এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বাংলায় যে কোন মুহূর্তে চালু হতে পারে লোকাল ট্রেন? রেলকর্তাদের বিশেষ পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা

বাংলায় যে কোন মুহূর্তে চালু হতে পারে লোকাল ট্রেন? রেলকর্তাদের বিশেষ পদক্ষেপে বাড়ছে জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – লকডাউন এর প্রাথমিক পর্ব থেকেই দেশজুড়ে বন্ধ হয়ে যায় গণ পরিবহণ ব্যবস্থা। এরপর ধীরে ধীরে আনলক পর্ব থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার চেষ্টা শুরু হয়। ধীরে ধীরে একটু একটু করে পরিবহণও স্বাভাবিকের পথে। ইতিমধ্যেই মুম্বাই রাজ্যে লোকাল ট্রেন চালানো শুরু হয়েছে জরুরী পরিষেবার ভিত্তিতে। সেদিক থেকে বাংলা মুম্বই থেকে কিছুটা পিছিয়ে রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। মেট্রো চলাচলের শুরু হলেও এখনো পর্যন্ত লোকাল ট্রেন নিয়ে রাজ্য সরকার স্পষ্ট করে কিছু নির্দেশ দেয়নি।

অন্যদিকে পূর্ব রেলের কর্তাদের একাংশ জরুরী পরিষেবার সংগে যুক্ত মানুষজন যাতে পর্যাপ্ত সুবিধা পান যাতায়াতের ক্ষেত্রে, তার জন্য মুম্বাই এর ধাঁচে লোকাল ট্রেন চালানোর দিকেই ইঙ্গিত দিচ্ছেন। বর্তমানে রেল কর্মীদের জন্য বরাদ্দ ট্রেনে উপায়ন্তর না দেখে উঠে পড়ছেন বহু মানুষ আর তাই নিয়ে শুরু হচ্ছে যাত্রী এবং আরপিএফ এর মধ্যে ধরপাকড়, ঝামেলা। যদিও জানা গেছে, পূর্ব রেলের জিএম রাজ্যকে ট্রেন চালানোর আবেদন করে জরুরী পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত মানুষদের সুবিধার্থে কিছু ট্রেন চালানোর প্রস্তাব দেয়, কিন্তু রাজ্যের তরফ থেকে এ বিষয়ে কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি।

এবং রেল স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছে রাজ্যের ইতিবাচক ভূমিকা ছাড়া কোন মতেই লোকাল ট্রেন সাধারণের জন্য চালানো যাবেনা রেলের পক্ষ থেকে। এই মুহূর্তে শিয়ালদায় 130 টি এবং হাওড়া 52 টি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চলছে রেল কর্মীদের জন্য। এই সংখ্যাটিকে কিছুটা বাড়িয়ে রেল কর্মীদের পাশাপাশি অন্যান্য জরুরী পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত মানুষরাও যাতে ট্রেনে চড়তে পারে সে ব্যবস্থা করলে রেলের সমস্যা কিছুটা কমতো বলে মনে করা হচ্ছে। পুজোর আগে লোকাল ট্রেন চালানোর দাবি উঠেছিল বিভিন্ন জায়গা থেকে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু রাজ্যের তরফ থেকে লোকাল ট্রেন চালানোর ব্যাপারে কোনো রকম কথা বলা হয়নি। এমনকি রাজ্য রেলের কাছে কোন রকম আবেদনও করেনি ট্রেন চালানোর ব্যাপারে। পুজোর পরে করোনার সংক্রমণ কতটা বাড়ে, সেই পরিস্থিতি দেখে লোকাল ট্রেন চলতে পারে বলেও শোনা গিয়েছে। তবে তা এখনও সম্ভব হবে কি না তা নিয়ে অবশ্য নিশ্চিত কিছু বলা যাচ্ছেনা। অন্যদিকে ডিআরএম এস পি সিং ইতিমধ্যে বলেছেন, সব লোকাল ট্রেন যদি চালু হয়ে যায় তাহলে প্রত্যন্ত জায়গাতেও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়বে।

তাই তিনি জানান, মুম্বাইয়ের ধাঁচে যদি পশ্চিমবঙ্গতেও কিছু সংখ্যক ট্রেন চালানো হয় বিশেষ ক্ষেত্রে, তাহলে মুম্বইবাসীর মতন পশ্চিমবঙ্গবাসীও কিছুটা উপকৃত হবেন। তবে পুরো পরিকল্পনা নির্ভর করছে রাজ্যের সম্মতির ওপর বলে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে বিশেষজ্ঞদের মতে, দীর্ঘদিন ধরে লোকাল ট্রেন না চলায় এবার ধীরে ধীরে আমজনতার ধৈর্যের বাঁধ ভাঙছে। তবে ট্রেন চলাচল নিয়ে রেল কর্তারা বিশেষ পদক্ষেপের কথা বললেও বাংলায় লোকাল ট্রেন কবে চলবে, সে ব্যাপারে অবশ্য স্পষ্ট কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি রাজ্যের তরফ থেকে। আপাতত করোনার সংক্রমণ কোন দিকে মোড় নেয়, তার ওপরই নির্ভর করছে লোকাল ট্রেন চলার ব্যাপারে পরবর্তী সিদ্ধান্ত।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!