এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বাংলার সাথে যোগাযোগ কেন্দ্রের, তৃণমূল-বিজেপি বিরোধীতার মাঝে নয়া পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা!

বাংলার সাথে যোগাযোগ কেন্দ্রের, তৃণমূল-বিজেপি বিরোধীতার মাঝে নয়া পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা!



বাংলা তৃণমূল সরকারের সঙ্গেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের আদায়-কাঁচকলায় সম্পর্কের কথা কারোরই অজানা নয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক ইস্যু থেকে শুরু করে বিভিন্ন সরকারি সিদ্ধান্তে একে অপরের বিরোধিতা করতে দেখা গেছে এই দুই শাসক শিবিরকে। প্রায়শই কেন্দ্রের অস্বস্তি বাড়িয়ে বাংলা সারাদেশের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে বলে দাবি করতে দেখা যায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

অন্যদিকে কেন্দ্রের উন্নয়নমূলক প্রকল্প নিয়ে গিয়ে তার নাম পাল্টে দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাই করছেন বলে পাল্টা দাবি করে কেন্দ্রের নেতা মন্ত্রীরা। আর উন্নয়ন নিয়ে রাজ্য বনাম কেন্দ্রের এই দড়ি টানাটানির মাঝে কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের বিভিন্ন বিষয়ে নাক গলাচ্ছে বলেও সরব হতে দেখা যায় পশ্চিমবঙ্গের শাসক দলকে। আর এবার রাজ্য সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিয়ে কলকাতা পশ্চিমবঙ্গের শিল্পপতিদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার পরিকল্পনা করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

জানা গেছে, সম্প্রতি কলকাতায় এসে কেন্দ্রীয় বাণিজ্য তথা রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল শিল্প করতে কি অসুবিধা এবং সরকার কিভাবে পাশে দাঁড়াতে পারে তার জন্য পরামর্শ দেন। জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার কলকাতার একটি পাঁচতারা হোটেলে শিল্পপতিদের সঙ্গে বৈঠক করেন পীযূষ গোয়েল। যেখানে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় এবং আঞ্চলিক স্তরের চেম্বার অব কমার্সের কর্তারা। আর সেখানেই সেই সমস্ত শিল্পপতিরা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে কাছে পেয়ে তাদের নানান দাবি-দাওয়ার কথা তুলে ধরেন। আর এরপরই তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তিনি বলেন, “এই রাজ্যে শিল্পের অগ্রগতি কতটা হচ্ছে, সমস্যাই বা কতটা, তার নিয়মিত পর্যালোচনা করা দরকার।” শুধু তাই নয়, এর জন্য রাজ্যেরই এক কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে তাদের নির্দেশ দেন পীযূষ গোয়েল। আর রাজ্যের শিল্পপতিদের পাশে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পাশে দাড়ানোয় এবং এভাবে বৈঠক করায় এখন নানা মহলে তৈরি হয়েছে গুঞ্জন। অনেকে বলছেন, কেন্দ্র রাজ্যের অনেক ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করলেও শিল্প করা একান্তই রাজ্যের ব্যক্তিগত ব্যাপার।

সেদিক থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেক বৈঠক করে শিল্পপতিদের কাছে টানতে শুরু করেছেন। এমনকি এই ব্যাপারে তিনি অনেকটা সফলও হয়েছেন। কিন্তু এবার কেন্দ্রের তরফ থেকে বাণিজ্যমন্ত্রী কলকাতা এসেই ধরনের বৈঠক করে বাংলার শিল্পপতিদের পাখির চোখ করতে চাইছে বলে মনে করছে একাংশ। যা রাজ্য বনাম কেন্দ্রের মধ্যেকার দ্বৈরথকেই চরম পরিমাণে বাড়িয়ে দেবে বলেই মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। এখন এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের সঙ্গে কেন্দ্রের সংঘাত কতটা তীব্র হয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!