এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বাংলাকে কোনোমতেই ছাড়তে নারাজ বিজেপি? বিহারেও তাই বাঙালিকে প্রাধান্য? উঠছে প্রশ্ন!

বাংলাকে কোনোমতেই ছাড়তে নারাজ বিজেপি? বিহারেও তাই বাঙালিকে প্রাধান্য? উঠছে প্রশ্ন!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সদ্য সমাপ্ত হয়েছে বিহারের বিধানসভা নির্বাচন। বহু সংস্থার বুথ ফেরত সমীক্ষা এই নির্বাচনে এগিয়ে রেখেছিল মহাজোটকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বিহারের শাসন ক্ষমতা ধরে রাখতে পেরেছে এনডিএ জোট। বিহারকে সাফল্য লাভের পর বিজেপি ঝাঁপিয়ে পড়তে চলেছে পশ্চিমবঙ্গে। পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন বিজেপির কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন, তা তারা বুঝিয়ে দিয়েছে। এ কারণেই বিহারের উপ মুখ্যমন্ত্রী পদে এলেন রেনুদেবী। যিনি হাওড়ার জগাছার গৃহবধূ। হাওড়ার জগাছার সঙ্গে তাঁর একটা বিরাট যোগ রয়েছে। তাঁর এই পদ লাভে খুশিতে মাতোয়ারা হলেন জগাছার মানুষেরা।

প্রসঙ্গত বিজেপি নেত্রী রেনুদেবীর বাড়ী বিহারে হলেও, হাওড়ার জগাছায় ছিল তাঁর শ্বশুর বাড়ি। বিয়ের পর তিনি জগাছায় এসেছিলেন। সেখানে কিছুকাল থেকে ছিলেন তিনি ।পরে তিনি বিহারে ফিরে গিয়েছিলেন। বিহারী ফিরে এক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। এই সংগঠনের সক্রিয় কর্মী হিসেবেই রাজনীতির অঙ্গনে পদচারণা করেন তিনি। বিজেপিতে তিনি যোগ দেন। এরপর তিনি চারবার বিধায়ক রূপে নির্বাচিত হলেন।

তবে, দীর্ঘদিন বিহারে চলে গেলেও জগাছাকে তিনি এখনো ভোলেননি। জগাছার সঙ্গে এখনো তাঁর ভাল রকম যোগাযোগ রয়েছে। এ কারণেই তাঁর শ্বশুরবাড়ির এলাকা জগাছাতে আনন্দের মেজাজ শুরু হয়েছে। জগাছার মানুষের কাছে তিনি এখনো বিটিয়া।তাঁর উপ মুখ্যমন্ত্রীর পদপ্রাপ্তির কারনেই জগাছার মানুষের কাছে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে এবারের ছট পুজো।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জগাছার মানুষের আশা ছিল, তাদের বিটিয়া রেনুদেবী বিহারে এনডিএ জোটের সাফল্যের পর সরকারের কোনো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব নিশ্চয়ই পাবেন। কারণ একদিকে যেমন তিনি নারী অধিকারের প্রচার করেছেন। অন্যদিকে তেমনি বিজেপির একজন দক্ষ সংগঠক তিনি। শেষ পর্যন্ত তিনি বড় দায়িত্ব পেলেন। উপমুখ্যমন্ত্রী পদের দায়িত্ব তিনি সফলভাবে পালন করবেন, এমনটাই জগাছার মানুষের আশা।

প্রসঙ্গত বিহারের ভোটের গণনার দিনেই কৈলাস বিজয়বর্গীয় জানিয়েছিলেন যে, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিহারের চেয়ে পশ্চিমবঙ্গে আরো ভালো ফল করবে বিজেপি। কার্যত পশ্চিমবঙ্গে জয়লাভ করতে তৎপর হয়ে উঠেছে বিজেপি। এই কারণেই হাওড়ার জগাছার বিটিয়াকে এতটা বড় পদ দেয়া হলো বলে, মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা। বাংলাকে গুরুত্ব দিতে, বাঙালির আবেগকে গুরুত্ব দিতেই বিজেপির এমন পরিকল্পনা বলে অনেকের মতামত।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!