এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বাংলাই পাখির চোখ! অমিত শাহের পর এবার রাজ্য জুড়ে গেরুয়া ঝড় প্রবল করতে আসরে নামছেন খোদ মোদী!

বাংলাই পাখির চোখ! অমিত শাহের পর এবার রাজ্য জুড়ে গেরুয়া ঝড় প্রবল করতে আসরে নামছেন খোদ মোদী!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আগামী ২০২১ এর রাজ্য বিধানসভা নির্বাচন বিজেপির কাছে পাখির চোখ। তাই এই নির্বাচনের প্রচারে রাজ্যে আসতে চলেছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভোট প্রচারের ক্ষেত্রে তিনি প্রধান ভূমিকা পালন করবেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রচার কর্মসূচি চূড়ান্ত করার কাজ শুরু হলো। আসন্ন নির্বাচনে এক ডজনেরও বেশি নির্বাচনী জনসভা করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী। এমনটাই বিজেপি সূত্রের খবর। রাজ্যের ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পর থেকেই প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী জনসভা শুরু হয়ে যাবে রাজ্যে।

তবে, জনসভা শুরু হবার বেশ কিছু আগে থেকেই প্রধানমন্ত্রী ভোট প্রচারে আসতে চলেছেন পশ্চিমবঙ্গে। আগামী ২০২১ এর জানুয়ারি মাস থেকেই প্রধানমন্ত্রী বাংলায় ভোট প্রচারের কাজ শুরু করে দিতে চলেছেন। বিজেপি দলের বিভিন্ন কর্মসূচিতে ও কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী কখনো ভার্চুয়াল ভাবে, কখনও বা সশরীরে উপস্থিত হবেন রাজ্যে। যে খবর সামনে আসতেই রাজ্য বিজেপি নেতা- কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক তৎপরতা শুরু হয়ে গেছে।

প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে ঝড় তোলার পরিকল্পনা আছে বিজেপির। প্রধানমন্ত্রী যেমন প্রচারে মুখ্য ভূমিকা পালন করবেন। তেমনি, প্রধানমন্ত্রীর মুখকে সামনে রেখে কেন্দ্রীয় সরকারের নানা সাফল্যের প্রচারও করবে বিজেপি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সঙ্গে বিজেপি তারকা প্রচারও করবে। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বাংলায় প্রচারের বিশেষ দায়িত্ব নেবেন। প্রধানমন্ত্রীর পরে তিনিই সবচেয়ে বেশি সংখ্যক জনসভা করবেন বলে জানা গিয়েছে। তাঁর সঙ্গে সঙ্গেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বাংলায় প্রচারে আসবেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

রাজনীতিবিদদের সঙ্গে সঙ্গে বাংলায় প্রচার আসতে চলেছেন সিনেমা জগতের বিজেপি নেতা নেত্রীরাও। যাদের মধ্যে আছেন হেমা মালিনী, জয়াপ্রদা, রবি কিষেণ, মনোজ তিওয়ারি প্রমুখরা। আবার, বহু কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও নির্বাচনের প্রচারে রাজ্যে আসতে চলেছেন। সূত্রের খবর, আগামী বছরের জানুয়ারি মাস থেকেই বেশ কিছু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাংলায় প্রচার আসতে চলেছে। আবার বেশ কিছু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভোটের নির্ঘন্ট ঘোষণার পর রাজ্যে থেকে যেতে পারেন বলে জানা যাচ্ছে। বিজেপির পক্ষ থেকে বাংলায় নির্বাচনী প্রচারের রণকৌশল তৈরিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে চলেছেন। তবে সবকিছুই নির্ভরশীল দেশের করোনা পরিস্থিতির উপর।

সমস্ত দিক বিবেচনা করেই একটা ব্যাক আপ প্ল্যানও এরমধ্যেই তৈরি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সম্প্রতি বিজেপির আইটি সেল এর সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত মালব্য পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিজেপির সহ পর্যবেক্ষক হিসেবে রাজ্যে এসেছেন। এই প্রথমবার তিনি কোন রাজ্যের সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করছেন। করোনা সংক্রমনের কারনে নেতা-মন্ত্রীরা যদি সরাসরি প্রচারে উপস্থিত হতে না পারেন, তবে, সোশ্যাল মিডিয়া, ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটস অ্যাপের মাধ্যমে প্রচার চালাবে বিজেপি। যার নেতৃত্ব দেবেন অমিত মালব্য। এ কারণেই বিজেপির আইটি সেল এর সভাপতিকে পশ্চিমবঙ্গে পাঠানো হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে। প্রচারে ঝড় তুলে ভোটে বাজিমাতের চেষ্টায় বিজেপি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!