এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বেহালা পূর্বের লড়াইতে তৃণমূলের লড়াকু সেনা রত্না চট্টোপাধ্যায়, এবার নজর প্রতিদ্বন্দীর দিকে

বেহালা পূর্বের লড়াইতে তৃণমূলের লড়াকু সেনা রত্না চট্টোপাধ্যায়, এবার নজর প্রতিদ্বন্দীর দিকে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – শোভন-বৈশাখী এবং রত্না এই ত্রিকোণ সম্পর্ক নিয়ে রাজনৈতিক মহলেও যে যথেষ্ট আলোচনা হয় তা বলাইবাহুল্য। শোভন চট্টোপাধ্যায় বান্ধবী বৈশাখীকে নিয়ে তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েছেন দীর্ঘদিন আগেই। কিন্তু এতদিন পর্যন্ত শোভন-বৈশাখী গেরুয়া শিবিরে নিষ্ক্রিয় ছিলেন। বর্তমানে অবশ্য শোভন-বৈশাখীকে সক্রিয় হতে দেখা যাচ্ছে। উল্টোদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে শোভন চট্টোপাধ্যায় চলে যাবার পর সে জায়গায় দায়িত্ব পান তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়। দীর্ঘদিন নিষ্ক্রিয় থাকার পর শোভন বৈশাখীকে বর্তমানে গেরুয়া শিবিরের হয়ে প্রচারে দেখা যাচ্ছে। একইসাথে বেহালা পূর্বের প্রার্থী কে হবেন তৃণমূলের, তাই নিয়ে জল্পনা চলছিলই।

কিন্তু তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজ সমস্ত জল্পনার অবসান করে জানিয়ে দিলেন বেহালা পূর্বের প্রার্থী হচ্ছেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত, শোভন চট্টোপাধ্যায় চলে যাবার পর তাঁর এলাকায় সমস্ত কাজ করে গেছেন রত্না। মনে করা হচ্ছে, তারই পুরস্কারস্বরূপ রত্না চট্টোপাধ্যায়কে প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে। দীর্ঘদিন যাবৎ কো-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করার পর এই কেন্দ্রে রত্না চট্টোপাধ্যায় হচ্ছেন প্রার্থী। অন্যদিকে শোনা যাচ্ছে, রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিপরীতে এই কেন্দ্রের প্রার্থী হতে চলেছেন বিজেপির পক্ষ থেকে শোভন চট্টোপাধ্যায়। খুব স্বাভাবিকভাবেই স্বামী স্ত্রীর এই লড়াই রাজনৈতিক ময়দানে অত্যন্ত আকর্ষণীয় হতে চলেছে বলে দাবী ওয়াকিবহাল মহলের।

সূত্রের খবর, রত্না চট্টোপাধ্যায়কে বেহালা পূর্বের প্রার্থী হওয়ার জন্য আগে থেকেই ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল। সেই অনুযায়ী এই কেন্দ্র থেকে লড়াইয়ে নামার প্রস্তুতি শুরু করেন তিনি। এলাকা জুড়ে বিভিন্ন কাজ করেছেন একনাগাড়ে বলে শোনা যাচ্ছে। প্রসঙ্গত মনে করা হচ্ছে, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিজেপিতে সক্রিয় হওয়ার পর তৃণমূল রত্না চট্টোপাধ্যায়কে পাল্টা দাবীদার হিসেবে সামনে এনে বড়োসড়ো চাল দিল। অবশ্য এও শোনা যাচ্ছিল ইতিপূর্বে শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূলে ফিরতে চান। সে কারণে রত্না চট্টোপাধ্যায়কে সমস্ত দায়িত্ব থেকে অপসারণের দাবি করেন। কিন্তু তৃণমূল নেত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের কোন দাবি মানেননি।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অনুপস্থিতিতেই বেহালা পূর্বের তৃণমূলের প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে কিন্তু বেশ কয়েকটি নাম ছিল। তাদের মধ্যে যেমন প্রাক্তন মেয়র পারিষদ তারক সিং থেকে শুরু করে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা পুরসভার মুখ্য সচেতক রত্না শূর, অভিনেতা সোহম চক্রবর্তীর নামও শোনা গিয়েছিল। কিন্তু শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সাথে লড়াইতে যে রত্না চট্টোপাধ্যায় এগিয়ে থাকবেন, সেকথা একবাক্যে মেনে নিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। আর সে রকমই শেষ পর্যন্ত হল।

প্রসঙ্গত, শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে যত বেশি আক্রমণাত্মক হয়ে উঠেছেন, ঠিক ততটাই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি আনুগত্য দেখিয়েছেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আনুগত্য দেখানোর ফলেই বেহালা পূর্বের টিকিট অর্জন করলেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। তবে একথা অনস্বীকার্য যে রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে যদি শোভন চট্টোপাধ্যায় দাঁড়ান, তাহলে নন্দীগ্রামের পাশাপাশি কলকাতার বুকে আরেকটি কেন্দ্রের লড়াই এবারের ভোটে অন্যতম লক্ষণীয় হতে চলেছে।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!