিতে চাইলেন, এই সমস্ত নেতা- নেত্রীরা দল থেকে গেলেও দল তাদের অভাব বোধ করবে না। অর্থাৎ যারা বিধানসভা নির্বাচনের আগে দলে এসেছিলেন, তারা এখন চলে গেলেও বিজেপি নিজেদের অবস্থানে অনড় থাকবে। এক্ষেত্রে ভারতীয় জনতা পার্টি কর্মীদের নিয়ে সংগঠিত হয়ে লড়াই করবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন লকেট চট্টোপাধ্যায়।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

পর্যবেক্ষকদের মতে, নির্বাচনে ভরাডুবি হওয়ার পরেই বিজেপির অন্দরে নেতৃত্ব প্রদান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। দলের অনেকে যেমন সদ্য দলে আসা নেতাদের প্রার্থী করা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, ঠিক তেমনই যারা কিছুদিন হল দলে এসেছেন, তারা দলের এই খারাপ ফলাফল নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় নেতাদের বিরুদ্ধে। আর এই পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে ব্যাপক চাপে পড়ে গিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি। এভাবেই যদি তাদের অস্বস্তি বৃদ্ধি হতে শুরু করে এবং দলের ভেতরে নেতারা বেসুরো হতে শুরু করেন, তাহলে পরিস্থিতি যে আরও জটিল হয়ে উঠবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

আর এবার সেই বেসুরোর নিয়ে মন্তব্য করে তাদের তাড়াতাড়ি বিদায় হওয়ার নিদান দিলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। নিজের মন্তব্যের মধ্য দিয়ে তিনি বুঝিয়ে দিবেন, এই সমস্ত নেতা নেত্রীরা দল পরিবর্তন করলে বা বিজেপি ত্যাগ করলে, গেরুয়া শিবিরের কোনো ক্ষতি হবে না। কেননা এমনিতেই বেসুরোদের নিয়ে বিজেপির পুরনো নেতা-কর্মীরা এতদিন প্রশ্ন তুলেছিলেন। আর বর্তমান পরিস্থিতিতে তৃণমূল থেকে আসা সেই সমস্ত নেতা নেত্রীরা আবার বেসুরো হতে শুরু করেছেন।

বিজেপির পুরনো নেতাকর্মীরা কার্যত ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছেন দলের একাংশের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলে পুরনোরা দাবি তুলতে শুরু করেছেন, তাহলে কেন এই সমস্ত ব্যক্তিদের বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী করা হল! আর এই পরিস্থিতিতে চরম সমস্যার সম্মুখীন হওয়া ভারতীয় জনতা পার্টির হেভিওয়েট নেত্রী তথা সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় কৌশলগত মন্তব্য করে বুঝিয়ে দিলেন, এই সমস্ত বেসুরোদের নিয়ে দল মোটেই চিন্তিত নয়। তবে সত্যিই কি বিজেপি চিন্তিত নয়! যদি এই সমস্ত নেতা-নেত্রীরা আবার তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে যান, তাহলে কি অস্বস্তিতে পড়বে না ভারতীয় জনতা পার্টি! পুরনো নেতা-কর্মীদের প্রশ্নের মুখে কি পড়তে হবে না তাদের? এখন এই প্রশ্নই ক্রমাগত উঠতে শুরু করেছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!