এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > বাংলায় কি আবার ফিরে আসতে চলেছে নকশাল-রাজ? কোন জল্পনার কথা ‘ফাঁস’ করে দিলেন সৌগত রায়?

বাংলায় কি আবার ফিরে আসতে চলেছে নকশাল-রাজ? কোন জল্পনার কথা ‘ফাঁস’ করে দিলেন সৌগত রায়?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তি দেওয়া হবে বলে সম্প্রতি মন্তব্য করেছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর এবার দিলীপবাবুর এই মন্তব্যকে হাতিয়ার করে পাল্টা আক্রমণের নামলেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। যেখানে সিপিএমের কায়দাতেই বিজেপি কথা বলছে বলে অভিযোগ করলেন তিনি।

কিন্তু কেন সৌগতবাবু এই ধরনের কথা বললেন? বলা বাহুল্য, বৃহস্পতিবার চা-চক্রে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “সিপিএম, কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় এসে প্রতিপক্ষ দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একাধিক মিথ্যা মামলা দিয়েছে। এগুলোর কোনো ভিত্তি নেই। বিজেপি ক্ষমতায় এলে সেই মামলাগুলো থেকে তৃণমূল নেতাদেরও মুক্তি দেবে।”

আর দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যের পরই এবার পাল্টা আক্রমণে নামতে দেখা গেল তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়কে। এদিন সিপিএমের কায়দাতেই বিজেপি পথ অনুসরণ করছে বলে সরব হন এই তৃণমূল সাংসদ। তিনি বলেন, “সিপিএমের পথে হাঁটছে বিজেপি। সাতাত্তর সালে সিপিএম ক্ষমতায় আসার পর জেলে থাকা নকশাল নেতাদের ছেড়ে দিয়েছিল। এই নকশাল নেতাদের একাধিকের বিরুদ্ধে হত্যার মামলা ছিল। এবার সেই পথেই হাঁটতে শুরু করেছে বিজেপি।”

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অর্থাৎ দিলীপ ঘোষ রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের মুক্তি দেওয়ার কথা বললেও, তাতে সিপিএমকে অনুসরণ করা হচ্ছে বলে পাল্টা বিজেপিকে চাপে রাখার চেষ্টা করলেন তৃণমূলের সৌগত রায়। এমনিতেই গত লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকে সিপিএমের ভোট বিজেপিতে গিয়েছে বলে অভিযোগ করতে শুরু করে তৃণমূল কংগ্রেস।

আর এবার দিলীপ ঘোষের মন্তব্যকে হাতিয়ার করে আরও বেশি করে সরব হতে দেখা গেল এই তৃণমূল নেতাকে যার। ফলে বিজেপি এবং দিলীপ ঘোষ কিছুটা হলেও চাপে পড়ে গেল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।এদিন রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকরের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা নিয়েও কটাক্ষ করেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়।

তিনি বলেন, “কোনো রাজ্যপাল প্রকাশ্যে এই ধরনের মন্তব্য করতে পারেন না। যে সাংবিধানিক পদে রাজ্যপাল রয়েছেন, তার মর্যাদা তিনি লংঘন করে চলেছেন। রাজ্যপালের আচরণ সংবিধান সুলভ নয়।” একইভাবে রাজ্যপালের মন্তব্যের বিরোধিতা করতে দেখা গেছে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীকেও। এদিন তিনি বলেন, “এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। রাজ্যপালকে বিজেপি হাতিয়ার করে ব্যবহার করছে।” সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!