এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বাংলায় সংগঠনকে চাঙ্গা করতে শুভেন্দুকেই দায়িত্ব? আগামী সপ্তাহেই বড়সড় রদবদলের জল্পনা!

বাংলায় সংগঠনকে চাঙ্গা করতে শুভেন্দুকেই দায়িত্ব? আগামী সপ্তাহেই বড়সড় রদবদলের জল্পনা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বাংলায় বিজেপি 200 আসনের ধারে কাছে পৌঁছতে না পারলেও, নিজের দেওয়া কথা রেখেছেন শুভেন্দু অধিকারী। নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পরাজিত করে জয়লাভ করেছেন তিনি। হয়েছেন রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা। অর্থাৎ পরিষদীয় ক্ষেত্রে এখন বিজেপির পক্ষ থেকে তিনিই শেষ কথা বলবেন। তবে বিরোধী দলনেতা হওয়ার পর থেকেই শুভেন্দু অধিকারীর গুরুত্ব যেন দিনকে দিন বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। ঘরে এবং বাইরে তৃণমূল কংগ্রেসের অস্বস্তি প্রতিমুহূর্তে বাড়িয়ে দিচ্ছেন তিনি।

পাশাপাশি রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ না জানা সত্ত্বেও, মাঝেমধ্যেই রাজভবন থেকে শুরু করে দিল্লি সফর করতে দেখা যাচ্ছে সেই শুভেন্দু অধিকারীকে। স্বাভাবিক ভাবেই তার গুরুত্ব বৃদ্ধি নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই জল্পনা তৈরি হয়েছিল। অনেকেই বলতে শুরু করেছিলেন, 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার অন্যতম সেনাপতি ছিলেন দিলীপ ঘোষ। কিন্তু তিনি তার লক্ষ্যে পৌঁছতে পারেননি। যার ফলে ঘরে-বাইরে দলীয় অনেক নেতা নেত্রীদের প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে তাকে। তাই বর্তমানে তাকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় জায়গা দিয়ে বাংলার সংগঠনের ক্ষেত্রে নতুন কাউকে দায়িত্ব দিতে পারে ভারতীয় জনতা পার্টি।

এক্ষেত্রে বেশ কিছুদিন ধরেই পরিষদীয় রাজনীতি সামলানোর পাশাপাশি বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে রাজ্য বিজেপির গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে বসানো হতে পারে বলে জল্পনা তৈরি হয়েছিল। আর এই পরিস্থিতিতে এবার বাংলায় কিভাবে ঘুরে দাঁড় করানো যাবে সংগঠনকে, তা নিয়ে আগামী সপ্তাহে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক হতে চলেছে ভারতীয় জনতা পার্টির। আর সেই বৈঠকেই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের পাশাপাশি প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর। স্বাভাবিক ভাবেই এই বৈঠকের মধ্যে থেকেই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সামনে আসতে পারে বলে মনে করছেন একাংশ।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

 

সূত্রের খবর, আগামী 29 জুন কলকাতাতে বিজেপির ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে মূলত কেন এত খারাপ ফলাফল হল, কিভাবে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া যাবে, সেই সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হতে পারে। আর সেই বৈঠকেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের পাশাপাশি উপস্থিত থাকবেন শুভেন্দু অধিকারী মূলত কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের উপস্থিতিতেই এই বৈঠক হওয়ার কথা। যেখানে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। আর এই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে শুভেন্দু অধিকারী অন্যতম প্রধান বক্তা হিসেবে তার মনোভাব প্রকাশ করবেন বলে খবর।

একাংশের মতে, কিছুদিন আগেই দিল্লি থেকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল শুভেন্দু অধিকারীকে। প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন তিনি। প্রশাসনিক বিষয়ে কথা বলার পাশাপাশি দলীয় বিষয়েও যে তার কাছ থেকে পরামর্শ নিয়েছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব, তা কার্যত পরিষ্কার। আর এই পরিস্থিতিতে আবার তাকে দিল্লিতে তলব করা হয়েছে বলে খবর।

আর ঘনঘন শুভেন্দু অধিকারীকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের পক্ষ থেকে ডেকে পাঠানোর ঘটনাতে একাংশ কার্যত নিশ্চিত যে, শুভেন্দুবাবুকে বাংলার সংগঠনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা দিতে পারে ভারতীয় জনতা পার্টির শীর্ষ নেতৃত্ব। আর সেই কারণেই তাকে বারবার দিল্লিতে ডেকে পাঠিয়ে বাংলার সাংগঠনিক বিষয়ের পাশাপাশি অন্যান্য বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। আর এই পরিস্থিতিতে আগামী 29 জুনের বৈঠকে সেই শুভেন্দু অধিকারীর উপস্থিতি এবং গুরুত্বপূর্ণ বক্তা হিসেবে বক্তব্য যথেষ্ট নজরকাড়া বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে সকলের কাছে।

 

অনেকে বলছেন, বিজেপির রাজ্য সংগঠন এই বৈঠক থেকেই হয়তো নতুন কোনো দায়িত্ব পেতে পারেন শুভেন্দু অধিকারী। সেদিক থেকে দিলীপ ঘোষের ভবিষ্যৎ কি, তা নিয়েও যথেষ্ট প্রশ্ন রয়েছে। যদিও সবটাই জল্পনার পর্যায়ে রয়েছে। এই ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তবে গতিবিধি যেদিকে যাচ্ছে, তা দেখে একথা বলাই যায় যে, বিজেপির সংগঠনে দিনকে দিন গুরুত্ব বৃদ্ধি পাচ্ছে তৃণমূল থেকে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখানো শুভেন্দু অধিকারীর। সব মিলিয়ে আগামী 29 জুনের বৈঠক কেমন হয়, আগামী দিনে পথ চলতে এই বৈঠক থেকেই সাংগঠনিক কোনো সিদ্ধান্ত নেয় কিনা ভারতীয় জনতা পার্টির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!